• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • Firecracker in West Bengal: হাইকোর্টে বহাল সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ, বাংলার বাজিপ্রেমীদের জন্য বড় সুখবর

Firecracker in West Bengal: হাইকোর্টে বহাল সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ, বাংলার বাজিপ্রেমীদের জন্য বড় সুখবর

বাজিপ্রেমীদের স্বস্তি

বাজিপ্রেমীদের স্বস্তি

Firecracker in West Bengal: মঙ্গলবার ফের কলকাতা হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয়েছিলেন মামলাকারী ৷ সেই মামলাতেই বুধবার বাজিপ্রেমীদের স্বস্তি দিল কলকাতা হাইকোর্ট।

  • Share this:

    #কলকাতা: অবশেষে কাটল জট। এবার দীপাবলি-সহ বছরের অন্য উৎসবগুলিতে কি বাজির ব্যবহার নিষিদ্ধ থাকবে বাংলায় (Firecracker in West Bengal), এই প্রশ্নের উত্তর পেতে মুখিয়ে ছিলেন বাজিপ্রেমীরা। এতদিন আইনের আবর্তে ঘুরেই চলছিল এই ফয়সালা ৷ এই নিয়ে মঙ্গলবার ফের কলকাতা হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয়েছিলেন মামলাকারী ৷ সেই মামলাতেই বুধবার বাজিপ্রেমীদের স্বস্তি দিল কলকাতা হাইকোর্ট।

    আসন্ন কালীপুজো , দীপাবলি, জগদ্ধাত্রী পুজো সহ সমস্ত উৎসবে বাজি ফাটানোর ক্ষেত্রে গত ২৯ অক্টোবর কলকাতা হাইকোর্ট (Calcutta High Court) সব ধরনের বাজি ফাটানো বন্ধের নির্দেশ দিয়েছিল। কিন্তু সেই নির্দেশ সোমবার খারিজ করে দিয়ে সুপ্রিম কোর্ট (Supreme Court) পরিবেশ বান্ধব বাজি ব্যবহারে অনুমতি দেয়। তবে, পরিকাঠামোগত সমস্যা ও অন্যান্য বিষয় নিয়ে প্রয়োজনে কলকাতা হাইকোর্টে আবেদন করা যাবে বলেও নির্দেশে উল্লেখ করেছিল সুপ্রিম কোর্ট। সেই প্রেক্ষিতেই হাইকোর্টে ফের আবেদন জানিয়েছিলেন মামলাকারী। কিন্তু সেই আবেদন খারিজ করে সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশকেই বহাল রাখল হাইকোর্ট। একইসঙ্গে সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ যাতে মানা হয়, তা দেখার জন্য দূষণ নিয়ন্ত্রণ পর্ষদকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। চার সপ্তাহ পর এ বিষয়ে হলফনামা জমা দেওয়ারও কথা জানানো হয়েছে।

    আরও পড়ুন: 'শুনে নিন...', ফের বিস্ফোরক তথাগত রায়! হারের ক্ষতের মাঝেই বড় বিড়ম্বনা BJP-র

    আরও পড়ুন: BJP-তে 'ফর্মে' ফিরছেন তথাগত রায়? রাজীবের দলবদলেও বিস্ফোরক ট্যুইট! নিশানায় কে?

    বাজি ফাটানোয় হাইকোর্ট যে পুরোপুরি নিষেধাজ্ঞা জারি করেছিল, তা খারিজ করে পরিবেশবান্ধব বাজি ফাটানোয় অনুমতি দিয়েছিল সুপ্রিম কোর্ট। পাশাপাশি, রাজ্য সরকারকে কড়া নির্দেশ দিয়ে সুপ্রিম কোর্ট বলেছিল, 'রাজ্যের বাইরে থেকে নিষিদ্ধ বাজি যেন না আসে এবং বাজারে যেন বিক্রি না হয় নিষিদ্ধ বাজি'। সেই বিষয়গুলিও দেখার জন্য এদিন হাইকোর্টের নির্দেশে কড়াভাবেই উল্লেখ করা হয়েছে। এদিন হাইকোর্টে মুচলেকাও দেন বাজি ব্যবসীয়রা। সেখানে উল্লেখ করা হয়, নির্দেশ মতো পরিবেশবান্ধব বাজিই বিক্রি করা হবে। অন্য কোনও বাজি বিক্রি করা হবে না।

    আরও পড়ুন: উপনির্বাচনে শূন্য, পুরনির্বাচনে খাতা খোলা যাবে? উত্তর ফেরালেন দিলীপ ঘোষ

    মঙ্গলবার হাইকোর্টের বিচারপতি রাজাশেখর মান্থার ডিভিশন বেঞ্চের দৃষ্টি আকর্ষণ করে মামলাকারী পুনরায় আর্জি জানিয়েছিলেন, হাসপাতালের কাছে বা লোকালয়ের কাছে বাজি ফাটানো যাবে না। পাশাপাশি পেসো অর্থাৎ পেট্রোলিয়াম অ্যান্ড এক্সপ্লোসিভ সেফটি অর্গানাইজেশনের ট্যাগ ছাড়াও কোনও বাজি বিক্রি করা যাবে না, এই মর্মেও আবেদন করা হয়েছিল। তবে, হাইকোর্ট এদিন সুপ্রিম কোর্টেরই নির্দেশ বহাল রেখেছে।

    Published by:Suman Biswas
    First published: