Home /News /life-style /
Curry Leaves|| শুধু খেলেই হবে না, চুল ভাল রাখতে কারিপাতা মাখতে হবে মাথাতেও! ঘটবে মিরাকেল

Curry Leaves|| শুধু খেলেই হবে না, চুল ভাল রাখতে কারিপাতা মাখতে হবে মাথাতেও! ঘটবে মিরাকেল

Hair Fall Tips: কারিপাতা দিয়ে চুলের সমস্যা প্রতিরোধ করতে পারি আমরা। বিশেষ করে চুলের বৃদ্ধির জন্য কীভাবে কারিপাতা ব্যবহার করা যায় জেনে নেওয়া যাক।

  • Share this:

#কলকাতা: ভারতীয় রান্নাঘরের অত্যন্ত পরিচিত উপাদান হল কারিপাতা। ডাল, চাটনি, স্যুপের মতো বিভিন্ন পদে কারিপাতা এক অন্য স্বাদ নিয়ে আসে। তবে শুধু রান্নায় নয়, কারিপাতা চুলের যত্নেও খুব ভালো কাজে আসে। আসলে কারিপাতা অ্যান্টিঅক্সিজেন এবং প্রোটিন সমৃদ্ধ হওয়ায় চুলের স্বাস্থ্য বজায় রাখে, চুলকে মজবুত করে তোলে। তাই এবার থেকে চুলের যত্নের জন্য দামি কোনও প্রোডাক্ট না হলেও চলবে, বাড়িতেই কারিপাতা দিয়ে চুলের সমস্যা প্রতিরোধ করতে পারি আমরা। বিশেষ করে চুলের বৃদ্ধির জন্য কীভাবে কারিপাতা ব্যবহার করা যায় জেনে নেওয়া যাক। তবে ব্যবহারের আগে কারিপাতার পেস্টে অ্যালার্জি আছে কি না সে বিষয়ে খেয়াল রাখা দরকার!

কারিপাতা যেভাবে ব্যবহার করা যায়-

হেয়ার মাস্ক

হেয়ার টনিক

ডায়েটে ব্যবহার

হেয়ার মাস্ক হিসাবে কীভাবে ব্যবহার করতে হবে?

কারিপাতার হেয়ার মাস্ক ব্যবহার করলে চুল বাউন্সি এবং উজ্জ্বল হয়ে ওঠে। হেয়ার মাস্কটি তৈরি করার জন্যে শুধু কারিপাতার সঙ্গে দই মেশাতে হবে। এক্ষেত্রে দই যেমন মাথার ত্বক পরিষ্কার করে, তেমনই মরা কোষ এবং খুসকি দূর করে। অন্য দিকে, কারিপাতায় চুলের স্বাস্থ্যের জন্য প্রয়োজনীয় পুষ্টি রয়েছে।

আরও পড়ুন: দাঁড়ালে কি আপনার হৃদস্পন্দন বেড়ে যায়? লং কোভিডের উপসর্গ নয় তো?

মাস্ক কীভাবে বানাতে হবে?

প্রথমে এক মুঠো কারিপাতা নিয়ে পেস্ট তৈরি করতে হবে। এবার চুলের দৈর্ঘ্য অনুযায়ী এক টেবিল চামচ ওই পেস্টে ৩-৪ টেবিল চামচ দই মিশিয়ে নিতে হবে। হেয়ার মাস্কটি স্ক্যাল্পে লাগিয়ে ভালো করে মাসাজ করতে হবে যাতে চুলের গোড়া থেকে ডগা পর্যন্ত সর্বত্র মাস্কটি পৌঁছায়। এটি সপ্তাহে অন্তত একদিন ৩০-৪০ মিনিট রেখে শ্যাম্পু করে নিলেই চুলের জেল্লা নজরে আসবে।

হেয়ার টনিক হিসাবে কীভাবে ব্যবহার করতে হবে?

স্বাস্থ্যকর চুলের জন্য মাথার ত্বক পরিষ্কার থাকা জরুরি। যার জন্য নিয়মিত চুলে তেল দিতে হবে। সেক্ষেত্রে নারকেল তেল এবং কারি পাতা দিয়ে একটি পুষ্টিকর তেল তৈরি করতে পারি আমরা বাড়িতেই। নারকেল তেলে যেমন ফ্যাটি অ্যাসিড এবং ভিটামিন রয়েছে, তেমনই কারি পাতায় অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, আয়রন থাকে যা মাথার ত্বক এবং শ্যাফ্টকে শক্তিশালী করতে সাহায্য করে এবং চুল পড়া রোধ করে।

আরও পড়ুন: আবহাওয়ার সঙ্গে বদলে কেন ও কীভাবে বদলে যায় আমাদের মন, জানাচ্ছেন গবেষকরা

কীভাবে তেল বানাতে হবে?

একটি প্যানে নারকেল তেল দিয়ে তাতে এক মুঠো কারিপাতা দিতে হবে। এর পর পাতাগুলো কালো না হওয়া পর্যন্ত তেল গরম করতে হবে। এবার আঁচ বন্ধ করে মিশ্রণ ঠান্ডা করে নিতে হবে। ঠান্ডা হয়ে গেলে তেলটি ছেঁকে নিতে হবে। তেলটি স্ক্যাল্পে লাগিয়ে ধীরে ধীরে আঙুল দিয়ে মাসাজ করতে হবে। সপ্তাহে ২-৩ বার শ্যাম্পু করার এক ঘন্টা আগে কারিপাতার তেল ব্যবহার করলে উপকার মিলবে।

ডায়েটে কীভাবে রাখা যায়?

প্রাচীন যুগ থেকে ভারতীয় রান্নায় কারিপাতা ব্যবহৃত হয়ে আসছে। রান্নায় স্বাদ আনার পাশাপাশি কারিপাতা ডায়েটে রাখলে চুলের বৃদ্ধি হয় এবং চুল পড়া কমে। কারিপাতা গুঁড়ো ভাতে কিংবা তরকারিতে ব্যবহার করতে পারি আমরা। পাশাপাশি দুধ কিংবা ঘোলে পুদিনা পাতা এবং কারি পাতার মিশ্রণ খেতে পারি। কারিপাতা চুল পাকাও প্রতিরোধ করতে পারে।

Published by:Shubhagata Dey
First published:

Tags: Curry leaves, Hair Care

পরবর্তী খবর