হোম /খবর /লাইফস্টাইল /
নেটসিরিজে আসক্তি থেকে নিশাচর হয়ে পড়েছেন? এই অভ্যাস পাল্টাতে পারবেন তো?

Sleeping Cycle : নেটসিরিজে আসক্তি থেকে নিশাচর হয়ে পড়েছেন? এই অভ্যাস পাল্টাতে পারবেন তো?

মস্তিষ্কের বৈদ্যুতিক কার্যকলাপ শনাক্ত করে জানা গিয়েছে ঘুমানোর সময় এবং ঘুমের গুণমান হ্রাস পায় এর ফলে। অনেক সময় ঘুমের গভীরতা কমে। অনেক রাত পর্যন্ত থ্রিলার দেখা আপনার মানসিক স্বাস্থ্য়ে প্রভাব ফেলে।

মস্তিষ্কের বৈদ্যুতিক কার্যকলাপ শনাক্ত করে জানা গিয়েছে ঘুমানোর সময় এবং ঘুমের গুণমান হ্রাস পায় এর ফলে। অনেক সময় ঘুমের গভীরতা কমে। অনেক রাত পর্যন্ত থ্রিলার দেখা আপনার মানসিক স্বাস্থ্য়ে প্রভাব ফেলে।

Sleeping Cycle : পেঁচা থেকে কি হয়ে উঠতে পারবেন ভোরের পাখি? খুব সহজ না হলেও এই পরিবর্তন সম্ভব৷

  • Last Updated :
  • Share this:

তাড়াতাড়ি ঘুমোতে গিয়ে ভোরবেলা উঠে পড়া-এই দলে যাঁরা পড়েন তাঁরা ভোরের পাখি (early bird)৷ পাখির কূজনের সঙ্গেই শুরু হয় তাঁদের দিন৷ আর এক দল রাত জাগেন পেঁচার সঙ্গে৷ ভোরের আলো কেমন দেখতে, জানা হয় না এই নিশাচরদের৷ যাঁরা সকালে ঘুম থেকে ওঠেন, তাঁরা যত দিন এগোয় তত ক্লান্ত হয়ে পড়েন৷ অন্যদিকে, রাত জাগতে অভ্যস্ত যাঁরা, তাঁরা সকালে ঝিমিয়ে থাকেন (night owl)৷ দিন যত এগোয়, তত সক্রিয় হন তাঁরা৷

কিন্তু যদি শারীরিক অসুবিধে বা কাজের দরকারে সকালে ঘুম থেকে ওঠার দরকার হয়? তখন কী করবেন নিশাচররা? পেঁচা থেকে কি হয়ে উঠতে পারবেন ভোরের পাখি? খুব সহজ না হলেও এই পরিবর্তন সম্ভব৷

আরও পড়ুন : এই নিয়মগুলি মেনে চলুন, ঘুমিয়ে ঘুমিয়েও আপনার ওজন কমবে

বিছানায় যাওয়ার পরও যদি মাঝরাতের আগে ঘুম না আসে, তাহলে বুঝতে হবে আপনি সত্যিই নিশাচর৷ অন্যদিকে, সূর্যাস্তের পর যদি ক্রমাগত ঘুম পেতে থাকে, কিন্তু সুযোগ পেলেও ঘুম আসে না চোখে, তাহলে বুঝতে হবে আপনি আদ্যন্ত মর্নিং পার্সন৷

জীবিকাগত কারণে বা অভ্যস্ত জীবনযাপনই ঠিক করে দেয় আমরা কখন ঘুমোতে যাব বা ঘুম থেকে উঠব৷ কিন্তু কোনও অনিবার্য কারণে হয়তো নিদ্রাভ্যাস পাল্টানোর প্রয়োজন পড়ল৷ তখন কী করবেন?

আরও পড়ুন : অতীতের ‘বিষ ফল’ এখন গুণের আধার! একাধিক মারণব্যাধিকে দূরে রাখতে খান টমেটো

আপনার ঘুমের বা নিদ্রাভ্যাসের উপর কি প্রযুক্তির প্রভাব পড়ে? ঘুমোতে যাওয়ার আগে টেলিভিশন বা মোবাইলের পর্দায় চোখ রাখলে কি ঘুমের অসুবিধে হয়? সেই কারণগুলি আগে চিহ্নিত করুন৷

ছুটি বা সাপ্তাহিক কাজের দিনগুলিতেও নির্দিষ্ট সময়েই ঘুমোতে যাওয়ার চেষ্টা করুন৷ রুটিন পরিবর্তন করে অন্য সময়ে ঘুমোতে যাবেন না৷

আরও পড়ুন : ঘিয়ের পাকে অপূর্ব স্বাদগন্ধ, বাড়িতে খুব সহজেই তৈরি করুন ‘কড়া প্রসাদ’

তাড়াতাড়ি ঘুমিয়ে পড়ার দরকার হলে কোনও চেষ্টাই যদি কাজ না লাগে, চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে পারেন৷ তাড়াতাড়ি ঘুমনোর জন্য মেলাটোনিনের প্রয়োগ নিয়ে ভাবতে পারেন চিকিৎসকরা৷

খাদ্যাভ্যাসের উপরও ঘুম নির্ভর করে৷ প্রতিদিন পুষ্টিমূল্যে ভরা সুষম খাবার খান৷

যদি দুপুরের দিকে ক্লান্ত লাগে, তাহলে অল্প সময়ের জন্য পাওয়ার ন্যাপ দিতেই পারেন, যদি সম্ভব হয়৷ তবে দিবানিদ্রা যেন দীর্ঘ না হয়, খেয়াল রাখতে হবে সেদিকেও৷

যে সময়েই ঘুমোতে যান কেন, দূরে থাকুন মোবাইল এবং টেলিভিশন থেকে৷ চেষ্টা করুন ঘুমোতে যাওয়ার আগে অন্তত আধঘণ্টা মোবাইল এবং টিভি না দেখতে৷ পরিবর্তে ঘুমোতে যাওয়ার আগে চোখ রাখুন বইয়ের পাতায়৷

Published by:Arpita Roy Chowdhury
First published:

Tags: Sleeping Cycle, Sleeping pattern