মাছ বা ডিম ভাত নয়, বিজেপির মিছিলে খিচুড়ি, এর পিছনে কাজ করছে কোন রাজনীতি?

মাছ বা ডিম ভাত নয়, বিজেপির মিছিলে খিচুড়ি, এর পিছনে কাজ করছে কোন রাজনীতি?

২০২১- এর লক্ষ্যে খাবারেও কি তাহলে হিন্দুত্ববাদী ভাবনা উসকে দিতে চাইছে বিজেপি? কথায়-খানায় প্রশ্নটা উঠে গেল রোববারের কলকাতায়।

  • Share this:

#কলকাতা: ডিম-ভাত নয়। মাছে-ভাতে বাঙালিও নয়। গেরুয়া শিবিরের ভোজ সাদামাটা খিচুড়িতে। আমিষ নয়, শাহের সমাবেশে নিরামিষ খিচুড়িতেই শাহি খানা। খাবারেও কি রাজনৈতিক ভাবনার ছাপ? বিজেপি কর্মী-সমর্থকরা অকপট, রামের শিষ্যদের জন্য নিরামিষই সেরা। চালে-ডালে গরম গরম খিচুড়ি ৷ কলকাতায় অমিত শাহের  সমাবেশ। সকাল সকাল কর্মীদের নিরামিষ খিচুড়ি ভোজ ৷ পাত পড়তে না পড়তেই, চেটেপুটে সাফ ৷ বছরের পর বছর, বামেদের ব্রিগেডে দেখা যেত মাছ-ভাত। কখনও মাংস। সমর্থকরাই রেঁধেবেড়ে খেতেন। বামেদের মাছভাতের রীতি পিছনে ফেলে ২১ জুলাই তৃণমূলের সমাবেশের সঙ্গে জুড়ে গিয়েছে ডিম ভাত ৷ গেরুয়া শিবিরের কিন্তু নিরামিষেই ভরসা ৷ ক্যামেরার সামনে নেতাদের ব্যাখ্যা অবশ্য একটু আলাদা। বিজেপি নেতা সায়ন্তন বসুর কথায়, ‘বিজেপি কর্মীদের জন্য খিচুড়ি ভোজ ৷ আম-আদমির খাবার খিচুড়ি ৷ কম পয়সায় সর্বগুণসম্পন্ন খাবার ৷ পুষ্টিগুণের জন্যই খিচুড়ির ব্যবস্থা ৷’

বাম মিছিলে মাছ-ভাত,তৃণমূলের ডিম-ভাত ৷ এবার বিজেপির মিছিলে খিচুড়ি ৷ মুখে রামনাম আর পাতে খিচুড়ি। ২০২১- এর লক্ষ্যে খাবারেও কি তাহলে হিন্দুত্ববাদী ভাবনা উসকে দিতে চাইছে বিজেপি?  কথায়-খানায় প্রশ্নটা উঠে গেল রোববারের কলকাতায়।

First published: March 1, 2020, 2:45 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर