কলকাতা

corona virus btn
corona virus btn
Loading

'পরীক্ষা কীভাবে হবে তা ঠিক করবে বিশ্ববিদ্যালয়গুলি,' UGC-র নির্দেশিকা প্রসঙ্গে পার্থ

'পরীক্ষা কীভাবে হবে তা ঠিক করবে বিশ্ববিদ্যালয়গুলি,' UGC-র নির্দেশিকা প্রসঙ্গে পার্থ
শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়
  • Share this:

#কলকাতা: ইউজিসি-র নির্দেশিকার পর রাজ্যের বিশ্ববিদ্যালয় ও কলেজগুলি কী ভাবে পরীক্ষা নেবে তা বিশ্ববিদ্যালয়গুলির ওপরেই ছেড়ে দিলেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়।

মঙ্গলবার তিনি বলেন,  "রাজ্যের তরফে কী ভাবে পরীক্ষা নেওয়া হবে তা নিয়ে অ্যাডভাইজারি ইতিমধ্যেই বিশ্ববিদ্যালয়গুলিতে পাঠানো হয়েছে। এবার পরীক্ষা কীভাবে বিশ্ববিদ্যালয়গুলি নেবে তা ঠিক করবে বিশ্ববিদ্যালয়গুলি। ইউজিসি-র নির্দেশিকা আমি দেখিনি। তবে বিষয়টি নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে আমি কথা বলব।"

সোমবার রাতেই ইউজিসি-র তরফে নির্দেশিকা জারি করা হয় কী ভাবে চূড়ান্ত বর্ষের ছাত্রছাত্রীদের পরীক্ষা নেওয়া হবে। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক কেন্দ্রীয় মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রকের সচিবকে চিঠি লিখে জানিয়ে দেন, বার্ষিক পরীক্ষা নিতে কোনও সমস্যা হবে না। চিঠি পাওয়ার কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই ইউজিসি-র তরফে সেই নির্দেশিকা দিয়ে সেপ্টেম্বরের শেষ দিকে পরীক্ষা নেওয়ার কথা জানানো হয় বিশ্ববিদ্যালয়গুলিকে। যদিও গত সপ্তাহেই রাজ্যের উচ্চশিক্ষা দফতর বিশ্ববিদ্যালয়গুলিকে কী ভাবে পরীক্ষা নেওয়া যেতে পারে তা নিয়ে অ্যাডভাইজারি পাঠিয়েছিল। অ্যাডভাইজারি পাঠানোর পরে কয়েকটি বিশ্ববিদ্যালয় ইতিমধ্যেই কী ভাবে পরীক্ষা নেওয়া হবে তা নিয়ে নির্দেশিকা জারি করেছে।

সোমবার রাতে ইউজিসি-র তরফে পরীক্ষা নিয়ে গাইডলাইন জারি হওয়ার পর রাজ্যের বিশ্ববিদ্যালয় ও কলেজগুলির পরীক্ষার ভবিষ্যৎ নিয়ে রীতিমতো সংশয় তৈরি হয়েছে বলেই মনে করছেন একাংশ।

বিশ্ববিদ্যালয়, কলেজের স্নাতক ও স্নাতকোত্তর স্তরের ছাত্র-ছাত্রীদের কী ভাবে পরীক্ষা নেওয়া হবে, সে নিয়ে গত এক মাস ধরেই আলোচনা চলছিল বিভিন্ন মহলে। বিশেষত করোনা ভাইরাস সংক্রমণের এই পরিস্থিতিতে কী ভাবে ছাত্র-ছাত্রীদের বিশ্ববিদ্যালয় নিয়ে এসে পরীক্ষা করানো সম্ভব তা নিয়ে আলোচনা ছিল। যদিও গত সপ্তাহেই রাজ্যের উচ্চ শিক্ষা দফতরের তরফে বিশ্ববিদ্যালয়গুলিকে পরীক্ষা নিয়ে অ্যাডভাইজারি পাঠানো হয়েছিল।

অ্যাডভাইজারিতে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর স্তরের চূড়ান্ত বর্ষের ছাত্র-ছাত্রীদের মূল্যায়ন নিয়ে জানানো হয়েছিল, আগের সেমিস্টারগুলির মধ্য থেকে সব থেকে বেশি যে নম্বর সেমিস্টারে পেয়েছে তার নম্বর যোগ হবে৷ তার সঙ্গে ইন্টার্নাল অ্যাসেসমেন্ট-এর নম্বর যোগ করে ফাইনাল সেমিস্টারএর রেজাল্ট বের করা হবে।

রাজ্যের অ্যাডভাইজারি মেনে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়, যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়, প্রেসিডেন্সির মত বিশ্ববিদ্যালয়গুলি পরীক্ষা নিয়ে  একপ্রকার সিদ্ধান্ত নিয়ে নেয়।

সোমবার রাতে ইউজিসির পরীক্ষা নিয়ে নয়া গাইডলাইন আসার পর এবার নড়েচড়ে বসেছে রাজ্য উচ্চ শিক্ষা দপ্তর। ইউটিসি তরফে স্পষ্ট করে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে সেপ্টেম্বরের শেষের দিকে বিশ্ববিদ্যালয়গুলি চূড়ান্ত বর্ষের ছাত্রছাত্রীদের পরীক্ষা নিতে পারে। অনলাইন বা অফলাইনে তাছাড়া অনলাইন ও অফলাইন এই তিনটি মাধ্যমের মধ্যে যেকোনো একটি মাধ্যম দিয়ে পরীক্ষা নিতে পারবে বিশ্ববিদ্যালয়গুলি। রাজ্যের তরফে ইতিমধ্যেই পরীক্ষা  বাতিল করে বিস্তারিত গাইড লাইন দেওয়া হয়েছে মূল্যায়ন নিয়ে সে ক্ষেত্রে কিভাবে ইউজিসির নির্দেশিকার পর পরীক্ষা নেবে বিশ্ববিদ্যালয়গুলি তা বিশ্ববিদ্যালয়গুলির উপর ছেড়ে দেওয়ার কথাই মঙ্গলবার জানালেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। যদিও রাজ্যের বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যরা ইউজিসি নির্দেশিকার উচ্চ শিক্ষা দপ্তরের তরফে আবার কোন নয়া অ্যাডভাইজারি বা  নির্দেশিকা আসে নাকি সে বিষয়ে তাকিয়ে রয়েছে।

 SOMRAJ BANDOPADHYAY

Published by: Arindam Gupta
First published: July 7, 2020, 7:28 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर