গ্ল্যামার বনাম ঐতিহ্য, মণিকা থেকে মোহময়ী...কুমারটুলিতে দুই দুর্গা

মণিকা থেকে মোহময়ী। ভেসে যান ছোট্ট দুগ্গার মোহে। কুমারটুলির উঠোন এখন ভরে আছে। আর কয়েকদিন। দুগ্গার সঙ্গে দুর্গাও চলে যাবে। পুজোর ভিড়ে ভেসে যাবে এই শহর...

Bangla Editor | News18 Bangla
Updated:Sep 27, 2019 05:22 PM IST
গ্ল্যামার বনাম ঐতিহ্য, মণিকা থেকে মোহময়ী...কুমারটুলিতে দুই দুর্গা
Bangla Editor | News18 Bangla
Updated:Sep 27, 2019 05:22 PM IST

এক বাড়ির দুই মেয়ে। তাদের এখন প্রবল ঝগড়া। একজন বলে, তোকে দেখতে নয়, আমাকে দেখতে ভিড় হয়। আর অন্যজন বলে, তোকে দেখতে আসে। আর আমাকে সবাই পুজো করে। দুই দুগ্গার লড়াইয়ে কোলাহল কুমারটুলির উঠোনে। সেই উঠোনে এসে মুগ্ধ হন মণিকা।

কলকাতায় তিনি পর্যটক। নাম মণিকা লোপেজ। বাড়ি বার্সিলোনায়। শুনেছেন এই শহরের পুজোর গপ্পো। বড় ঠাকুর, বড় মণ্ডপ। কিন্তু কুমারটুলির অন্দরে এসে স্বপ্নে ভাসছেন মণিকা। স্প্যানিশের লেন্সে বন্দি থাকল ছোট্ট দুগ্গা।

মণিকা তো বিদেশি। ঘরের মেয়ে মোহময়ী। প্রত্যেকবার আসেন এই ছোট্ট দুগ্গার টানে। কারণ, এই মূর্তিই তো ঐতিহ্য। সত্যিই ঐতিহ্য। মেয়ের মতো করেই দুগ্গাকে তৈরি করেন বঙ্কিম পাল। দীর্ঘ সময় ধরে কুমারটুলিতে এই কাজই করছেন তিনি। বড় দুর্গার গ্ল্যামারকে অনেক সময় পিছনে ফেলে দেয় তাঁর হাতের সাবেকি দু্গ্গা। বঙ্কিমের শিল্প পাড়ি দিয়েছে লন্ডন, ক্যার্লিফোনিয়ায়। কলকাতায় তাঁর দুগ্গাই পূজিত হয় চেতলা অগ্রণীর মতো ক্লাবে। তখন চোখ ভরে যায় বঙ্কিমের।

মণিকা থেকে মোহময়ী। ভেসে যান ছোট্ট দুগ্গার মোহে। কুমারটুলির উঠোন এখন ভরে আছে। আর কয়েকদিন। দুগ্গার সঙ্গে দুর্গাও চলে যাবে। পুজোর ভিড়ে ভেসে যাবে এই শহর।

First published: 05:22:30 PM Sep 27, 2019
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर