Home /News /kolkata /

Bangla News: অমিতাভ বচ্চনের জনপ্রিয় অনুষ্ঠানের নাম করে প্রতারণার ফাঁদ! নেপথ্যে কি জামতাড়া গ্যাং?

Bangla News: অমিতাভ বচ্চনের জনপ্রিয় অনুষ্ঠানের নাম করে প্রতারণার ফাঁদ! নেপথ্যে কি জামতাড়া গ্যাং?

এ ভাবেই চলছে অনলাইনে প্রতারণা

এ ভাবেই চলছে অনলাইনে প্রতারণা

Online Fraud Case with WhatsApp Number: আপনার হোয়াটসঅ্যাপে আসেনি তো এই ধরনের কোনও অডিও বার্তা? সাবধান। সক্রিয় আন্তঃরাজ্য বড়সড় প্রতারণা চক্র।

  • Share this:

কলকাতা: দিন দিন যত আধুনিক হচ্ছে ইন্টারনেট প্রযুক্তি, ততোই জাল ছড়াচ্ছে সাইবার প্রতারণা। আবারও সামনে এল নতুন ধরনের প্রতারণার ফাঁদ। তদন্তে  গোয়েন্দারা (Bangla News)।

'নমস্কার। কৌন বনেগা ক্রোড়পতি (Kaun Banega Crorepati) থেকে ফোন করছি। সারা ভারতে হোয়াটসঅ্যাপ নম্বরের লটারি করানো হয়। তাতে আপনার নম্বর উঠে এসেছে। আপনার হোয়াটসঅ্যাপ নম্বর ২৫ লাখ টাকার লটারি জিতেছে।’ এই অডিও বার্তাই পৌঁছে যাচ্ছে গ্রাহকদের ফোনে।

আরও পড়ুন-একদিনে ৯০০ পুরুষের সঙ্গে যৌনসংসর্গ; বিশ্বরেকর্ড গড়ে মহিলার দাবি ব্যাপারটা 'বোরিং'!

সাবধান! আপনার হোয়াটসঅ্যাপ নম্বরে (WhatsApp Number) এই ধরনের বার্তা আসেনি তো?  তাহলে জেনে রাখুন। এটা প্রতারণার ফাঁদ।

কীভাবে প্রতারণা?

হোয়াটসঅ্যাপে আচমকা আসছে একটি অডিও ক্লিপ। বলা হচ্ছে, অমিতাভ বচ্চনের জনপ্রিয় একটি অনুষ্ঠানের নাম। তারপর বলা হচ্ছে, সংশ্লিষ্ট গ্রাহকের নম্বর লটারিতে উঠেছে, তিনি নাকি ২৫ লক্ষ টাকা জিতেছেন। টাকা পেতে যোগাযোগ করতে হবে রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কের ম্যানেজারের হোয়াটসঅ্যাপ নম্বরে। শুধুমাত্র ভয়েস কলের মাধ্যমেই সেই ম্যানেজারের থেকে জেনে নিতে হবে টাকা পাওয়ার পরবর্তী ধাপ। তার আগে জমা দিতে হবে ট্যাক্স বাবদ ১২,১০০ টাকা। রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কের ম্যানেজার উল্লেখ করে ছবি ও হোয়াটস অ্যাপ নম্বর দেওয়া হচ্ছে গ্রাহকদের ৷

এসবিআইয়ের (SBI) লোগো দেওয়া ছবি ও ডামি চেকের ছবিও পাঠানো হচ্ছে। জনৈক এক অভিযোগকারীর কথায়, কখনও ভার্চুয়াল নম্বর, আবার কখনও বা প্রাইভেট নম্বর থেকে আসছে ঘনঘন ফোন। তাড়াতাড়ি ব্যাঙ্ক ট্রান্সফারের মাধ্যমে পাঠাতে বলা হচ্ছে লটারিতে জেতা ২৫ লক্ষ টাকা পাওয়ার জন্য ট্যাক্স বাবদ ১২ হাজার ১০০ টাকা।

প্রতারণার ফাঁদ পাতা হচ্ছে অমিতাভ বচ্চনের  জনপ্রিয় একটি টেলিভিশন অনুষ্ঠানের নাম করে। গ্রাহকদের আস্থা অর্জনে রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কের উল্লেখ করা হচ্ছে।

সাইবার বিশেষজ্ঞ সন্দীপ সেনগুপ্ত বললেন, অনলাইনের মাধ্যমেই এখন সহজেই পাওয়া যায় ভার্চুয়াল নম্বর। এতে প্রতারকদের সহজে চিহ্নিতকরণে সমস্যা হয়। যদিও পুলিশের কাছে যে আধুনিক প্রযুক্তি রয়েছে তাতে প্রতারকদের চিহ্নিতকরণ অসম্ভব নয়। রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কের অফিসার্স অ্যাসোসিয়েশনের মুখপাত্র সৌম্য দত্ত বললেন, 'ব্যাঙ্ক এই ধরনের কোনও রকম লটারি প্রতিযোগিতা করে না। এটা সম্পূর্ণ প্রতারকদের কাজ। গ্রাহকদের আরও সচেেতন হতে হবে।’ প্রাক্তন পুলিশ কর্তা অজয় মুখোপাধ্যায় আশাবাদী পুলিশি তদন্ত নিয়়ে। প্রায় প্রতিদিনই এই ধরনের নিত্যনতুন প্রতারণার অভিযোগ জমা পড়ছেে লালবাজারে।

আরও পড়ুন-রেস্তোরাঁয় গলায় খাবার আটকে অজ্ঞান ! ব্যক্তির ভাইরাল ভিডিও গায়ে শিহরণ জাগাবে

কলকাতা পুলিশের সাইবার ক্রাইম বিভাগ তদন্তও শুরু করেছে। তদন্তে ইতিমধ্যেই উঠে আসছে আন্তঃরাজ্য প্রতারণা চক্র। এই ধরনের প্রতারণায় জামতাড়া গ্যাং সিদ্ধহস্ত। গোয়েন্দাদের নজরে এখন তাই জামতাড়া গ্যাংও।

VENKATESWAR LAHIRI 

Published by:Siddhartha Sarkar
First published:

Tags: Fraud Case, Online Fraud

পরবর্তী খবর