• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • ওড়ার অপেক্ষায় পূর্ব ভারতের প্রথম এয়ার অ্যাম্বুল্যান্স, নিমেষে রোগী পৌঁছবে দেশের যে কোনও প্রান্তে

ওড়ার অপেক্ষায় পূর্ব ভারতের প্রথম এয়ার অ্যাম্বুল্যান্স, নিমেষে রোগী পৌঁছবে দেশের যে কোনও প্রান্তে

এয়ারপোর্ট থাকলেই হল, ছোট হোক বা বড়, এয়ার অ্যাম্বুল্যান্স রোগীকে পৌঁছে দেবে  নির্দিষ্ট গন্তব্যে।

এয়ারপোর্ট থাকলেই হল, ছোট হোক বা বড়, এয়ার অ্যাম্বুল্যান্স রোগীকে পৌঁছে দেবে নির্দিষ্ট গন্তব্যে।

এয়ারপোর্ট থাকলেই হল, ছোট হোক বা বড়, এয়ার অ্যাম্বুল্যান্স রোগীকে পৌঁছে দেবে নির্দিষ্ট গন্তব্যে।

  • Share this:

#কলকাতা: অত্যাধুনিক প্রযুক্তি, ভেন্টিলেটর পরিষেবা-সহ অ্যাম্বুল্যান্স। আর সেই অ্যাম্বুল্যান্স আপনাকে নিমেষে চিকিৎসার জন্য পৌঁছে দেবে চেন্নাই, দিল্লি, বেঙ্গালুরু  কিংবা মুম্বইয়ে। এয়ার অ্যাম্বুল্যান্সের এমন পরিষেবা এ দেশে নতুন নয়। কিন্তু পূর্ব ভারতে এই পরিষেবা এতদিন ছিল না। এবার তা আসতে চলেছে ক্যাট্রিওনা ট্রাভেলস এবং সানবার্ড এয়ার চার্টার সার্ভিসের যৌথ উদ্যোগে। উদ্যোক্তারা বলছেন, এয়ারপোর্ট থাকলেই হল, তা সে ছোট হোক বা বড়, এয়ার অ্যাম্বুল্যান্স রোগীকে পৌঁছে দেবে  নির্দিষ্ট গন্তব্যে।

শুধু পৌঁছে দিলেই তো হবে না, অসুস্থ রোগীকে নিয়ে যাওয়ার সময়ে যে কোনও পরিস্থিতিতে রোগীর প্রাণ বাঁচিয়ে রাখার মতো যাবতীয় ব্যবস্থা থাকছে ওই অ্যাম্বুল্যান্সে। প্রয়োজনে ভেন্টিলেশন সাপোর্টেও নিয়ে যাওয়া যাবে রোগীকে। ৯ আসন বিশিষ্ট ওই এয়ার অ্যাম্বুল্যান্সের প্রতিটা চেয়ারই বিশেষ নকশায় বানানো। প্রয়োজনে চেয়ারগুলি ১৮০ ডিগ্রি হেলিয়ে বানিয়ে নেওয়া যাবে বেড।

অ্যাম্বুল্যান্স পরিষেবা প্রদানকারী সংস্থার অন্যতম উদ্যোক্তা বিকাশ সেন বলেন, "পূর্ব ভারতে এয়ার অ্যাম্বুল্যান্স পরিষেবা ছিল না। করোনা পরিস্থিতি আমাদের চোখ খুলে দিয়েছে। এই ধরনের পরিষেবা না থাকলে মানুষের ভোগান্তি অনেকটাই বাড়বে। তাই এই পরিস্থিতিতে অ্যাম্বুল্যান্স চালু করাটা খুবই প্রয়োজন বলে মনে হয়েছে।"

আর ঠিক দু'মাসের অপেক্ষা। তার মধ্যেই শুরু হয়ে যাবে পরিষেবা। বিকাশ সেন বলেন, "আমাদের মতো সাধারণ মানুষেরা যাতে এই পরিষেবার সুবিধে নিতে পারেন, সে জন্যই এই ব্যবস্থা।"

তবে শুধু অ্যাম্বুল্যান্স হিসেবেই নয়, প্রয়োজনে চার্টার্ড বিমান হিসেবেও ব্যবহার করা যাবে এই বিমান। উদ্যোক্তা বলেন, "জরুরি ভিত্তিতে অনেককেই দ্রুত রাজ্যের বাইরে যেতে হয়। তাতে যদি কেউ প্রয়োজন মনে করেন, তিনিও এই বিমান ব্যবহার করতে পারবেন। শুধু গন্তব্যস্থলে বিমানবন্দর থাকলেই তাঁকে বা তাঁদের পৌঁছে দেওয়া যাবে।"

SHALINI DATTA

Published by:Shubhagata Dey
First published: