Home /News /kolkata /
Mukul Roy: বিধায়ক থাকতে পারবেন মুকুল রায়? সুপ্রিম নির্দেশে আশায় বুক বাঁধছে বিজেপি

Mukul Roy: বিধায়ক থাকতে পারবেন মুকুল রায়? সুপ্রিম নির্দেশে আশায় বুক বাঁধছে বিজেপি

বিধায়ক পদ রাখতে পারবেন মুকুল রায়?

বিধায়ক পদ রাখতে পারবেন মুকুল রায়?

বিজেপি-র টিকিটে কৃষ্ণনগর উত্তর কেন্দ্র থেকে বিধানসভা ভোটে জিতে বিধায়ক হয়েছিলেন মুকুল রায়। কিন্তু, শপথ নেওয়ার পর শিবির বদল করে নিজের পুরনো দল তৃণমূলে ফেরেন তিনি (Mukul Roy)।

  • Last Updated :
  • Share this:

#কলকাতা: মুকুল রায়ের (Mukul Roy) বিধায়ক পদ কি সত্যিই খারিজ হতে পারে? আজ সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশের পর, এ নিয়ে রাজ্য রাজনীতিতে জোর চর্চা শুরু হয়েছে। সুপ্রিম নির্দেশকে (Supreme Court Order on Mukul Roy) ঘিরে আশায় বুক বাঁধছে বিজেপি।

বিজেপি-র টিকিটে কৃষ্ণনগর উত্তর কেন্দ্র থেকে বিধানসভা ভোটে জিতে বিধায়ক হয়েছিলেন মুকুল রায়। কিন্তু, শপথ নেওয়ার পর শিবির বদল করে নিজের পুরনো দল তৃণমূলে ফেরেন তিনি। বিজেপি-র বিধায়ক হিসাবে মুকুল রায়কে বিধানসভার পাবলিক অ্যাকাউন্টস কমিটির চেয়ারম্যান করার পরেই তাঁর নিয়োগের বৈধতা নিয়ে প্রশ্ন তুলে স্পিকারের কাছে বিধায়ক পদ খারিজের দাবি জানায় বিজেপি৷

আরও পড়ুন: ডেমো'ই এমন! 'খেলা শুরু' হলে কী হবে? আশঙ্কায় দিলীপ ঘোষ

বিজেপি-র অভিযোগ নিয়ে শুনানি শুরু হলেও, শুরু থেকেই স্পিকারের শুনানিতে আস্থা রাখতে পারেননি বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী (Suvendu Adhikari)। বিষয়টি নিয়ে আদালতে যাওয়ার কথা ঘোষণা করেন তিনি।

শুভেন্দুর ঘোষণার পর তিন মাস পেরোতেই হাইকোর্টে মামলা করেন বিজেপি-র কল্যাণীর বিধায়ক আইনজীবি অম্বিকা রায়। মামলার রায়ে, বিধায়ক পদ খারিজের বিষয়টি অনির্দিষ্ট কাল ঝুলিয়ে রাখা যাবে না বলে স্পিকারকে জানিয়ে দেয় হাইকোর্ট। এর পরেই হাইকোর্টের রায়কে চ্যালেঞ্জ করে শীর্ষ আদালতে যান স্পিকার৷

আরও পড়ুন: গ্রুপ ডি নিয়োগে দুর্নীতির অভিযোগ, সিবিআই তদন্তের নির্দেশ দিল হাইকোর্ট

সম্প্রতি, বিধানসভার শুনানিতে বিজেপি-র আইনজীবিকে স্পিকার জানান, মুকুল রায়ের বিধায়ক পদ খারিজ সংক্রান্ত মামলা সুপ্রিম কোর্টে বিচারাধীন, শীর্ষ আদালতের রায় না পাওয়া পর্যন্ত এ নিয়ে কোনও পদক্ষেপ তিনি করবেন না। স্পিকারের এই মন্তব্যকে হাতিয়ার করেই আজ সুপ্রিম কোর্টে সওয়াল করে বিজেপি।

পর্যবেক্ষকদের মতে, শুনানিতে স্পিকারের এই মন্তব্য শুনেই রীতিমতো ক্ষুব্ধ হন বিচারপতি। এর পরেই রাজ্য বিধানসভার স্পিকারকে শুধু ভর্ৎসনাই নয়, আগামী বছর জানুয়ারির তৃতীয় সপ্তাহের মধ্যে বিষয়টি নিস্পত্তি করার নির্দেশ দেন তিনি। ২২ জানুয়ারী এই মামলার পরবর্তী শুনানির দিন ধার্য করেছে সুপ্রিম কোর্ট।

শীর্ষ আদালতের এই নির্দেশের বিষয়ে স্পিকার বিমান বন্দোপাধ্যায় বলেন, 'আমরা সুপ্রীম কোর্টের রায়কে মান্যতা দিয়েই চলব। আমরাও বিষয়টির নিষ্পত্তি চাই। রায়ের কপি হাতে পেলে ব্যবস্থা নেব।' একই সঙ্গে স্পিকার এ কথাও বলেন, বিধানসভায় এই বিষয়ের শুনানির নিয়ম মেনেই চলবে। বিধানসভায় মুকুলের বিধায়ক পদ খারিদ নিয়ে পরবর্তী শুনানির দিন ২২ ডিসেম্বর। আবার, বিজেপি-র অভিযোগের ভিত্তিতে সম্প্রতি বিধানসভায় মুকুল রায়কে ডেকে তাঁকে পিএসি-র চেয়ারম্যান হিসেবে বৈঠক করার নির্দেশ দেন স্পিকার।

বৈঠকের শেষে স্পিকার ও পরিষদীয় মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় জানান, 'মুকুল রায় সম্পূর্ণ সুস্থ। আগামী ২৬ নভেম্বর থেকে পিএসি-র বৈঠকে থাকবেন বলে মুকুল রায়।'

এ দিকে, মুকুল রায়ের শারীরিক পরিস্থিতির আবার আবনতি হয়েছে বলে তাঁর ঘনিষ্ঠরা জানিয়েছেন। সেই কারণেই আজ আবার তাঁকে বাইপাসের ধারে একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ফলে, এই পরিস্থিতিতে মুকুল রায় আদৌ বৈঠকে যোগ দেবেন কি না৷ তা নিয়ে সংশয় তৈরি হয়েছে। যদিও, সুপ্রিম কোর্টের রায়কে স্বাগত জানিয়ে বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী বলেছেন, তাণরা আশাবাদী, খুব তাড়াতাড়ি এই মামলায় সুবিচার পাবেন।

Published by:Debamoy Ghosh
First published:

Tags: BJP, Mukul roy, TMC