• Home
  • »
  • News
  • »
  • india-china
  • »
  • ৪৫ জন চিনা সেনা প্রাণ হারিয়েছিল গালওয়ানে,বলছে রুশ গোয়েন্দা সংস্থা

৪৫ জন চিনা সেনা প্রাণ হারিয়েছিল গালওয়ানে,বলছে রুশ গোয়েন্দা সংস্থা

গালওয়ানে চিনকে হারিয়েছিল ভারত বলছে রুশ গোয়েন্দা সংস্থার রিপোর্ট

গালওয়ানে চিনকে হারিয়েছিল ভারত বলছে রুশ গোয়েন্দা সংস্থার রিপোর্ট

পনেরো জুন গালওয়ানে ভারত বনাম চিন সেনার তীব্র লড়াইয়ে প্রাণ হারিয়েছিল ৪৫ জন চিনা সেনা। এই রিপোর্ট প্রকাশ করেছে রুশ গোয়েন্দা সংস্থা টিএএসএস।

  • Share this:

    #মস্কো: পনেরো জুন গালওয়ানে ভারত বনাম চিন সেনার তীব্র লড়াইয়ে প্রাণ হারিয়েছিল ৪৫ জন চিনা সেনা। এই রিপোর্ট প্রকাশ করেছে রুশ গোয়েন্দা সংস্থা টিএএসএস। রিপোর্টে বলা হয়েছে ভারতের তরফ থেকে কুড়িজন সেনা প্রাণ হারান, চিনের তরফে মৃতের সংখ্যা দ্বিগুণের বেশি। চিন যদিও আজ পর্যন্ত সঠিক মৃত সেনাদের তালিকা প্রকাশ করেনি, তবে তাঁরা মেনে নিয়েছিল দুজন মেজর প্রাণ হারিয়েছেন এই লড়াইয়ে। ভারতের পক্ষ থেকে প্রাণ হারালেও কর্নেল সন্তোষ বাবুর নেতৃত্বে খালি হাতেই চিনা সেনার মোকাবিলা করেন ভারতীয় জওয়ানরা। চিন কাঁটাতার জড়ানো লাঠি এবং মধ্যযুগীয় অস্ত্রশস্ত্র ব্যবহার করে যা ছিল নিয়মবিরুদ্ধ।

    লক্ষ্য করার মত বিষয় রুশ রিপোর্ট প্রকাশ করা হল এমন দিনে যখন নাকি প্যাংগং লেক সহ পূর্ব লাদাখের প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখার বিভিন্ন এলাকা থেকে সেনা প্রত্যাহার করতে শুরু করেছে দুই দেশ। বিবৃতি দিয়ে চিনের প্রতিরক্ষামন্ত্রক এমন দাবি করলেও বুধবার রাত পর্যন্ত কোনও সরকারি বিবৃতি দেয়নি নয়াদিল্লি। আজ বৃহস্পতিবার রাজনাথ সিং এই প্রসঙ্গে বক্তব্য রাখবেন। তবে রাজ্যসভার পরেও লোকসভাতেও কেন প্রধানমন্ত্রী চিন নিয়ে চুপ, প্রশ্ন তুলেছেন বিরোধীরা। গত চব্বিশ জানুয়ারি মলডোতে নবম রাউন্ডের বৈঠক হয় দুই দেশের সেনা কর্তাদের মধ্যে। তারপর দিল্লি জানিয়েছিল দুপক্ষই সেনা প্রত্যাহারে সম্মত হয়েছে।

    প্রায় আড়াই সপ্তাহ পর চিনের প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের সিনিয়র কর্নেল উ চিয়াং বিবৃতি দিয়ে জানিয়েছেন প্যাংগং লেকের দক্ষিণ ও উত্তর প্রান্তে সুশৃংখলভাবে এবং সমতা বজায় রেখে সেনা প্রত্যাহার করতে শুরু করেছে তাঁরা। তবে চিনের পক্ষে মৃত সেনার সংখ্যা যে ৪৫ তা সবার আগে প্রকাশ করেছিল মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থা সিআইএ। শুধু তাই নয়, হাতাহাতি সংঘর্ষে ভারতীয় সেনারা কয়েকজন চিনা সেনার ঘাড় মটকে দিয়েছিলেন এমনও লেখা হয়েছিল মার্কিন গোয়েন্দা রিপোর্টে। কদিন আগেই ভারতের প্রাক্তন সেনাপ্রধান তথা কেন্দ্রীয় মন্ত্রী ভি কে সিং নিয়ন্ত্রণ রেখা পার হওয়া নিয়ে এমন মন্তব্য করেছিলেন যাতে বিপাকে পড়ে গিয়েছিল সরকার।

    বিরোধীরা তাঁর অপসারণ দাবি করেন। তাছাড়া প্রধানমন্ত্রী মোদি বিভিন্ন কৌশলে লাদাখের আসল পরিস্থিতি সম্পর্কে সংসদে ব্যাখ্যা করার বিষয়টি এড়িয়ে গিয়েছেন এমন মত বিরোধীদের। তবে অতীত অভিজ্ঞতা থেকে চিন নিয়ে সতর্ক ভারত। তাই নিজেদের সেনা সরানো নিয়ে তাড়াহুড়ো করতে রাজি নয় তাঁরা।

    Published by:Rohan Chowdhury
    First published: