Home /News /kolkata /
Cyclone Asani Update|| 'অশনি' নিয়ে সতর্ক কলকাতা পুরসভা, বিপর্যয় মোকাবিলায় কী কী উদ্যোগ নেওয়া হল?

Cyclone Asani Update|| 'অশনি' নিয়ে সতর্ক কলকাতা পুরসভা, বিপর্যয় মোকাবিলায় কী কী উদ্যোগ নেওয়া হল?

Cyclone Alert, KMC Precautionary Measures: কলকাতা পুরসভার উদ্যান বিভাগ, কঠিন বর্জ্য ব্যবস্থাপনা বিভাগ, আলো বিভাগ, নিকাশি বিভাগ এবং বিপর্যয় মোকাবিলা বিভাগের কর্মীদের ১০-১২ মে পর্যন্ত সব ছুটি বাতিল করা হল।

  • Share this:

#কলকাতা: অশনি ঘূর্ণিঝড়ের কথা মাথায় রেখে কলকাতা পুরসভার উদ্যান বিভাগ, কঠিন বর্জ্য ব্যবস্থাপনা বিভাগ, আলো বিভাগ, নিকাশি বিভাগ এবং বিপর্যয় মোকাবিলা বিভাগের কর্মীদের ১০-১২ মে পর্যন্ত সব ছুটি বাতিল করা হল। কলকাতা পুরসভার তরফে ইতিমধ্যেই এ ব্যাপারে বিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়েছে। বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়েছে, সবকটি বিভাগ এবং বরোগুলিতে সংশ্লিষ্ট বিভাগের কর্মীরা ঘূর্ণিঝড় মোকাবিলায় যাবতীয় প্রস্তুতি দ্রুত সেরে ফেলতে হবে। আমফানের সময় যেভাবে সমন্বয় রেখে পরিস্থিতি সামলানো হয়েছিল, সেভাবেই এই ঘূর্ণিঝড়ের প্রস্তুতি এবং মোকাবিলা করতে হবে।

এ ছাড়াও তিনি উল্লেখ করেছেন, রাজ্য সরকারের সেচ দফতর এবং বিপর্যয় মোকাবিলা দফতরের সঙ্গে প্রতিটি ক্ষণে সমন্বয় সাধন করে চলতে হবে পুরসভার কর্মীদের। জোয়ার এবং ভাটা পরিস্থিতির সময় গঙ্গার গেট খোলা, খালগুলি দিয়ে জল নিষ্কাশন সবকিছুই সমন্বয় রেখে এই সুষ্ঠুভাবে কাজ সম্পাদন করার নির্দেশ দিয়েছেন পুরসভার কমিশনার। পুরসভার উদ্যান বিভাগের ডিজি এবং সিভিল বিভাগের ডিজিকে বিশেষ নির্দেশ দিয়েছেন পুরসভার কমিশনার। প্রতিটি বরোতে একটি করে টিম তৈরি রাখতে হবে। বিশেষ করে উদ্যান বিভাগের কাজ করা লোকজনকে নিয়ে টিম সর্বদা প্রস্তুত রাখতে নির্দেশ দিয়েছেন তিনি।

আরও পড়ুন: শক্তি বাড়াচ্ছে 'অশনি', বিপর্যয় মোকাবিলায় কলকাতা-হাওড়ায় কন্ট্রোলরুম, জানুন নম্বর...

গাছ ভেঙে পড়লে তা দ্রুত কেটে ফেলার বা সরিয়ে ফেলার জন্য হাইড্রোলিক ল্যাডার, কাটিং মেশিন-সহ একাধিক যন্ত্রপাতি ইতিমধ্যেই পুরসভার সদর দফতর এবং বরোগুলিতে মোতায়েনের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। পুরসভার আলো বিভাগের ডিজিকে ইতিমধ্যেই একাধিক গুরুত্বপূর্ণ নির্দেশ দিয়েছেন কমিশনার। যার মধ্যে উল্লেখযোগ্য, বরো ভিত্তিক এলাকাগুলিতে তাঁর বিভাগের কর্মীরা রাস্তায় নেমে যাতে দেখে নেন, কোথাও বাতিস্তম্ভের তার ঝুলে রয়েছে কিনা, ফিডার বক্সের দরজা ভাঙা কিনা, রাস্তার ধারে ছোট ছোট বাতিস্তম্ভ গুলির বিদ্যুতের বক্স থেকে তার বেরিয়ে এসেছে কিনা, এই ধরনের বিষয়গুলি সহ একাধিক গুরুত্বপূর্ণ ক্ষেত্রগুলিতে নজর দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

