কুমারগঞ্জের কিশোরীর ধর্ষণ সহ রাজ্যে নারী নিগ্রহের বিভিন্ন ঘটনার প্রতিবাদে বিজেপির মিছিল

কুমারগঞ্জের কিশোরীর ধর্ষণ সহ রাজ্যে নারী নিগ্রহের বিভিন্ন ঘটনার প্রতিবাদে বিজেপির মিছিল

কুমারগঞ্জে গণধর্ষণ ও খুন এবং রাজ্যে নারী নির্যাতনের প্রতিবাদে বিজেপির মিছিল শুরু হয় নন্দনের সামনে থেকে।

  • Share this:

 ARUP DUTTA

#কলকাতা: সিএএ থেকে জেএনইউ নিয়ে যখন ফুঁসছে বাংলা, তখন, কুমারগঞ্জের কিশোরীর ধর্ষণ সহ রাজ্যে নারী নিগ্রহের প্রতিবাদে রবীন্দ্রসদন এলাকায় মিছিল করল বিজেপি। মিছিলের অনুমতি আদায় করতে শেষ পর্যন্ত আদালত পর্যন্ত যেতে হয় বিজেপিকে।

হাইকোর্টের নির্দেশে রুট বদলে বিজেপির মিছিল। কুমারগঞ্জে গণধর্ষণ ও খুন এবং রাজ্যে নারী নির্যাতনের প্রতিবাদে বিজেপির মিছিল শুরু হয় নন্দনের সামনে থেকে।  বেলা বারোটায় মিছিল শুরু হওয়ার কথা থাকলেও পুলিশ অনুমতি দেয়নি। মিছিলের অনুমতি পেতে হাইকোর্টে যায় বিজেপি। ৩ টে থেকে সাড়ে ৪ টের মধ্যে মিছিল শেষ করার অনুমতি দেয়। নন্দন থেকে এক্সাইড মোড় হয়ে বিড়লা প্ল্যানেটোরিয়াম, সেন্ট ক্যাথিড্রাল চার্চ হয়ে নন্দনেই শেষ হয় মিছিল। এর আগে, পুলিশ অনুমতি না দিলেও, মিছিল করার চেষ্টায় বেশ কয়েকজনকে গ্রেফতারও করা হয়।

মিছিলে যোগ দিয়ে তা নিয়েই ক্ষোভ উগরে দেন বিজেপি সাংসদ ও মহিলা মোর্চার রাজ্য সভাপতি লকেট চট্টোপাধ্যায়। রাজ্যে ধর্ষণ ও নারী নিগ্রহের ঘটনায় উদ্বেগ জানিয়ে লকেট বলেন,''  সিএএ থেকে শুরু করে জে এন ইউ এর ছাত্রী নিগ্রহের ঘটনায় দেশজুড়ে প্রতিবাদ হচ্ছে ৷ হায়দারাবাদের ধর্ষণের ঘটনা থেকে নির্ভয়া কান্ড নিয়ে শহরের রাজপথে মিছিল হয়। কিন্তু, রাজ্যে প্রতিদিন ঘটে চলা ধর্ষণ নিয়ে এ রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর কোন হেলদোল নেই। "

নন্দন থেকে হাজরা পর্যন্ত  মিছিল করার জন্য পুলিশের কাছে অনুমতি চেয়েছিল বিজেপি। কিন্তু, অনুমতি না মেলায়, দাবি আদায় করতে তারা আদালতে যায়। শুক্রবার আদালতে সরকারের তরফে জানানো হয়  যদুবাবুর বাজারের কাছে এস ইউসি-র একটি পূর্বনির্ধারিত কর্মসূচিতে পুলিশ আগেই অনুমোদন দেওয়ায়, একই রাস্তায় তারা অনুমতি দিতে পারবে না। তখন, আদালত বিজেপিকে তাদের কর্মসূচি আজকের বদলে অন্যদিন করতে বলে। কিন্তু, বিজেপি এদিনই তাদের মিছিল করতে জেদ ধরায়, মিছিলের রাস্তা বদলে অনুমতি দেয় পুলিশ। শেষ পর্যন্ত বিজেপি নন্দন চত্বর থেকে বিড়লা তারামন্ডল এলাকায় দেড় ঘন্টার জন্য মিছিল করার অনুমতি পায়।

এদিকে, আদালতে এই অনুমতি পাবার আগেই মিছিলের জন্য নন্দন এলাকায় বিজেপির কর্মী সমর্থকরা জমায়েত শুরু করেছিল। আচমকা পুলিশ তাদের গ্রেফতার করলে সাময়িক ভাবে এলাকায় উত্তেজনা দেখা দেয়। তবে, এরই মধ্যে শর্ত স্বাপেক্ষে আদালতের অনুমতি মেলায় সেই উত্তেজনা স্থায়ী হয়নি। মিছিলে লকেট ছাড়াও অগ্নিমিত্রা পল, বিজেপি যুব মোর্চার রাজ্য সভাপতি দেবজিৎ সরকার, রাজ্য সম্পাদক রাজু বন্দ্যোপাধ্যায় সহ বিজেপির রাজ্য ও জেলা নেতারা উপস্থিত ছিলেন। মূলত, কলকাতা ও হাওড়া জেলা থেকেই কর্মী, সমর্থকরা মিছিলে যোগ দেন।

First published: 09:52:19 PM Jan 10, 2020
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर