Home /News /local-18 /

করােনা টেস্টের রিপোর্ট না থাকলেও যেতে পারবেন দিঘা, কোভিড বিধিতে বদল

করােনা টেস্টের রিপোর্ট না থাকলেও যেতে পারবেন দিঘা, কোভিড বিধিতে বদল

দিঘার হােটেলে করােনা টেস্টের ছাড়পত্র প্রশাসনের

দিঘার হােটেলে করােনা টেস্টের ছাড়পত্র প্রশাসনের

হোটেলেই র‍্যাপিড টেস্ট করিয়ে নিশ্চিন্তে সৈকত নগরীতে ছুটি কাটাতে পারবেন

  • Share this:

    দিঘা: দিঘা, শঙ্করপুর, মন্দারমনি, তাজপুর, সমুদ্র উপকূলবর্তী পর্যটন কেন্দ্রের হোটেলগুলোতে করোনা টেস্টের ছাড়পত্র দিলে জেলা প্রশাসন। হোটেলে কিট এর মাধ্যমে পর্যটকদের করোনা পরীক্ষা করা যাবে। আর তাতেই দিঘা শঙ্করপুর হোটেলিয়ার্স অ্যাসোসিয়েশনের হোটেল মালিকেরা

    করোনার বিধি-নিষেধ শিথিল হওয়ার পর, স্বাভাবিক ছন্দে ফিরছিল দিঘা মন্দারমনি তাজপুর সমুদ্র উপকূলবর্তী পর্যটন কেন্দ্র। ধীরে ধীরে চেনা ভিড় দেখা দিয়েছিল দিঘা সমুদ্র সৈকতে। আর তাতেই উদ্বিগ্ন হয় পূর্ব মেদিনীপুর জেলা প্রশাসন। জেলার করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে জেলা প্রশাসন দিঘা সহ পর্যটন কেন্দ্রে প্রবেশের জন্য নতুন নির্দেশিকা জারি করে। যেখানে বলা হয় পর্যটকদের করোনার ভ্যাকসিনের দুটো ডোজ নেওয়ার সার্টিফিকেট বা করোনা আর টি পি সি আর টেস্টের নেগেটিভ রিপোর্ট ছাড়া কোন পর্যটক দিঘায় প্রবেশ করতে পারবে না। এবং জেলা প্রশাসন নাকা চেকিং করে বহু পর্যটকদের দিঘায় প্রবেশের আগে ফিরিয়ে দেয়। আর তারপরেই দিঘা কার্যত আবার পর্যটক শূন্য হয়ে পড়ে।

    প্রশাসনের এই  নির্দেশিকার পর দিঘা, তাজপুর, মন্দিরমণিতে হােটেল বন্ধ রাখার  সিদ্ধান্ত নেয় মালিকপক্ষ। হােটেল মালিকদের দাবি, এই নির্দেশিকা জারি হওয়ার পর দিঘায় পর্যটকদের আনাগােনা নেই বললেই চলে। আর পুলিশি ধরপাকড়ের পর বেশ কয়েকটি হােটেল ইতিমধ্যেই বন্ধও হয়ে গিয়েছে। হোটেল মালিকরা সাফ জানিয়েছিল সমস্যার যদি সুরাহা না হয়, সেক্ষেত্রে হােটেল বন্ধ করে দেওয়া ছাড়া আর কোনও উপায় থাকবে না। আর তাতেই নড়চড়ে বসে জেলা প্রশাসন।

    ২৫ জুলাই রবিবার দিঘা - শঙ্করপুর  হােটেলিয়ার্স অ্যাসােসিয়েশনের প্রতিনিধিদের সঙ্গে বৈঠকে বসেছিলেন পূর্ব মেদিনীপুরের জেলাশাক পূর্ণেন্দু মাঝি। জেলাশাসক জানিয়েছেন, \"খুবই ইতিবাচক আলােচনা হয়েছে। হােটেল মালিকরা কোভিড বিধি মেনে চলার আশ্বাস দিয়েছেন। হােটেলে আমরা টেস্ট করার ছাড়পত্র দিয়েছি। যদি কারও করােনা ধরা পড়ে, সেক্ষেত্রে আর দিঘায় থাকা যাবে না। কিন্তু দিঘায় প্রবেশের ক্ষেত্রে আগের নিয়মও বহাল থাকছে।\"

    প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, দিঘায় হােটেল কর্মীর সংখ্যা প্রায় সাড়ে তিন হাজার, তাঁদের বেশিরভাগই এখনও ভ্যাকসিন পায়নি। জেলাশাসকের সঙ্গে বৈঠকে দ্রুত টিকাকরণের দাবি জানান হােটেল মালিকরা। দ্রুত সেই সমস্যা সমাধানের আশ্বাস মিলেছে বলে হােটেল মালিকরা জানিয়েছেন।

    Published by:Ananya Chakraborty
    First published:

    Tags: Digha, Mandarmoni, Purba medinipur

    পরবর্তী খবর