আরও পড়ুন: 'অশনি'-র জেরে ভাসতে পারে শহর! সব কর্মীর ছুটি বাতিল কলকাতা পুরসভার

জল জমলে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মৃত্যুর ঘটনা ঘটে। এই ঘটনাগুলি যাতে এবার না হয় তার জন্য বিশেষত ভাবে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে ডিজিকে। জল সরবরাহ প্রকল্পগুলিতে বিদ্যুৎ সরবরাহ যাতে বিচ্ছিন্ন না হয় তার জন্য ডিজিকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। জল সরবরাহ বিভাগের ডিজি এবং আলো বিভাগের ডিজি এ ব্যাপারে সমন্বয় রেখে কাজ করবেন বলে বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে। কোনওভাবেই যাতে বিদ্যুৎ বিভ্রাট হয়ে কলকাতায় জল সরবরাহ বন্ধ না হয়ে যায় তার জন্য আগাম প্রস্তুতি নেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। প্রতিটি জলপ্রকল্প এবং পাম্পিং স্টেশনের প্রয়োজনীয় জেনারেটর রাখতে বলা হয়েছে।

জল-সরবরাহ বিভাগের ডিজিকে বলা হয়েছে, যে রাস্তায় জলমগ্ন হয়, সেখানকার রাস্তার ধারের কলগুলি জলের তলায় চলে যায়। তাতে জলদূষণ ঘটনা ঘটে। সেগুলি আটকাতে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ করতে হবে। টালিনালা বিভাগের ডিজিকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে, সংশ্লিষ্ট নালা থেকে যাতে জল দ্রুত নিষ্কাশিত হয় তাই সেখানকার নিকাশির জল নিষ্কাশনের গেটগুলি কী অবস্থায় রয়েছে তা ভালোভাবে খতিয়ে দেখতে হবে। কেইআইআইপি বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত ডিজিকে আবার বডিগার্ড লাইন এবং বেহালায় যাতে জল দ্রুত নিষ্কাশন হয়ে যায় তার জন্য আগাম ব্যবস্থা রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

বেহালা এবং বডিগার্ড লাইনের জল জমা নিয়ে রীতিমতো দিশেহারা কলকাতা পুরসভা। সূত্রের খবর, বিষয়টি নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীও অত্যন্ত ক্ষুব্ধ। সম্প্রতি নবান্নে এক বৈঠকে কলকাতা পৌরসভার মেয়র ফিরহাদ হাকিমকে এ ব্যাপারে দ্রুত পদক্ষেপ করার নির্দেশ দেন তিনি। কেন জল দিনের-পর-দিন জমে থাকে তা নিয়ে মেয়রকে তৎপর হওয়ার নির্দেশ দেন মুখ্যমন্ত্রী। কঠিন বর্জ্য ব্যবস্থাপনা বিভাগের ডিজিকে প্রয়োজনীয় লোক প্রতিটি জায়গায় মোতায়েনের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। আবর্জনা জমে যাতে জল নিষ্কাশন এর কোন অসুবিধা না হয় তার জন্য সঠিক দেখভালের জন্য বলা হয়েছে। ঝড়ে বা তুমুল বৃষ্টিতে কলকাতা শহরে বাড়ি ভেঙে পড়ে একের পর এক। বাড়ি ভেঙে পড়লে সেই ধ্বংসস্তূপ থেকে উদ্ধার করা এবং ধ্বংসস্তূপের আবর্জনাকে যাতে দ্রুত সরানো হয় তার জন্য ২৪ ঘন্টা বিশেষ দল এবং পর্যবেক্ষণের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বিল্ডিং বিভাগের ডিজিকে।

কলকাতা পুরসভার সচিবকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে কন্ট্রোল রুম প্রতিটি সময় সঠিক নজরদারির জন্য। কলকাতা পুরসভার কমিশনার জানিয়েছেন, মুখ্যমন্ত্রী এবং মুখ্য সচিবের নির্দেশে কলকাতা পুরসভা আগাম প্রস্তুতি সেরে ফেলেছে। বিপর্যয়ের মাত্রা অনুযায়ী পরিস্থিতির মোকাবেলা করা হবে। তবে প্রতিটি বিষয়ে তাদের টিম তৈরি রয়েছে।

UJJAL ROY

Published by:Shubhagata Dey
First published:

Tags: Cyclone Alert, KMC

পরবর্তী খবর