• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • SSC Group D Recruitment: গ্রুপ ডি নিয়োগে দুর্নীতির অভিযোগ, সিবিআই তদন্তের নির্দেশ দিল হাইকোর্ট

SSC Group D Recruitment: গ্রুপ ডি নিয়োগে দুর্নীতির অভিযোগ, সিবিআই তদন্তের নির্দেশ দিল হাইকোর্ট

কলকাতা হাইকোর্ট৷

কলকাতা হাইকোর্ট৷

২১ ডিসেম্বরের মধ্যে তদন্তের প্রাথমিক রিপোর্ট জমা দেওয়ারও নির্দেশ দিয়েছেন বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধায় (SSC Group D Recruitment)৷

  • Share this:

#কলকাতা: এসএসসি গ্রুপ  ডি নিয়োগে দুর্নীতির (SSC Group D Recruitment) অভিযোগ মামলায় সিবিআই (CBI) তদন্তের নির্দেশ দিল কলকাতা হাইকোর্ট৷ কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধায়৷ এ দিন এই নির্দেশ দিয়েছেন৷ ২১ ডিসেম্বরের মধ্যে তদন্তের প্রাথমিক রিপোর্ট জমা দেওয়ারও নির্দেশ দিয়েছেন বিচারপতি গঙ্গোপাধায়৷

যদিও এই নির্দেশকে চ্যালেঞ্জ করে ডিভিশন বেঞ্চে মামলা করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে রাজ্যের শিক্ষা দফতর৷ সিঙ্গল বেঞ্চের রায়ের কপি হাতে পেলেই ডিভিশন বেঞ্চে আবেদন জানানোর প্রস্তুতি নিতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে এসএসসি এবং মধ্যশিক্ষা পর্ষদকে৷

আরও পড়ুন: প্রচুর পদে নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি জারি ইন্ডিয়ান মিলিটারির, কী ভাবে আবেদন করবেন? জানুন...

হাইকোর্টের সামনে পঁচিশটি নিয়োগ নিয়ে দুর্নীতির অভিযোগ মামলাকারীদের তরফে হলফনামার সঙ্গে জমা দেওয়া হয়েছিল৷ পরে আরও ৫২৫টি নিয়োগকে ভুয়ো বলে দাবি করে মামলাকারীদের তরফে আদালতে তথ্যপ্রমাণ জমা দেওয়া হয়৷ এই নিয়োগগুলি ভুয়ো বলে মামলাকারীদের আইনজীবীর অভিযোগ ছিল৷

এসএসসি-র তরফে আদালতে দাবি করা হয়, ওই পঁচিশটি নিয়োগের জন্য তারা কোনও সুপারিশ করেনি৷ আবার এ দিন আদালতে হলফনামা দিয়ে মধ্যশিক্ষা পর্ষদের সভাপতি জানান, এসএসসি-র থেকে সুপারিশ পেয়েই উল্লিখিত সময়সীমার মধ্যে প্রায় ৯২৫টি নিয়োগ তারা করেছেন৷ সেই সমস্ত সুপারিশের নথি পর্ষদের কাছে রয়েছে বলেও হলফনামায় জানিয়ে দেন মধ্যশিক্ষা পর্ষদের সভাপতি কল্যাণময় গঙ্গোপাধ্যায়৷

আরও পড়ুন: শীঘ্রই এসএসসি-র মাধ্যমে রাজ্যে ১৫ হাজার শিক্ষক নিয়োগ হতে চলেছে, আশাবাদী শিক্ষামন্ত্রী!

পর্ষদের এই হলফনামা দেখেই বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধায় মন্তব্য করেন, এই সমস্ত নিয়োগের পিছনে কোনও অদৃশ্য হাত রয়েছে৷ যে রহস্য খুঁজে বের করার জন্য সিবিআই তদন্তের প্রয়োজন বলেও মন্তব্য করেন বিচারপতি৷ যদিও রাজ্যের অ্যাডভোকেট জেনারেলের তরফে রাজ্য সরকারি কোনও সংস্থা বা সিটকে দিয়েই তদন্তের আবেদন জানানো হয়েছিল৷ সেই আর্জি অবশ্য খারিজ করে দেয় আদালত৷

সিবিআই-এর ডিজি-কে দেওয়া নির্দেশে হাইকোর্ট জানিয়েছে, ডিআইজি পদমর্যাদার কোনও অফিসারকে দিয়েই তদন্ত করাতে হবে৷ মামলাকারীদের তরফে আইনজীবী বিকাশরঞ্জন ভট্টাচার্য বলেন, 'রাজ্য সরকারের দু'টি দফতর৷ দু' টিই শিক্ষা দফতরের অধীনে৷ অথচ তারা পরস্পরের বিরুদ্ধে অভিযোগ করছে৷ তাই আদালত মনে করেছে যে এ ক্ষেত্রে রাজ্য সরকারি কোনও সংস্থাকে তদন্তের দায়িত্ব দিলে প্রকৃত সত্য সামনে আসবে না৷ তাই সিবিআই-কে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে৷'

Published by:Debamoy Ghosh
First published: