• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • SUVENDU ADHIKARI WILL GIVE WRITTEN ANSWER ON MAMATA BANERJEES NANDIGRAM CASE SB

Nandigram Case: অভিযোগ মমতার, জবাব দেবেন শুভেন্দু! নন্দীগ্রামের ভবিষ্যৎ নির্ধারণ নভেম্বরে?

কবে হবে নন্দীগ্রাম মামলার সমাধান?

Nandigram Case: ১৫ নভেম্বরের মধ্যে এই প্রক্রিয়া সারতে হবে। ৩ মাস পর ১৫ নভেম্বর ফের নন্দীগ্রাম ইলেকশন পিটিশনের শুনানি। তার আগে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অভিযোগের জবাব দেবেন শুভেন্দু অধিকারী।

  • Share this:

#কলকাতা: হাইকোর্টে চলা নন্দীগ্রাম লড়াইতে  শুভেন্দু অধিকারীকে লিখিত দিতে নির্দেশ দেওয়া হল। একই সূত্রে আরও একধাপ এগোল নন্দীগ্রাম মামলা। তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী মমতা বন্দোপাধ্যায়ের করা অভিযোগের ওপর এবার বিজেপি প্রার্থী শুভেন্দু অধিকারীর প্রত্যুত্তর পর্ব। বৃহস্পতিবার বিচারপতি শম্পা সরকার নির্দেশে জানান, ইলেকশন পিটিশনে আসা অভিযোগের ওপর লিখিত প্রত্যুত্তর দেবেন শুভেন্দু অধিকারী। আদালতের পরিভাষায় বলা হয় একে রিটেন স্টেটমেন্ট(ডব্লিউ এস)। ১৫ নভেম্বরের মধ্যে এই প্রক্রিয়া সারতে হবে। ৩ মাস পর ১৫ নভেম্বর ফের নন্দীগ্রাম ইলেকশন পিটিশনের শুনানি।

তবে শুনানি পিছোনোর কারণ শুভেন্দু অধিকারীর করা একটি আবেদন। আদালতে শুভেন্দু অধিকারীর আইনজীবী জয়দীপ কর এবং বিল্বদল ভট্টাচার্য জানান, সুপ্রিম কোর্টে একটি মামলা স্থানান্তরের আবেদন করা হয়েছে। সেই আবেদনের নিষ্পত্তি শীর্ষ আদালতে না হওয়া পর্যন্ত হাইকোর্টে পিছিয়ে দেওয়া হোক শুনানি। প্রসঙ্গত, নন্দীগ্রাম মামলা ছাড়ার জন্য বিচারপতি কৌশিক চন্দের বেঞ্চে আবেদন করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেই আবেদনের নিষ্পত্তি করতে গিয়ে একাধিক পর্যবেক্ষণ রাখেন বিচারপতি। বিচারের নামে একদল সুযোগসন্ধানীর আগমন নিয়ে কড়া পর্যবেক্ষণ রাখেন বিচারপতি চন্দ। এরপরই সুপ্রিম কোর্টে ট্রান্সফার পিটিশন ফাইল করেন শুভেন্দু অধিকারী। যুক্তি হিসেবে দেখান, হাইকোর্টের কোনও বেঞ্চেই নন্দীগ্রাম মামলার নিরপেক্ষ বিচার হবে না। যেভাবে একদল আইনজীবী হাইকোর্ট চত্বরে নন্দীগ্রাম ইলেকশন পিটিশন নিয়ে সরব হন তারও উল্লেখ করা হয় সুপ্রিম কোর্টে শুভেন্দু অধিকারী আবেদনে। শুভেন্দু অধিকারী আবেদন মেনে হাইকোর্ট ৩ মাস পরে রাখে নন্দীগ্রাম শুনানি৷ তবে সুপ্রিম কোর্টে শুভেন্দু অধিকারীর আবেদনের নিষ্পত্তি হতে কোনও আইনি অসুুবিধা নেই বলেও এদিন জানান বিচারপতি শম্পা সরকার।

পাশাপাশি জরিমানা নির্দেশ সংক্রান্ত বিষয়ে মামলাকারীকে নির্দেশ দিয়েছেন হলফনামা দেওয়ার। রাজ্যের মুখ্য নির্বাচনি আধিকারিককে মামলার হার্ড কপি ও জুলাই মাসের নির্দেশের কপি দেওয়ারও নির্দেশ দেওয়া হয় এদিন।নন্দীগ্রাম বিধানসভার ফলাফল চ্যালেঞ্জ করে করা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মামলা হাইকোর্টের কোন বেঞ্চে শুনানি হবে তা নিয়ে বিস্তর জলঘোলা হয়। প্রথমে মামলাটি যায় বিচারপতি সব্যসাচী ভট্টাচার্য বেঞ্চে। এরপর তা যায় বিচারপতি কৌশিক চন্দ বেঞ্চে। তারপর বিচারপতি শম্পা সরকার বেঞ্চে।

Published by:Suman Biswas
First published: