• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • KOLKATA METRO RAILWAYS NON AC RECK WILL STOP WORKING BUT IT WILL BE USED IN SOME OTHER WORK OF METRO RAIL PBD

Kolkata Metro Rail: আর চলবে না মেট্রোর নন এসি রেক! পরিষেবা থেকে বিদায় নিলেও, এখনই মিলবে না ছুটি

৩৭ বছর পরে বন্ধ হবে যাত্রী নিয়ে দৌড়। তবে মাঝে মধ্যেই এমারজেন্সি ডিউটিতে বেরোতে হবে কলকাতার (Kolkata first Metro Reck) প্রথম মেট্রোকে।

৩৭ বছর পরে বন্ধ হবে যাত্রী নিয়ে দৌড়। তবে মাঝে মধ্যেই এমারজেন্সি ডিউটিতে বেরোতে হবে কলকাতার (Kolkata first Metro Reck) প্রথম মেট্রোকে।

  • Share this:

#কলকাতা: এটা অনেকটাই সেই হারাধনের ১০টি ছেলের মতো। ছিল পাড়াময়। একটা কোথায় হারিয়ে গেল......এখানে অবশ্য হারাধনের ছেলে নয়। এটা নস্ট্যালজিয়া, এটা স্মৃতি, এটা অনেক ভালোবাসা, রাগ আর দুঃখের গল্প। যা শুরু হয়েছিল ১৯৮৪ সালের ২৪ অক্টোবর। সেটাও ছিল এক উৎসবের মুহূর্ত। আর সেই ইতিহাস শেষ হল আরও এক উৎসবের মুহূর্ত শুরুর সময়৷ আপাতত রোজনামচা আর যাত্রী বহনের সব রেকর্ড ছেড়ে ইতিহাসের পাতায় কলকাতার নন এসি মেট্রো রেক (Kolkata Metro Non AC Reck)।

কখনও আকাশি-নীল, কখনও হলুদ-লাল, কখনও আবার সাদা-কালো রঙের মেট্রোরেল (Kolkata Metro Railways)। যা ছিলে দেশের মধ্যে প্রথম ভূগর্ভস্থ মেট্রো। প্রথম দফায় চেন্নাই থেকে কলকাতায় এসেছিল ৯টি নন এসি রেক। নব্বইয়ের মাঝামাঝি এসে পৌঁছয় আরও ৯টি নন এসি রেক। সেই চেন্নাই থেকেই। তারাই ২০১২ সাল অবধি প্রতিদিন কয়েক লক্ষ যাত্রী বহন করত দমদম থেকে কবি সুভাষ অবধি৷ অবশ্য ২০১২ সালে যাত্রী চাহিদা মেনেই ধীরে ধীরে কলকাতার লাইফ লাইনে প্রবেশ ঘটে এসি মেট্রো রেকের। আর তাদের পরিষেবায় ধীরে ধীরে নোয়াপাড়া কারশেডের সাইড লাইনে চলে যায় নন এসি মেট্রো রেক।

আরও পড়ুন Chinese Kali Temple in Kolkata: কালী মন্দিরের প্রসাদে চাউমিন, কলকাতাতেই রয়েছে চাইনিজ কালীবাড়ি, জানুন কোথায়

নিয়মানুযায়ী একটি মেট্রো রেকের  কোডাল লাইফ হয় ২৫ বছর। তবে ঘন ঘন মেট্রো চালাতে গিয়ে ২৫ বছর অনেকটা লম্বা ইনিংস হয়ে যায়। ফলে ২০০৯ থেকে ২০১২ সবটাই ছিল অবসর নেওয়ার সঠিক সময়। কিন্তু যাত্রী সংখ্যার চাপে পড়ে মাঝে মধ্যেই সুড়ঙ্গ জুড়ে দাপিয়ে বেড়িয়েছে নন এসি মেট্রো রেক। এখন অবশ্য সবটাই অতীত। আগামী মাসে ফেয়ারওয়েল দেওয়া হবে নন এসি মেট্রো রেককে৷ তবে চাকরি থেকে অবসর নিলেও, ছুটি মিলছে না নন এসি মেট্রো রেকের। কারণ মাঝে মধ্যেই এমারজেন্সি ডিউটিতে বেরোতে হবে কলকাতার প্রথম মেট্রোকে। রাতের বেলা লাইন পরীক্ষা, স্টাফ স্পেশাল, সিগন্যাল চেকিং, নয়া লাইনে দৌড়ানো প্রথম বার সবটাই সারবে সেই নন এসি মেট্রো রেক। তবে বয়সের ভারে অনেকেই অসুস্থ হয়ে পড়েছে। নড়ন চড়ন করার ক্ষমতা আর নেই তাদের। আর তাদেরকেই অযোগ্য বলে ঘোষণা করা হবে খাতায় কলমে। তারপর সেগুলি কেটে ফেলা হবে৷ শখ করে কেউ কেউ অবশ্য কামরা রেখেও দিতে পারেন।

আপাতত সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে মেট্রোর ২২টি এসি রেক দক্ষিণেশ্বর থেকে কবি সুভাষ অবধি দৌড়বে। ধাপে ধাপে বাড়ানো হবে এসি রেকের সংখ্যাও। কলকাতায় প্রথম মেট্রো চালু হলেও, যে সব শহরে মেট্রো পরে চালু হয় তারা এসি রেক চালাত। একমাত্র কলকাতায় চলত নন এসি মেট্রো। মেয়াদ ফুরানো রেকের যন্ত্রাংশ বদলেও চালানোর নজির ছিল। আপাতত মেট্রো আর নন এসি মেট্রো যে চালাবে না তা জানিয়ে দিয়েছেন কলকাতা মেট্রো রেলের জেনারেল ম্যানেজার। প্রথম যে রেক কলকাতায় চলেছিল তার কামরা অবশ্য হাওড়া রেল মিউজিয়ামে এখন রাখা আছে। বাকি নন এসি রেক রাখা আছে নোয়াপাড়া কারশেডে। আপাতত সেখানেই থাকবে কলকাতার পাতাল রেলের ইতিহাস।

Published by:Pooja Basu
First published: