Home /News /life-style /
গরমে চুলে জট পড়ে একসা, খালি মাথা চুলকোচ্ছে? রোদ থেকে চুল বাঁচাতে মেনে চলুন এই ৫ কৌশল

গরমে চুলে জট পড়ে একসা, খালি মাথা চুলকোচ্ছে? রোদ থেকে চুল বাঁচাতে মেনে চলুন এই ৫ কৌশল

গরমে মানুন এই টিপসগুলি৷৷

গরমে মানুন এই টিপসগুলি৷৷

ডিহাইড্রেশন থেকে শুরু করে ত্বকের অ্যালার্জি, চুলের রুক্ষতার মতো ক্ষতির মুখে পড়ার সম্ভাবনা থাকে।

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: গোটা গরমকালটা এসি বা পাখার আরামে বাড়িতে বসে থাকা সম্ভব নয়। বিভিন্ন কাজে বাইরে বেরোতেই হয়। আর রোদে বের হওয়ার অর্থই হল, শরীর তো বটেই সেই সঙ্গে ত্বকের স্বাস্থ্যেরও সম্ভাব্য ক্ষতির সম্মুখীন হওয়া। সরাসরি সূর্যালোকের প্রচুর উপকারিতা আছে। কিন্তু সবকিছুর মতো অতিরিক্ত সূর্যালোকও খারাপ। ডিহাইড্রেশন থেকে শুরু করে ত্বকের অ্যালার্জি, চুলের রুক্ষতার মতো ক্ষতির মুখে পড়ার সম্ভাবনা থাকে।

অনেকেই প্রশ্ন করেন, অতিরিক্ত সূর্যালোক বা রোদে চুলের কী ধরনের ক্ষতি হতে পারে? এর উত্তরটা সহজ। ঘাম বসে চুল এবং ত্বক ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার কারণেই মাথা কুটকুট করে এবং চুলকায়। অতিরিক্ত রোদ আরও অনেক রকমভাবে চুলের ক্ষতি করে। চুল পড়া, খুশকি, শুকনো এবং জট পাকানো চুল, গোড়া ভেঙে যাওয়া এগুলোর মধ্যে অন্যতম। মনে রাখা জরুরি, চুল নার্সারির মতো, তাই এর লালন-পালন করা দরকার। কয়েকটি সহজ পদক্ষেপেই গরমকালে সুস্থ চুলের সৌন্দর্য ধরে রাখা সম্ভব।

আরও পড়ুন: আপনার হাতের চা খেয়ে মন ভরছে না বাড়ির লোকেদের? এই টিপসগুলি মানলেই মিলবে বাহবা

সঠিক শ্যাম্পু: বাথরুমের শেল্ফে যে শ্যাম্পুটা রয়েছে সেটা কি চুলের জন্য আদৌ ভালো? শ্যাম্পুতে প্রচুর রাসায়নিক থাকে যা মেরামত করার বদলে দীর্ঘমেয়াদে চুলের ক্ষতি করতে পারে। চুলের যত্নের ক্ষেত্রে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হল এমন শ্যাম্পু ব্যবহার করা যা চুলের চাহিদাগুলোকে ভালোভাবে পূরণ করবে। সেই সঙ্গে অ্যালার্জি থাকলে খেয়াল রাখবে সেদিকটাও। তবে রাসায়নিক থাকার কারণে শ্যাম্পুর বদলে প্রাকৃতিক উপাদান কিংবা ভেষজ বা জৈব উপাদান ব্যবহারে উপকৃত হওয়ার সম্ভাবনা বেশি।

জল: যে জল ব্যবহার করা হয় সেটা কি ত্বক এবং চুলের জন্য স্বাস্থ্যকর? হার্ড এবং সফট ওয়াটারের কথা প্রায় সবাই শুনেছে। হার্ড ওয়াটারে প্রচুর পরিমাণে ম্যাগনেসিয়াম এবং ক্যালসিয়াম মিশ্রিত প্রাকৃতিক নুন থাকে। যার ফলে এটা এক ধরনের আঠালো অনুভূতি দেয়। ত্বক এবং চুলে এটা রুক্ষ প্রভাব ফেলে। নিয়মিত হার্ড ওয়াটার ব্যবহারে ত্বকে পাতলা আস্তরণ তৈরি হয় এবং চুলে আর্দ্রতা প্রবেশ করতে বা হাইড্রেট করতে বাধা দেয়। বাজারে বিভিন্ন ধরনের ওয়াটার সফটনার পাওয়া যায়। সেগুলো ব্যবহার করলে এই সমস্যা থেকে বাঁচা সম্ভব।

আরও পড়ুন: ঘুমোনোর সময় ভালবাসার মানুষ পাশে থাকলে সুস্থ ও ঝরঝরে হবে শরীর এবং মন

তেল: তেল চুলের উপর একটি পাতলা প্রতিরক্ষামূলক ঢাল তৈরি করে। ফলে একে অন্যের সঙ্গে ঘর্ষণ থেকে বাঁচায়। শুধু তাই নয়, নিয়মিত তেল মাখলে চুলে জট পড়ে না, মাথার ত্বকে পুষ্টি যোগায় এবং চুলের হাইড্রেশন বজায় রাখে। গ্রীষ্মের সেরা তেল হল নারকেল তেল। এর শীতল প্রভাব রয়েছে। পুদিনা তেলও ভালো, এটা আক্ষরিক অর্থেই চুল ও মাথার ত্বককে বরফ ঠান্ডা অনুভূতি দেয়।

স্কার্ফ বা ছাতা: আরও কয়েকটি উপায় রয়েছে যা চুলকে রোদের হাত থেকে রক্ষা করে। এর মধ্যে সবচেয়ে ভালো বাইরে বেরোলে স্কার্ফ বা ছাতা ব্যবহার করা। এছাড়া এসপিএফ ইনফিউজড হেয়ার কেয়ারও ব্যবহার করা যায়, বাজারচলতি যে কোনও দোকানেই কিনতে পাওয়া যায়। আর একটা ভালো উপায় হল সপ্তাহে একবার বা দু'বার ডিপ কন্ডিশনিং করা। এটা চুলকে আর্দ্রতা ধরে রাখতে সাহায্য করে, গরমকালে যা অপরিহার্য।

খাওয়াদাওয়া: ডায়েটে সব ধরনের ফল এবং শাক-সবজি রাখতে হবে। এটা অক্সিডেটিভ ক্ষতি রোধ করতে প্রয়োজনীয় অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট জোগাবে।

First published:

Tags: Hair Care, Summer

পরবর্তী খবর