Home /News /life-style /

Nightmares| Winter|| শীত পড়লেই রাতে দুঃস্বপ্ন আসে? তালিকায় আপনি একা নেই, জানুন নিষ্কৃতির উপায়...

Nightmares| Winter|| শীত পড়লেই রাতে দুঃস্বপ্ন আসে? তালিকায় আপনি একা নেই, জানুন নিষ্কৃতির উপায়...

Why nightmares are more common in winters: শীতকালে রাতে হঠাৎ হঠাৎ ঘুম ভেঙে যাওয়া, ভয় পাওয়া বা খারাপ স্বপ্ন দেখা নির্ভর করে আমরা কেমনভাবে ঘুমাচ্ছি তার উপরে।

  • Share this:

#কলকাতা: শীতকালে রাতে মাঝেমধ্যেই ঘুম ভেঙে যায়? ভুলভাল স্বপ্ন দেখেন? এই তালিকায় আপনি একা নন, শীতকালে এমন অনেকের সঙ্গেই হয়ে থাকে। আমরা ঘুমানোর পর কী বিষয়ে স্বপ্ন দেখব, তার অনেকটাই নির্ভর করে আমরা সারা দিন কী ভাবছি তার উপরে বা আমরা সাধারণত কী ভাবি তার উপরে। তবে, এই শীতকালে রাতে হঠাৎ হঠাৎ ঘুম ভেঙে যাওয়া, ভয় পাওয়া বা খারাপ স্বপ্ন দেখা নির্ভর করে আমরা কেমনভাবে ঘুমাচ্ছি তার ওপরে।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, রাতে অনেকে গায়ে কিছু গরম জিনিস চাপা দিয়ে শুলেও ঘুমের মধ্যে তা গা থেকে নেমে যায় বা সরে যায়, ফলে ঘরের তাপমাত্রা কম থাকায় ঘুমের মধ্যেই ঠাণ্ডা লাগে এবং তা থেকে অস্বস্তি তৈরি হয়, ভুলভাল স্বপ্ন আসে। তাই এর পর থেকে এমন সমস্যায় ভুগলে ঘুমানোর আগে ঘরের তাপমাত্রা ঠিক করে নিয়ে ও রিল্যাক্স হয়ে ঘুমাতে যেতে হবে।

আরও পড়ুন: দাম বাড়ল সার্ফ-রিন বার-গায়ে মাখার সাবানের, কোন পণ্যের দাম কতটা বাড়ছে? দেখুন...

এ তো গেল প্রথম কারণ। রাতে আতঙ্কে ঘুম ভাঙা বা বাজে স্বপ্ন দেখার আরও একটি কারণ রয়েছে। দিনের পর দিন না ঘুমানো, কম ঘুমানো ডিপ্রেশন তৈরি করে এবং তা সিজনাল এফেক্টিভ ডিজঅর্ডার (SAD) তৈরি করে। যা এই শীতকালে খুবই কমন।

সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে, যাদের ডিপ্রেশন রয়েছে, তাদের মধ্যেই নাইটমেয়ার বা এক কথায় দুঃস্বপ্ন আসা খুবই কমন ব্যাপার। এটি ইনসমনিয়ার সঙ্গে আসে, এই দুইয়ের উপসর্গও খানিকটা এক, বলছেন গ্লোবাল হাসপাতাল (Dr. Jalpa Bhuta), মুম্বইয়ের কনসালটেন্ট সাইকিয়াট্রিস্ট ড. জলপা ভুটিয়া (Dr. Jalpa Bhuta)।

হাইপারটেনশন, ইনসমনিয়া যাদের আছে তাদের ক্ষেত্রে এই SAD মাঝেমধ্যেই শীতে দেখা দেয়। বিশেষ করে বেশি ঘুমালে এই নাইটমেয়ার আসার প্রবণতাও বেশি থাকে। ড. ভুটিয়া আরও জানাচ্ছেন, SAD হল একটি মুড ডিজঅর্ডার যা সিজন ধরে আসে। এর উপসর্গ অনেক সময় শুরু হয়ে যায় শরৎকাল থেকেই এবং চলে বসন্তকাল পর্যন্ত। এর ফলে খাওয়ার প্রবণতা বেড়ে যায়, এনার্জি কমতে থাকে এবং হাইপারসমনিয়া তৈরি হয়।

আরও পড়ুন: বিয়েবাড়ির খাবারে হাঁসফাঁস? ঢেকুর উঠছে বা বুক জ্বালা? হজম ঠিক রাখতে অব্যর্থ টোটকা...

এছাড়াও যারা বেশি রাত করে ঘুমায় তাদের মধ্যে এই সমস্যা বেশি দেখা দেয়। সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে, যারা দিনের বেলা তাড়াতাড়ি ওঠে তাদের ক্ষেত্রে তুলনামূলক SAD-এর সমস্যা কম হয়।

শীতে এই সমস্যা দূর করতে এগুলি মেনে চলা যায়-

*ডিপ্রেশন কমাতে বা SAD-র প্রবণতা কমাতে মানসিক দিক ঠিক রাখতে হবে, প্রয়োজনে মেন্টাল হেলথ প্রফেশনালের সঙ্গে যোগাযোগ করতে হবে

*যদি কোনও নির্দিষ্ট সমস্যা থাকে, তা হলে ওষুধ ইত্যাদির মাধ্যমে তা সারিয়ে তোলা যেতে পারে

*যদি এই সমস্যা একদম প্রাথমিক পর্যায়ে থাকে তা হলে ঘুমের সময় পরিবর্তন করতে হবে

*রাতে শোয়ার আগে বেশিক্ষণ ল্যাপটপ বা ফোনের আলোর সামনে না থাকা ভালো

*ঘুমানোর আগে ব্যায়াম বা কফি না খাওয়া ভালো

*বিছানায় কাজ নিয়ে শুতে যাওয়া চলবে না

*শীতকালে ঘরের তাপমাত্রা যাতে আরামদায়ক হয় সেদিকে লক্ষ্য রাখতে হবে

*অতিরিক্ত চিন্তা না করাই ভালো, প্রয়োজনে শ্বাসের ব্যায়াম করা যেতে পারে

*লাইট থেরাপি করা যেতে পারে

Published by:Shubhagata Dey
First published:

Tags: Nightmares, Winter

পরবর্তী খবর