হোম /খবর /দেশ /
ওমিক্রন আতঙ্ক, দেশে বিপর্যয় মোকাবিলা আইন কার্যকর ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত

Covid 19 in india: ওমিক্রন আতঙ্ক, দেশে বিপর্যয় মোকাবিলা আইন কার্যকর ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত

দেশে অ্যাকটিভ কেসও (Active Cases) ঊর্ধ্বমুখী। এই মুহূর্তে তা ৯১,৩৬১। আক্রান্তদের অনেকের শরীরেই ওমিক্রন বাসা বাঁধছে। এক্ষেত্রে সকলেই যে বিদেশফেরত, এমন নয়। যাঁদের সাম্প্রতিককালে বিদেশ যাওয়ার রেকর্ড নেই, তাঁদেরও অনেকে ওমিক্রন আক্রান্ত। প্রতীকী ছবি

দেশে অ্যাকটিভ কেসও (Active Cases) ঊর্ধ্বমুখী। এই মুহূর্তে তা ৯১,৩৬১। আক্রান্তদের অনেকের শরীরেই ওমিক্রন বাসা বাঁধছে। এক্ষেত্রে সকলেই যে বিদেশফেরত, এমন নয়। যাঁদের সাম্প্রতিককালে বিদেশ যাওয়ার রেকর্ড নেই, তাঁদেরও অনেকে ওমিক্রন আক্রান্ত। প্রতীকী ছবি

Corona Pandemic situation in India: বিপর্যয় মোকাবিলা আইন কার্যকর থাকার পাশাপাশি এই নির্দেশিকায় করোনা নিয়ন্ত্রণে সতর্ক থাকার কথাও বলা হয়েছে।

  • Last Updated :
  • Share this:

#নয়াদিল্লি: করোনার নতুন প্রজাতি ওমিক্রনের (Omicron) সংক্রমণ রুখতে সব রকম ব্যবস্থা নিচ্ছে কেন্দ্রীয় সরকার। করোনা অতিমারির (Corona Pandemic) জন্য দেশে যে বিপর্যয় মোকাবিলা আইন (Disaster Management Act)  কার্যকর করা হয়েছিল, তার মেয়াদ বাড়িয়ে দেওয়া হয়েছে আগামী ৩১ ডিসেম্বর (31 December) পর্যন্ত। এই নিয়ে কেন্দ্রীয়  স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের তরফ থেকে একটি নির্দেশিকা পৌঁছে দেওয়া হয়েছে রাজ্যগুলির কাছে। সেখানেই এই নির্দেশ কার্যকর করার কথা বলা হয়েছে। চিঠি পাঠিয়েছেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র সচিব।

পৃথিবীজুড়েই করোনার ওমিক্রন প্রজাতি নিয়ে বিস্তর আতঙ্ক তৈরি হয়েছে।ইতিমধ্যে বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থা ঘোষণা করেছে, করোনার এই প্রজাতি রূপ পাল্টে আরও ভয়ানক আকার ধারণ করেছে। টিকার দ্বারা এটি সঠিক ভাবে প্রতিরোধ করা যায় কি না, তাও এখনও স্পষ্ট করে বলা সম্ভব হচ্ছে না। ইউরোপের একাধিক দেশ ইতিমধ্যে ওমিক্রন সংক্রমিত দেশগুলির সঙ্গে বিমান সংযোগ আপাতত বিচ্ছিন্ন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এই পরিস্থিতি ভারতেও রোগ সংক্রমণের আশঙ্কা তৈরি হওয়া অমলূক নয়। সেই কারণেই সরকারের এই সিদ্ধান্ত।

আরও পড়ুন: মঙ্গলে উদ্ধব, বুধে শরদের কাছে মমতা! মুম্বইয়ে চমক দিতে পারেন শাহরুখকে নিয়েও

বিপর্যয় মোকাবিলা আইন কার্যকর থাকার পাশাপাশি এই নির্দেশিকায় করোনা নিয়ন্ত্রণে সতর্ক থাকার কথাও বলা হয়েছে। দেশের সমস্ত রাজ্য ও কেন্দ্র শাসিত অঞ্চলকে বলা হয়েছে, করোনার নতুন প্রজাতির সংক্রমণ রুখতে নিয়মিত করোনা পরীক্ষা ও বিভিন্ন করোনা বিধি কার্যকর করার বিষয়ে যেন আরও মনযোগ দেয় সংশ্লিষ্ট প্রশাসন। বিভিন্ন রাজ্যে বিদেশ থেকে যাত্রী বা পর্যটকরা আসছেন, তাঁদের উপর যেন কঠোর নজরদারি চালানো হয়। যে যাত্রীদের পরীক্ষা করে দেখা যাবে, তাঁরা করোনা সংক্রমিত, জিনোম সিকোয়েন্সিংয়ের জন্য যেন তাঁদের নমুনা পাঠিয়ে দেওয়া হয় অবিলম্বে। কারণ এই জিনোম সিকোয়েন্সিং ছাড়া বোঝা সম্ভব নয়, কোনও প্রজাতির করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে তাঁরা।

আরও পড়ুন: বঙ্গ বিজেপি-তে প্রশান্ত কিশোরের গোপন লোক! মারাত্মক অভিযোগ তথাগত রায়ের

ইতিমধ্যে কর্ণাটক-সহ বেশ কয়েকটি রাজ্যে ওমিক্রণ নিয়ন্ত্রণে আলাদা করে কঠোর ব্যবস্থা নিচ্ছে সে রাজ্যের সরকার। সেখানে প্রায় ৬০০ জনের কাছাকাছি আন্তর্জাতিক যাত্রীকে নজরদারিতে রাখা হয়েছে। কেন্দ্রের নির্দেশে বাকি রাজ্যেও দ্রুত আরও কড়াকড়ি বাড়তে পারে বলে মনে করা হচ্ছে।

সোমরাজ বন্দ্যোপাধ্যায়

Published by:Uddalak B
First published:

Tags: Coronavirus, Covid ১৯, MHA, Omicron