• Home
  • »
  • News
  • »
  • international
  • »
  • ঐতিহাসিক রেলযাত্রার সূচনা! দীর্ঘ ৫৫ বছর পর চিলাহাটি-হলদিবাড়ির মধ্যে ট্রেন চলাচল শুরু

ঐতিহাসিক রেলযাত্রার সূচনা! দীর্ঘ ৫৫ বছর পর চিলাহাটি-হলদিবাড়ির মধ্যে ট্রেন চলাচল শুরু

সুদীর্ঘ ৫৫ বছর পর আজ বৃহস্পতিবার (১৭ ডিসেম্বর) বাংলাদেশের নীলফামারীর চিলাহাটি ও ভারতের হলদিবাড়ি রেলপথে পুনরায় ট্রেন চলাচলের উদ্বোধন করলেন শেখ হাসিনা ও নরেন্দ্র মোদি।

সুদীর্ঘ ৫৫ বছর পর আজ বৃহস্পতিবার (১৭ ডিসেম্বর) বাংলাদেশের নীলফামারীর চিলাহাটি ও ভারতের হলদিবাড়ি রেলপথে পুনরায় ট্রেন চলাচলের উদ্বোধন করলেন শেখ হাসিনা ও নরেন্দ্র মোদি।

সুদীর্ঘ ৫৫ বছর পর আজ বৃহস্পতিবার (১৭ ডিসেম্বর) বাংলাদেশের নীলফামারীর চিলাহাটি ও ভারতের হলদিবাড়ি রেলপথে পুনরায় ট্রেন চলাচলের উদ্বোধন করলেন শেখ হাসিনা ও নরেন্দ্র মোদি।

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: সুদীর্ঘ ৫৫ বছর পর আজ বৃহস্পতিবার (১৭ ডিসেম্বর) বাংলাদেশের নীলফামারীর চিলাহাটি ও ভারতের হলদিবাড়ি রেলপথে পুনরায় ট্রেন চলাচলের উদ্বোধন করলেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। সকাল ১১:৩০ মিনিটে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে দুই দেশের প্রধানমন্ত্রী এই রেলপথ দিয়ে পুনরায় ট্রেন চলাচলের উদ্বোধন করেন। চিলাহাটি স্টেশন থেকে ৩২টি পণ্যবাহী বগি নিয়ে ভারতের হলদিবাড়ি স্টেশনের উদ্দেশে একটি ট্রেন প্রথম রওনা হয়। ইতিমধ্যে ট্রেন চলাচলের সকল প্রস্তুতি সম্পূর্ণ হয়েছে।

সুদীর্ঘ ৫৫ বছর পর চিলাহাটি-হলদিবাড়ি রেললাইন দিয়ে পুনরায় ট্রেন চলাচলে খুশির আমেজ বইছে চিলাহাটি-সহ গোটা জেলায়। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও রেলমন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজনকে শুভেচ্ছা জানিয়ে বিভিন্ন স্থানে তোরণ, গেট ও ব্যানার টাঙিয়ে শুভেচ্ছা জানিয়েছে সব শ্রেনী এবং পেশার মানুষ। গোটা চিলাহাটি সেজে উঠেছে।

ইউপি চেয়ারম্যান জহুরুল হক দিপু জানান, 'পাক-ভারত যুদ্ধের সময় এই রেলপথ দিয়ে ট্রেন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। আমাদের দীর্ঘ দিনের দাবীর প্রেক্ষিতে আবারও ট্রেন চলাচল শুরু হচ্ছে। আমরা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও রেলমন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজনের প্রতি সারাজীবন কৃতজ্ঞ থাকব।'

রেলওয়ে সূত্রে জানা গিয়েছে, ১৯৪৭ সালের ১৫ অগাস্ট পাক-ভারত বিভক্ত হওয়ার পরও এই পথে রেল চলাচল চালু ছিল। সে সময়ে দুই দেশের বিভিন্ন প্রান্তে চলাচল করতো যাত্রী ও মালবাহী ট্রেন। ১৯৬৫ সালে পাক-ভারত যুদ্ধের পর বন্ধ হয় দুই দেশের মধ্যে রেল চলাচল। পরিত্যক্ত রেলপথটি চালুর উদ্যোগ নেয় শেখ হাসিনা ও নরেন্দ্র মোদি সরকার। রেলপথটি চালু করতে ৮০ কোটি ১৬ লাখ ৯৪ হাজার টাকা ব্যয়ে একটি প্রকল্প হাতে নেয় বর্তমান সরকার। প্রকল্পটির মধ্যে রয়েছে চিলাহাটি রেলস্টেশন থেকে সীমান্ত পর্যন্ত ৬.৭২৪ কিলোমিটার ব্রডগেজ রেলপথ এবং ২.৩৬ কিলোমিটার লুপলাইন নির্মাণ-সহ অন্যান্য অবকাঠামো। কাজ ইতিমধ্যেই শেষ হয়েছে। গত বছরের ২১ সেপ্টেম্বর চিলাহাটি রেল স্টেশন চত্বরে প্রকল্পটির আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন রেলপথমন্ত্রী মো: নুরুল ইসলাম সুজন।

ABIR GHOSAL

Published by:Shubhagata Dey
First published: