Home /News /kolkata /
Anubrata Mondal: পকেটে রাখা মা তারার আশীর্বাদী ফুল, মাঝে মধ্যেই কপালে ঠেকাচ্ছেন অনুব্রত

Anubrata Mondal: পকেটে রাখা মা তারার আশীর্বাদী ফুল, মাঝে মধ্যেই কপালে ঠেকাচ্ছেন অনুব্রত

মা তারাতেই আস্থা রাখছেন অনুব্রত৷

মা তারাতেই আস্থা রাখছেন অনুব্রত৷

সিবিআই সূত্রে খবর, জেরায় বেশিরভাগ সময়ই প্রশ্নের উত্তর দিচ্ছেন না অনুব্রত মণ্ডল৷

  • Share this:

# কলকাতা : সিবিআই দফতরেও অনুব্রত মণ্ডলের পকেটে মা তারার আশীর্বাদী ফুল! কাগজে মোড়া আশীর্বাদী ফুল মাঝে মধ্যেই কপালে ঠেকাচ্ছেন অনুব্রত মণ্ডল, সিবিআই  সূত্রে খবর এমনই।

অনুব্রতর ঈশ্বর ভক্তি, বিশেষত কালী ভক্তি নতুন কিছু নয়৷ বোলপুরের বাড়ির অফিসে ধুমধাম করে কালী পুজো করেন তিনি৷ শুধু তাই নয়, নিয়মিত তারাপীঠের মন্দিরে গিয়েও পুজো দিতে দেখা যায় তাঁকে৷

গ্রেফতারের পর শুক্রবার সন্ধ্যায় অনুব্রতকে জেরা শুরু করেছে সিবিআই৷  কিন্তু অনুব্রত  মুখ খুলছেন না বলেই খবর। উত্তর দিচ্ছেন না সিবিআইয়ের প্রশ্নের। বেশিরভাগ প্রশ্ন সময় চুপ রয়েছেন অনুব্রত মণ্ডল।

সিবিআই সূত্রে দাবি, অনুব্রতকে দেখভালের জন্য সর্বক্ষণ তাঁর সঙ্গে রয়েছেন একজন পরিচিত ব্যক্তি।সেই  পরিচিত যখন তৃণমূল নেতাকে নেবুলাইজার পরাতে যান, তখন অনুব্রত তাঁর গ্রেফতারি নিয়ে দলের মনোভাবের কথা জানতে চান । সূত্রের খবর, অনুব্রত প্রশ্ন করেন, তাঁর গ্রেফতারির পর বাইরে প্রতিক্রিয়া কেমন? দলের নেতারাই বা কী বলছেন?

আরও পড়ুন: 'পিঠে চড়াম চড়াম ঢাক বাজবে!' সিবিআই হেফাজতে অনুব্রত, তবু হুঁশিয়ারি তৃণমূল নেতার

প্রথম দিন অনুব্রতকে জেরা করে  সিবিআই  জানতে চায়, বোলপুরে কত পরিমাণ সম্পত্তি রয়েছে তাঁর? কার নামে কটি বাড়ি আছে? সায়গেলের কাছে গরু পাচারের যে টাকা আসত, তার ভাগ অনুব্রত পেতেন কি না? পেলেই বা সেই টাকার পরিমাণ কত?

গরু পাচারে মূল অভিযুক্ত এনামুল হক বীরভূম দিয়ে গরু পাচার করত সীমান্ত পেরিয়ে। কত দিন ধরে এনামুলকে চেনে অনুব্রত, তাও জানতে চান সিবিআই কর্তারা৷  বেআইনি আর্থিক লেনদেনের এই টাকা কীভাবে অনুব্রতর কাছে আসত, তাও জানতে চান সিবিআই কর্তারা৷ সিবিআই সূত্রে খবর,অনুব্রতর আত্মীয়দের নামেই ৪৯টি দলিল মিলেছে। এই সমস্ত সম্পত্তির উৎস কী, তাও জানতে চান কেন্দ্রীয় গোয়েন্দারা৷

অনুব্রতকে জেরার সময় এই সমস্ত প্রশ্নের মুখ খুলছেন না। সূত্রের খবর, শুক্রবার মেয়ের সঙ্গে দু' বার কথা হয়েছে অনুব্রত মণ্ডলের। লাউড স্পিকারে ফোন করে কথা বলেন অনুব্রত মণ্ডল। বাইরের খাবার খাননি তিনি। খেয়েছেন সঙ্গে আনা মুড়ি। নিজামের ক্যান্টিন থেকে আনা লাঞ্চ খান। একা থাকতে ভয় পান অনুব্রত। তাই সিবিআইয়ের অনুমতি নিয়ে একজন সর্বক্ষণের দেখভালের লোক রয়েছেন অনুব্রতর সঙ্গে।

অনুব্রত মণ্ডলকে সিবিআই দফতরে একটি গেস্ট রুমে রাখা হয়েছে। সেখানে তক্তাপোসের উপরে কম্বল দিয়ে ঘুমাতে দেওয়া হয়েছে। অনুব্রতর মতো দাপুটে নেতাও সিবিআই হেফাজতে এসে চুপচাপ হয়ে পড়েছেন।

Published by:Debamoy Ghosh
First published:

Tags: Anubrata Mondal, CBI

পরবর্তী খবর