দেশ

corona virus btn
corona virus btn
Loading

কৃষকদের ডাকা ভারত বনধে জনজীবন বিঘ্নিত হল কিছু রাজ্যে, দেখে নিন রাজ্যেগুলির ছবি

কৃষকদের ডাকা ভারত বনধে জনজীবন বিঘ্নিত হল কিছু রাজ্যে, দেখে নিন রাজ্যেগুলির ছবি

উত্তরপ্রদেশের পশ্চিম প্রান্তে দিল্লির সমস্ত জাতীয় সড়কগুলিতে অবরোধ করে রাখেন কৃষকেরা। যদিও কোনও আপৎকালীন ব্যবস্থার জন্য পথ খুলে দেওয়া হয়।

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: কৃষক আন্দোলন এবং মঙ্গলবার কৃষকদের ডাকা ধর্মঘটে ব্যপক সাড়া মিলেছে গোটা দেশে। তবে খবর মিলেছে, এইদিন স্বাভাবিক জনজীবন বিঘ্নিত হয়েছে তেলেঙ্গানা, অন্ধ্রপ্রদেশ এবং ওড়িশার মতো কিছু রাজ্যে। পঞ্জাবের রাস্তায়, বিভিন্ন জায়গায় কৃষকেরা অবরোধ করেন। সে কারণে বাস চলাচল প্রায় বন্ধ ছিল সেখানে। তবে কোনও হিংসার ঘটনা ঘটেনি পঞ্জাবে। সরকারি দফতর গুলি যদিও খোলা ছিল, অধিকাংশ কর্মীই দফতরে অনুপস্থিত ছিলেন। তাঁদের মধ্যে অনেকেই অংশ নিয়েছিলেন আন্দোলনে।

পাশের রাজ্য হরিয়ানাতেও দেখা গিয়েছে শান্তিপূর্ণ আন্দোলনের ছবি। এরাজ্যের কৃষকেরা জাতীয় সড়কগুলির উপর তাঁদের ট্রাকটর নিয়ে ধরনায় বসেছিলেন। কোনও রাজনৈতিক নেতাকে তাঁরা নিজেদের বিক্ষোভে সামিল করতে চাননি। কইথলে কৃষকেরা কংগ্রেস নেতা রাজদীপ সিংহ সুরজেওয়ালাকে, তাঁদের জমায়েতে প্রবেশ করতে বাধা দেন।

অন্যদিকে ওড়িশায় অধিকাংশ দোকান, বাণিজ্যিক সংস্থা এবং দফতর বন্ধ থাকায় স্বাভাবিক জনজীবন বেশ বিঘ্নিত হয়েছে। এমনকি এদিন রাজ্যের সরকারি দফতরগুলিও বন্ধ রাখা হয়েছিল। রাস্তাঘাটে বাস চলাচল প্রায় বন্ধই ছিল। ভুবনেশ্বরে বামেদের তরফ থেকে রেল অবরোধ করা হয়েছিল, যার ফলে সেখানে অন্তত তিনটি ট্রেন প্রায় এক ঘন্টা আটকে ছিল।

ঝাড়খন্ডের জেএমএম-কংগ্রেস-আরজেডি জোটের সরকার এই কৃষক আন্দোলনকে সমর্থন জানালেও, এ রাজ্যে বনধের দিন দেখা গিয়েছে মিশ্র প্রতিক্রিয়া। একই ভাবে, রাজস্থানেও বনধে খুব একটা সাড়া মেলেনি। যদিও রাজস্থানের কংগ্রেস সরকার কৃষকদের পক্ষেই কথা বলেছেন। ছত্তিশগড়ের মুখ্যমন্ত্রী ভূপেশ বাঘেল রাজ্যবাসীকে ডাক দিয়েছিলেন কৃষকদের পক্ষে বনধ পালন করতে। সেই ডাকে সাড়া দিয়ে, অধিকাংশ দোকান-পাট বন্ধ রাখা হয়েছিল বেলা ২টো পর্যন্ত। বিহারে বিরোধী দলের নেতারা কৃষকদের সমর্থনে পথ এবং রেল অবরোধ করেন।

উত্তরপ্রদেশের পশ্চিম প্রান্তে দিল্লির সমস্ত জাতীয় সড়কগুলিতে অবরোধ করে রাখেন কৃষকেরা। যদিও কোনও এমার্জেন্সির জন্য পথ খুলে দেওয়া হয়। মধ্যপ্রদেশের বেশ কিছু শহরেও এদিন দোকান-পাট বন্ধ রাখা হয়েছিল দিনভর। অন্ধ্রপ্রদেশেও স্বাভাবিক জনজীবন বিপর্যস্ত হয়েছে। সরকারি তরফে এরাজ্যে গণপরিবহণ বন্ধ রাখা হয়েছিল বেলা ১টা পর্যন্ত। কলকাতায় ছাত্র-ছাত্রীরা অবরোধ করেছিলেন দক্ষিণ কলকাতার যাদবপুর এবং ঢাকুরিয়া এলাকায়। প্রায় ২৬টি ট্রেনও এদিন বাতিল করা হয়েছে রাজ্যে।

Antara Dey

Published by: Pooja Basu
First published: December 9, 2020, 9:05 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर