• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • Bengal Bjp: একটি কাউন্সিলর টিকিটের দাম ১ লক্ষ! অডিও প্রকাশ্যে, বঙ্গ বিজেপি তোলপাড়

Bengal Bjp: একটি কাউন্সিলর টিকিটের দাম ১ লক্ষ! অডিও প্রকাশ্যে, বঙ্গ বিজেপি তোলপাড়

তোলপাড় বঙ্গ বিজেপি

তোলপাড় বঙ্গ বিজেপি

Bengal Bjp: ওই ভিডিওটি বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে সম্প্রচারিত হওয়ার পর রাজ্য বিজেপি থেকে ওই নেতাকে বিজেপির কোন কর্মসূচি কিংবা কাজের সঙ্গে থাকতে বারণ করা হয়েছে বলে খবর।

  • Share this:

#কলকাতা: আগেই অভিযোগ উঠেছে, বিজেপির প্রার্থী হওয়ার জন্য আর্থিক দুর্নীতির। বিধানসভার টিকিট বিক্রি বিস্ফোরক অভিযোগ উঠেছে দলেরই অন্দরে। এবার পৌরসভার কাউন্সিলর প্রার্থীর টিকিট এক লক্ষ টাকা দাম উঠেছে শোরগোল পড়েছে। সেই টাকা নিয়ে আবার চলছে দরাদরিও। গতকাল থেকে একটি অডিও টেপ ঘুরে বেড়াচ্ছে বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়ায়। তৃণমূলের তরফেও এই ক্লিপ সোশ্যাল মিডিয়ায় ছাড়া হয়েছে। তাতে শোনা গিয়েছে, প্রীতম সরকার নামে এক বিজেপি নেতার সঙ্গে কথা বলছে অন্য এক বিজেপি কর্মী। তিনি আটটি কাউন্সিলরের টিকিটের জন্য দরাদরি করছিলেন ওই নেতার সঙ্গে। ওই ভিডিওটি বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে সম্প্রচারিত হওয়ার পর রাজ্য বিজেপি থেকে ওই নেতাকে বিজেপির কোন কর্মসূচি কিংবা কাজের সঙ্গে থাকতে বারণ করা হয়েছে বলে খবর। যদিও ওই অডিও-র সত্যতা বিচার করেনি News 18 বাংলা।

বেশ কয়েকদিন আগে শংকর শিকদারের বিরুদ্ধে আর্থিক দুর্নীতি এবং নির্বাচনে দাঁড়ানোর জন্য ভোটে টিকিট বিক্রির অভিযোগ উঠেছিল। সেই অভিযোগ এমনকী প্রকাশ্য রাস্তায় ফেস্টুন হিসাবে দেওয়া হয়েছিল। সেটা নিয়ে রাজ্য বিজেপি সেই ভাবে কোনো আমল দেয়নি সেই সময়।

আরও পড়ুন: দুশোর লক্ষ্যে দেড়শো কোটি! বাংলার ভোটে কত খরচ করেছিল বিজেপি, সামনে এল তথ্য

তবে প্রীতম সরকার নির্বাচনের আগে তৃণমূল কংগ্রেস থেকে বিজেপিতে যোগ দিয়েছিল। সূত্রের খবর, কিছুদিন আগে দিল্লিতে এক মন্ত্রীর অনুষ্ঠানে শংকর শিকদার এবং শশী অগ্নিহোত্রীকে দিল্লিতে যাওয়ার যাবতীয় খরচ বহন করেছিল প্রীতম। কয়েকদিন আগে তথাগত রায় টুইট করে অভিযোগ করেছিলেন একুশের বিধানসভা নির্বাচনে আর্থিক কেলেঙ্কারির কথা। এবার দক্ষিণ কলকাতায় প্রার্থীর টিকিট দেওয়া নিয়ে আর্থিক কেলেঙ্কারির অভিযোগ।

আরও পড়ুন: ইভিএম-এই পুরভোট, কিন্তু থাকছে না ভিভিপ্যাট! প্রস্ততি শুরু রাজ্য নির্বাচন কমিশনের

রীতিমতো অস্বস্তিতে পড়েছে বিজেপি। ওই অডিও টেপে শোনা গেছে সদ্য বিজেপি রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদারের নামও। যদিও বিজেপির তরফ থেকে অর্থ নেওয়ার অভিযোগের ব্যাপারে গতকাল দিলীপ ঘোষ বলেছিলেন, ''যিনি বলছেন তাকে প্রমাণ করতে হবে আর্থিক কেলেঙ্কারি কীভাবে হয়েছিল?''

Published by:Suman Biswas
First published: