?>
corona virus btn
corona virus btn
Loading

লাদাখে অবিশ্বাস্য আগ্রাসন দেখিয়েছে চিন, উপযুক্ত জবাব দিয়েছে ভারত: মার্কিন বিদেশসচিব

লাদাখে অবিশ্বাস্য আগ্রাসন দেখিয়েছে চিন, উপযুক্ত জবাব দিয়েছে ভারত: মার্কিন বিদেশসচিব
মার্কিন বিদেশসচিব মাইক পম্পিও৷ PHOTO- A

এ দিন মূলত চিনের কমিউনিস্ট পার্টির মনোভাবেরই কড়া সমালোচনা করেন মার্কিন বিদেশসচিব৷

  • Share this:

#ওয়াশিংটন: লাদাখে ভারতের সঙ্গে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখায় অবিশ্বাস্য রকমের আগ্রাসী মনোভাব দেখিয়েছে চিন৷ আর তার সঠিক জবাব দিয়েছে ভারত৷ বুধবার ফের একবার চিনের কড়া সমালোচনা করে এমনই বার্তা দিলেন মার্কিন বিদেশসচিব মাইক পম্পেও৷  তবে এই ঘটনাকে বিচ্ছিন্ন ভাবে না দেখে সামগ্রিক ভাবে প্রতিবেশী দেশগুলির প্রতি শি জিনপিং সরকারের আগ্রাসী মনোভাবের অঙ্গ হিসেবে দেখা উচিত বলে মনে করেন মার্কিন বিদেশসচিব৷ শুধু তাই নয়, চিনের এই আগ্রাসী নীতির বিরুদ্ধে এবার গোটা বিশ্বের মানুষকে একজোট হওয়ার ডাক দিলেন মার্কিন বিদেশসচিব মাইক পম্পেও৷

মার্কিন বিদেশসচিব বলেন, 'ভারতের বিদেশমন্ত্রী এস জয়শঙ্করের সঙ্গে এ বিষয়ে আমার একাধিকবার আলোচনা হয়েছে৷ চিন অবিশ্বাস্য রকমের আগ্রাসী মনোভাব দেখিয়েছে এবং ভারত তাদের পক্ষে যতটা ভাল জবাব দেওয়া সম্ভব ছিল, সেটাই দিয়েছে৷'

শুধু ভারত নয়, চিন যেভাবে এবার ভুটানের ভূখণ্ড দখলে উদ্যত হয়েছে, তারও প্রবল সমালোচনা করেছেন মার্কিন বিদেশসচিব৷ তিনি বলেন, 'সম্প্রতি ভুটানের সঙ্গেও বিবাদে জড়িয়েছে চিনের কমিউনিস্ট সরকার৷ হিমালয় পর্বতমালা থেকে শুরু করে ভিয়েতনামের অধীনে থাকা সামুদ্রিক এলাকা, সেনকাকু দ্বীপপুঞ্জ-সহ এরকম আরও অনেক উদাহরণ রয়েছে৷ সীমান্ত বিবাদ খুঁচিয়ে তোলাটা চিনের স্বভাবে পরিণত হয়েছে৷ এই দাদাগিরি গোটা বিশ্ব বেশিদিন সহ্য করবে না৷'

চিনকে কার্যত হুঁশিয়ারির সুরে মাইক পম্পেও বলেন, 'ক্রমাগত প্রতিবেশীদের সঙ্গে ভূখণ্ড বদলে দেওয়ার চেষ্টা করতে থাকার চিনের এই নীতিতে মার্কিন প্রেসিডেন্ট যারপরনাই ক্ষুব্ধ৷' কটাক্ষের সুরে তিনি আরও বলেন, চিনের কোনও প্রতিবেশী জানে না চিনের সঙ্গে তাদের সীমান্ত কোথায় শেষ এবং চিন আদৌ সেটাকে সম্মান করে কিনা৷ আর এখন ভুটানের মানুষ তা উপলব্ধি করতে পারছেন৷

এ দিন মূলত চিনের কমিউনিস্ট পার্টির মনোভাবেরই কড়া সমালোচনা করেন মার্কিন বিদেশসচিব৷ তিনি অভিযোগ করেন, 'অগণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে ক্ষমতা ধরে রাখা চিনা কমিউনিস্ট পার্টির নেতৃত্ব বিদেশি শত্রুদের থেকেও নিজেদের দেশের মানুষের মুক্ত চিন্তাকে ভয় পায়৷ চিনা কমিউনিস্ট পার্টির কোনও বিশ্বাসযোগ্যতাই নেই৷ মারণ ভাইরাস সম্পর্কেও ওরা ঠিক সময়ে গোটা বিশ্বকে কিছু জানায়নি, যার ফলে এখন লক্ষ লক্ষ মানুষের মৃত্যু হচ্ছে৷'

মার্কিন বিদেশসচিব আরও বলেন, চিনের এই দখলদারির মনোভাবের বিপদ মুক্ত চিন্তায় বিশ্বাসী বিশ্বের সব মানুষই বুঝতে পারছেন৷ চিনা প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং গোটা বিশ্বে যে প্রভাব বিস্তার করার চেষ্টা করছেন তার ফল বিশ্বের গণতন্ত্র প্রিয় মানুষের পক্ষে ভাল হবে না বলে সতর্ক করেন মার্কিন বিদেশসচিব৷

Published by: Debamoy Ghosh
First published: July 8, 2020, 10:27 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर