Home /News /life-style /
Side Effects of Turmeric : রোজ হলুদ খান? এটাই আসলে আপনাকে অসুস্থ করে তুলছে না তো?

Side Effects of Turmeric : রোজ হলুদ খান? এটাই আসলে আপনাকে অসুস্থ করে তুলছে না তো?

ডায়েটে মাত্রাতিরিক্ত হলুদ রাখলে আমাদের শরীরের তার কী ধরনের প্রভাব পড়তে পারে জেনে নেওয়া যাক

ডায়েটে মাত্রাতিরিক্ত হলুদ রাখলে আমাদের শরীরের তার কী ধরনের প্রভাব পড়তে পারে জেনে নেওয়া যাক

Side Effects of Turmeric : ডায়েটে মাত্রাতিরিক্ত হলুদ রাখলে আমাদের শরীরের তার কী ধরনের প্রভাব পড়তে পারে জেনে নেওয়া যাক।

  • Share this:

    হলুদ এমন একটি মশলা যা ভারতীয় রান্নায় সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত হয়। কোনও রোগের ঘরোয়া ওষুধ হোক কিংবা হলুদ দুধের মতো বিভিন্ন ধরনের টেোটকায় রয়েছে এর বহুল ব্যবহার। আবার হলুদ আমাদের দেশের বিভিন্ন আচার-অনুষ্ঠানের নিয়মেও লাগে। কিন্তু সেই হলুদই না কি অতিরিক্ত মাত্রায় খেলে শরীরের ক্ষতি হতে পারে! ডায়েটে মাত্রাতিরিক্ত হলুদ রাখলে আমাদের শরীরের তার কী ধরনের প্রভাব পড়তে পারে জেনে নেওয়া যাক।

    দুর্বল করে দেয়

    অনেক মানুষই সুস্বাস্থ্যের জন্যে হলুদ খান। কিন্তু হলুদ বেশি খেলে আসলে শরীরে উল্টো প্রতিক্রিয়া হতে পারে। ন্যাশানাল লাইব্রেরি অফ মেডিসিনের একটি গবেষণায় ধরা পড়েছে যে হলুদ ৩০ থেকে ৯০ শতাংশ আয়রনের শোষণ কমিয়ে দিতে পারে। যদিও এটি মূলত হলুদ খাওয়ার পরিমাণের উপর নির্ভর করে। হলুদের স্টোইচিওমেট্রিক গুণের কারণে আয়রন কম শোষণ হয়। হলুদ খাবার থেকে পাওয়া সমস্ত আয়রনের সঙ্গে জমাট বাঁধে। যার ফলে আয়রনের ঘাটতি এবং অ্যানিমিয়ার মতো অসুস্থতা হতে পারে। সম্ভবত সেই কারণেই সবুজ শাক-সবজিতে হলুদ দেওয়া হয় না। তাই বিশেষজ্ঞদের মতে, অ্যানিমিয়ায় ভুগলে বেশি হলুদ খাওয়া উচিত নয়। কারণ এর ফলে হিমোগ্লোবিনের মাত্রা আরও কমে যেতে পারে।

    আরও পড়ুন :  বুস্টার ডোজ নিলেও ঘাড়ের কাছে নিঃশ্বাস ফেলছে ভাইরাস, জানুন কাদের বিপদের আশঙ্কা বেশি

    ডায়রিয়া হতে পারে

    দুধে, কাড়া কিংবা ভেষজ মিশ্রণে এক চিমটি হলুদ দিলে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ে। পাশাপাশি তা মেটাবলিজম বাড়াতে সাহায্য করে। তবে অতিরিক্ত হলুদ খেলে শরীরে তাপমাত্রা বেড়ে যেতে পারে। ফলে পেট ফুলে যাওয়া, ডায়রিয়া, পেটে ব্যথা এবং বমি হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। আবার এই কারণেই হলুদ জ্বর, ঠান্ডা বা গলা ব্যথা কমাতে সাহায্য করে।

    আরও পড়ুন : ইউটিউবার ঐশ্বর্যর বাঁধভাঙা কান্না, ট্রোলিং কীভাবে সামলানো যায়? বললেন মনোবিদ

    কিডনি স্টোনের ঝুঁকি বাড়ায়

    হলুদের মধ্যে থাকা অক্সালেটের জন্যে অতিরিক্ত মাত্রায় এটি খেলে কিডনি স্টোনের ঝুঁকিও বাড়ে। হলুদের সাপ্লিমেন্ট খেলে ইউরিনারি অক্সালেটের মাত্রা বেড়ে যেতে পারে যা থেকে কিডনি স্টোন হয়।

    আরও পড়ুন :  চোখে ঘুম এলেই গলায় শুকনো কাশি? সহজ ঘরোয়া টোটকা আপনার জন্য

    কতটা খেলে তা বেশি বলে ধরতে হবে?

    হলুদে কারকিউমিন নামের অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এবং বেশ কিছু খনিজ পদার্থ রয়েছে, যা স্বাস্থ্য ভালো রাখে। বিশেষজ্ঞদের মতে, পানীয়, তরকারি বা ঘরোয়া প্রতিকারে প্রতিদিনের খাদ্যতালিকায় সব মিলিয়ে এক চা চামচ হলুদ দেওয়া যায়। কিন্তু এর চেয়ে বেশি হলুদ খেলে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হতে পারে। ভারতীয় রান্নার প্রেক্ষিতে বললে প্রতিদিন গড়ে খাবারে প্রায় ৬০-১০০ মিলিগ্রাম কারকিউমিন খাওয়া উচিত।

    Published by:Arpita Roy Chowdhury
    First published:

    Tags: Turmeric

    পরবর্তী খবর