Home /News /life-style /

হস্তমৈথুনের জন্য পর্নোগ্রাফির সাহায্য হতে পারে বিপজ্জনক! কেন ব্যাখ্যা করছেন বিশেষজ্ঞ

হস্তমৈথুনের জন্য পর্নোগ্রাফির সাহায্য হতে পারে বিপজ্জনক! কেন ব্যাখ্যা করছেন বিশেষজ্ঞ

হস্তমৈথুন - যৌনতার মূল কথাই হল আনন্দ। সেটা যে সব সময়ে সঙ্গীর স্পর্শেই আসে, তা কিন্তু নয়। তাই প্রয়োজন বোধ হলে হস্তমৈথুনের মাধ্যমে কামতাড়না প্রশমন করা যেতে পারে।

হস্তমৈথুন - যৌনতার মূল কথাই হল আনন্দ। সেটা যে সব সময়ে সঙ্গীর স্পর্শেই আসে, তা কিন্তু নয়। তাই প্রয়োজন বোধ হলে হস্তমৈথুনের মাধ্যমে কামতাড়না প্রশমন করা যেতে পারে।

পল্লবী জানিয়েছেন যে পর্নোগ্রাফির শ্যুটিং চলাকালীন অভিনেতারাও মাঝে মাঝেই হস্তমৈথুন করে থাকেন, সেটাকে অস্বাভাবিক ভাবে কেউ নেয় না

  • Share this:

হস্তমৈথুনের মধ্যে যে অস্বাভাবিক কিছু নেই, সে কথা এর আগে নানা প্রসঙ্গে বিশদে ব্যাখ্যা করে বলেছেন বিশেষজ্ঞা পল্লবী বার্নওয়াল। কিন্তু এই পর্বে যে দিকটি নিয়ে আলোকপাত করছেন তিনি, তার মধ্যে অস্বাভাবিকতা লুকিয়ে রয়েছে বলে দাবি করছেন তিনি।

এই প্রসঙ্গে পল্লবী তুলে ধরছেন এক পাঠকের চিঠির কথা। এই পাঠক জানিয়েছেন যে তিনি হস্তমৈথুনের জন্য পর্নোগ্রাফির সাহায্য নিয়ে থাকেন। তিনি জানতে চেয়েছেন পল্লবীর কাছে- তাঁর এই অভ্যাস কি ভবিষ্যতে স্বাস্থ্যে কোনও নেতিবাচক প্রভাব ফেলতে পারে?

সবার প্রথমে পল্লবী জানিয়েছেন যে পর্নোগ্রাফির শ্যুটিং চলাকালীন অভিনেতারাও মাঝে মাঝেই হস্তমৈথুন করে থাকেন, সেটাকে অস্বাভাবিক ভাবে কেউ নেয় না। অতএব, এই দিক থেকে দেখলে হস্তমৈথুন এবং পর্নোগ্রাফির মধ্যে অঙ্গাঙ্গী সম্পর্ক আছে বলে দাবি করেছেন তিনি। আবার পর্নোগ্রাফি দেখার পর অনেকে স্বমেহনের মাধ্যমে নিজেদের আনন্দ দিয়ে থাকেন, সেটাও খুব একটা অজানা কোনও তথ্য নয়।

পল্লবী বলছেন যে এই হস্তমৈথুন আদতে আমাদের অর্গ্যাজম বা রতিসুখের চূড়ান্ত শিখরে নিয়ে যায়। একজন ব্যক্তি যখন হস্তমৈথুন করেন, তখন মস্তিষ্কের মধ্যে বেশ কিছু হ্যাপি হরমোনের ক্ষরণ ঘটে। এগুলি হল অ্যাড্রিনালিন, এনডোরফিন এবং সেরাটোনিন। যা আমাদের মন ভালো করে দেয়, শরীরকেও ফুরফুরে করে তোলে। যা আত্মশ্লাঘা বোধ করা এবং ভালো থাকার সঙ্গে কিছু মাত্রায় জড়িত।

কিন্তু কেউ যদি হস্তমৈথুনের জন্য পর্নোগ্রাফির সাহায্য নেন, তাহলে শরীর সেই বিশেষ ধারায় অভ্যস্ত হয়ে পড়ে। এর ফলে যৌন উত্তেজনা বিষয়টি আর স্বাভাবিক এবং স্বতস্ফূর্ত ভাবে ধরা দেয় না। এক্ষেত্রে যৌন উত্তেজনার জন্য অনুঘটক হিসেবে পর্নোগ্রাফি দেখার দরকার পড়ে। যা শরীরের পক্ষে ক্ষতিকর হিসেবে সাব্যস্ত হয়। কেন না, যৌন উত্তেজনা একটি স্বতস্ফূর্ত বিষয়, তা এই ভাবে বাহ্যিক কোনও অনুঘটকের দ্বারা নিয়ন্ত্রিত হওয়ার কথা নয়।

পল্লবী এই প্রসঙ্গে এটাও জানাতে ভোলেননি যে অনেক মহিলাই তাঁকে অনুযোগ করে চিঠি দেন স্বামী বা যৌনসঙ্গীর পর্নোগ্রাফি দেখার অভ্যাসের উল্লেখ করে। তাঁরা জানান যে পর্নোগ্রাফির উপরে অতিরিক্ত মাত্রায় নির্ভরশীল এই পুরুষেরা যৌনজীবনে আগ্রহ হারাচ্ছেন। এই সব দিক বিবেচনা করে পল্লবীর পরামর্শ এই যে হস্তমৈথুন স্বাভাবিক, তবে তার জন্য পর্নোগ্রাফির দ্বারস্থ হওয়া কখনই উচিত নয়।

Pallavi Barnwal 

Published by:Ananya Chakraborty
First published:

Tags: Sexual Tips, Sexual Wellness

পরবর্তী খবর