Home /News /local-18 /
Bengali News| Birbhum Police: করোনাকালে বেড়েছে চুরি-ছিনতাই, পাল্লা দিয়ে চোর পাকড়াও বীরভূম পুলিশের!

Bengali News| Birbhum Police: করোনাকালে বেড়েছে চুরি-ছিনতাই, পাল্লা দিয়ে চোর পাকড়াও বীরভূম পুলিশের!

করোনাকালে অপরাধ দমনে বীরভূম পুলিশের তৎপরতা, মিলছে সাফল্য

করোনাকালে অপরাধ দমনে বীরভূম পুলিশের তৎপরতা, মিলছে সাফল্য

বীরভূম পুলিশের (Birbhum Police) সাফল্যের দিকে চোখ রাখলে এই করোনাকালেই অপরাধ (Crime in times of COVID19) দমনে তাদের তৎপরতায় যে ধরনের সফলতা মিলেছে তা নজির সৃষ্টি করার জন্য যথেষ্ঠ৷

  • Share this:

    #বীরভূম: করোনাকালে বিভিন্ন জায়গার পাশাপাশি বীরভূমেও বেড়েছে নানান অপরাধমূলক কাজ। তবে বীরভূম পুলিশের সাফল্যের দিকে চোখ রাখলে এই করোনাকালেই অপরাধ দমনে (number of crime increase during coronavirus time) তাদের তৎপরতায় যে ধরনের সফলতা মিলেছে তা নজির সৃষ্টি করার জন্য যথেষ্ট। সম্প্রতি বীরভূমের (Birbhum) বিভিন্ন থানা এলাকায় চুরি যাওয়া মোটরবাইক থেকে চুরি যাওয়া সোনার গয়না (Birbhum police active in COVID19 time)  এবং অন্যান্য সামগ্রী উদ্ধারে মাইলফলক তৈরি করছে।

    ঠিক যেমন সম্প্রতি বীরভূম পুলিশের দুবরাজপুর থানার পুলিশ মাত্র কয়েক ঘণ্টার মধ্যে তিন তিনটি চুরি ছিনতাইয়ের ঘটনায় তদন্তে নেমে সফল হল (Dubrajpur Police successful in recovering theft items)। এই সকল ঘটনায় চুরি যাওয়া জিনিসপত্র উদ্ধার হওয়ার পাশাপাশি অভিযুক্ত ব্যক্তিদের গ্রেপ্তার করতেও সক্ষম হয়েছে পুলিশ (accused arrested)। যার পর স্বাভাবিকভাবেই পুলিশের তৎপরতাকে কুর্নিশ জানিয়েছেন নিজেদের চুরি যাওয়া অথবা ছিনতাই হওয়া জিনিসপত্র ফেরত পাওয়া ব্যক্তিরা।

    আরও পড়ুন Bengali News| South 24 Pargana: চোখের সামনে প্রেমিককে ট্রেনের ধাক্কা, মৃত্যু! প্রেমিকার যা হল...

    দুবরাজপুর থানার পুলিশের এই সকল সফলতার উদাহরণ সাপেক্ষে বলতেই হয়, গত রবিবার দুবরাজপুরের হেতমপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের কোল্ডস্টোরেজ পাড়ার এক বাসিন্দা বিপ্লব দাসের বাড়ি থেকে লক্ষাধিক টাকার সোনা ও রুপোর গয়না সহ নগদ টাকা চুরি হয় (gold silver ornaments and money theft)। পুলিশ তদন্তে নেমে মাত্র ৭২ ঘণ্টার মধ্যে অভিযুক্ত ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করার পাশাপাশি সমস্ত চুরি যাওয়া জিনিসপত্র উদ্ধার করতে সক্ষম হয়।

    একইভাবে দুবরাজপুর থানার অন্তর্গত চৌধুরীপাড়া শ্যামাপদ দে নামে এক বয়স্ক ব্যক্তি স্টেট ব্যাঙ্ক থেকে ৮০০০ টাকা তুলে ব্যাঙ্কের সিঁড়ি দিয়ে নামার সময় এক দুষ্কৃতী তার হাত থেকে সমস্ত টাকা ছিনিয়ে নিয়ে পালিয়ে যায় (theft)। পুলিশ এই ঘটনায় তদন্তে নেমে মাত্র ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে ওই দুষ্কৃতীকে গ্রেফতার করার পাশাপাশি পুরো টাকা উদ্ধার করতে সক্ষম হয় (Arrest)।

    একইভাবে হলদিয়া থেকে আসা এক গাড়ি চালক অভিজিৎ দাস দুবরাজপুর শহরে নিজের কাজের জন্য দাঁড়ালে দু'জন দুষ্কৃতী তার থেকে মোবাইল এবং নগদ টাকা নিয়ে চম্পট দেয় (Mobile and money theft)। এই ঘটনাতেও তদন্তে নেমে মাত্র কয়েক ঘন্টার মধ্যেই দুবরাজপুর থানার পুলিশ ওই দুই দুষ্কৃতীকে গ্রেফতার করার পাশাপাশি মোবাইল এবং নগদ টাকা উদ্ধার করে (Police arrest accuse and recovered lost item)। এই সকল জিনিসপত্র উদ্ধার করার পাশাপাশি তৎক্ষণাৎ দুবরাজপুর থানার পুলিশ তা আসল মালিকদের কাছে ফিরিয়ে দেয়। চুরি যাওয়া অথবা ছিনতাই হওয়া সোনার গয়না, রুপোর গয়না, মোবাইল অথবা নগদ অপ্রত্যাশিতভাবে অল্প সময়ের মধ্যে ফিরে পাওয়ায় প্রতারিত প্রত্যেকেই পুলিশের কাছে কৃতজ্ঞতা স্বীকার করার পাশাপাশি পুলিশের এমন তৎপরতাকে কুর্নিশ জানিয়েছেন (Locals happy with Police performance) ।

    মাধব দাস

    Published by:Pooja Basu
    First published:

    Tags: Birbhum police, Theft

    পরবর্তী খবর