• associate partner
corona virus btn
corona virus btn
Loading

IPL 2020: মুজিবুর রহমানের DRS নিয়ে তোলপাড় সোশ্যাল মিডিয়া, বিদ্রুপ ছাড়াল শালীনতার মাত্রা!

IPL 2020: মুজিবুর রহমানের DRS নিয়ে তোলপাড় সোশ্যাল মিডিয়া, বিদ্রুপ ছাড়াল শালীনতার মাত্রা!

মুজিবুর রহমানকে ঘিরেও সোশ্যাল মিডিয়ায় নানা ছবি শেয়ার করা হয়েছে।

  • Share this:

#কলকাতা: দুবাই আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে ফের হারের মুখ দেখল কিংস ইলেভেন পঞ্জাব। নিকোলাস পুরন ৭৭ রানের দুরন্ত ইনিংস খেললেও বাকিরা খুব একটা সুবিধা করতে পারেননি। ব্যাট হাতে ম্যাক্সওয়েলও ব্যর্থ হয়েছেন। এর মাঝে একটি আউটের সিদ্ধান্ত আর DRS নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় ব্যাপকভাবে ট্রোল শুরু হয়েছে। এই আউটের সিদ্ধান্ত নিয়ে ইতিমধ্যেই মুজিবুর রহমানকে ঘিরেও সোশ্যাল মিডিয়ায় নানা ছবি শেয়ার করা হয়েছে। অনেকের মতে, ম্যাচে পুরো বিষয়টি কী ছিল তা এখনও স্পষ্ট হয়নি।

হায়দরাবাদ ও পঞ্জাব ম্যাচের দ্বিতীয় ইনিংস। বড় রান তাড়া করতে নেমে ১৪ ওভারে ব্যাট করছেন কিংস ইলেভেন পঞ্জাবের মুজিবুর রহমান। ও পারে বল হাতে খলিল আহমেদ। কিন্তু ব্যাটে বলে ঠিকঠাক যোগোযাগ হয়নি। বল ব্যাট ছুঁয়ে ততক্ষণে সোজা জনি বেয়ারস্টোর গ্লাভসে। এর পরই যাবতীয় বিতর্কের সূত্রপাত। স্বভাবতই আউটের আবেদন করা হয় হায়দরাবাদের তরফে। নট আউট না আউট সেই বিভ্রান্তির মাঝেই থার্ড আম্পায়ারের শরণাপন্ন হন আর এক অন ফিল্ড আম্পায়ার। এ বার বাম্প বল কি না তা দেখার জন্য, সিদ্ধান্তকে একটু খতিয়ে দেখেন থার্ড আম্পায়ার। দেখা যায় বল মাটি ছোঁয়নি। তাই ফুটেজ দেখার পর আউট দেওয়া হয় মুজিবুরকে। তবে এই ফাঁকে আলাদা করে আর আল্ট্রা এজ চেক করেননি থার্ড আম্পায়ার। প্যাভিলিয়নের পথে হাঁটতে শুরুই করেছিলেন মুজিবুর, তবে এ বার এক নতুন জটিলতা তৈরি হয়। আম্পায়ারের সিদ্ধান্তকে চ্যালেঞ্জ জানানো হয়। নেওয়া হয় DRS রিভিউ। এ বার থার্ড আম্পায়ার আবার নতুন করে ফুটেজ দেখতে শুরু করেন। স্নিকোমিটারের সাহায্যে খতিয়ে দেখা হয় আলট্রা এজ। দেখা যায় মুজিবুরের ব্যাট ছুঁয়ে বেরিয়েছে বল। শেষমেশ আবার আউট দেওয়া হয়।

ইতিমধ্যেই এই আউটের ঘটনাটিকে নিয়ে ট্রোল করা শুরু করেছেন নেটিজেনরা। অনেকে সানি দেওলের বিখ্যাত ডায়ালগ তারিখ পে তারিখের সঙ্গে DRS পে DRS মিলিয়ে ব্যঙ্গ করেছেন। কেউ আবার নানা মিম ক্যারেক্টারের সঙ্গে এই DRS-এর প্রসঙ্গ টেনে এনেছেন।

তবে অনেকে অবশ্য এই মিম ও মন্তব্যের বিরোধিতা করেছেন। তাঁদের কথা, প্রথমে থার্ড আম্পায়ার বাম্প বলের পরীক্ষা করেছেন। পরে ব্যাটে বলে সংযোগ হয়েছে কি না তা দেখার জন্য আলট্রা এজ চেক করা হয়। এর জেরে একটি সঠিক ও নিঁখুত সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এতে কোনও ভুল নেই।

উল্লেখ্য, অলরাউন্ড পারফরম্যান্সের জেরেই গতকালের ম্যাচে জয় সুনিশ্চিত করেছে সানরাইজার্স হায়দরাবাদ। শুরুতেই ব্যাট করতে নেমে জনি বেয়ারস্টোর ৫৫ বলে ৯৭ রান ও ডেভিড ওয়ার্নারের ৪০ বলে ৫৫ রানের উপর ভর করে পঞ্জাবের সামনে ২০১ রানের লক্ষ্যমাত্রা বেঁধে দিতে সক্ষম হয় হায়দরাবাদ। পরে বল হাতে রশিদ খান একাই বিপক্ষকে ধরাশায়ী করেন। হাত খুলে খেলতে গিয়েও পঞ্জাবের ব্যাটসম্যানরা তাঁর ওভারে খুব একটা সুবিধা করতে পারেননি। গতকাল নির্ধারিত চার ওভারে মাত্র ১২ রান দিয়ে তিনটি উইকেট তুলে নেন রশিদ। অন্য দিকে পঞ্জাবের হয়ে নিকোলাস পুরন লড়াইটা ভালো শুরু করলেও পরের দিকে পার্টনারশিপের অভাবে অসহায় হয় পড়েন। তাঁর ৩৭ বলে ৭৭ রানের দুরন্ত ইনিংসও দলকে রক্ষা করতে পারেনি।

Published by: Debalina Datta
First published: October 10, 2020, 1:36 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर