টিভির পর্দায় পার্লামেন্টের কার্যক্রমের লাইভ টেলিকাস্ট শুরু হল কী ভাবে, জেনে নিন

টিভির পর্দায় পার্লামেন্টের কার্যক্রমের লাইভ টেলিকাস্ট শুরু হল কী ভাবে, জেনে নিন

টিভির পর্দায় পার্লামেন্টের কার্যক্রমের লাইভ টেলিকাস্ট শুরু হল কী ভাবে

লোকসভা টিভি এবং রাজ্যসভা টিভির পৃথক অস্তিত্ব থাকছে না। এই দুই চ্যানেল একসঙ্গে জুড়ে গিয়ে তৈরি হচ্ছে সংসদ টিভি।

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: পার্লামেন্টের দুই কক্ষ যেমন আলাদা, তেমনই তাদের জন্য দুই আলাদা টিভি চ্যানেলও নির্দিষ্ট ছিল এত দিন। কিন্তু এবার আর লোকসভা টিভি এবং রাজ্যসভা টিভির পৃথক অস্তিত্ব থাকছে না। এই দুই চ্যানেল একসঙ্গে জুড়ে গিয়ে তৈরি হচ্ছে সংসদ টিভি। সেই সূত্রে দেখে নেওয়া যাক, কী ভাবে টিভির পর্দায় পার্লামেন্টের কার্যক্রমের লাইভ টেলিকাস্ট শুরু হয়েছিল!

প্রাক্তন লোকসভা স্পিকার সোমনাথ চট্টোপাধ্যায় (Somnath Chatterjee) লোকসভা টিভি খোলার প্রস্তাবটি উত্থাপন করেছিলেন। কিন্তু সেই সময়ের রাজ্যসভার চেয়ারম্যান ভৈরোঁ সিং শেখাওয়াতের (Bhairon Singh Shekhawat) বিষয়টি পছন্দ হয়নি। তাই আলোচনা সেখানেই থেমে যায়। পরে তাঁর জায়গায় হামিদ আনসারি (Hamid Ansari) দায়িত্বে এলে সেই সময়ে লোকসভা টিভি প্রতিষ্ঠিত হয়।

অবশ্য লোকসভা টিভি প্রতিষ্ঠার আগে পার্লামেন্টের কোনও কার্যক্রমই যে টিভিতে দেখানো হয়নি, এমনটা কিন্তু নয়! যেমন, ১৯৮৯ সালের ডিসেম্বর মাসের পর থেকে নিয়মিত ভাবে নতুন বছরের প্রথম অধিবেশনের প্রথম দিনে রাষ্ট্রপতি পার্লামেন্টে কী ভাষণ দিচ্ছেন, তা টিভিতে দেখানো হত। তবে ১৯৯৪ সালের ১৮ এপ্রিল থেকে লোকসভার যাবতীয় কার্যক্রম শ্যুট করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। ওই বছরেরই অগস্ট মাসে একটা পাওয়ার ট্রান্সমিটার বসানো হয় লোকসভায়, যাতে তার কার্যক্রমের লাইভ টেলিকাস্ট করা সম্ভব হয়। আর ১৯৯৪ সালের ডিসেম্বর থেকে শুরু হয় লোকসভা এবং রাজ্যসভার কোয়েশ্চেন আওয়ারের সরাসরি সম্প্রচার।

তবে সেই সময়ে এক সভার কোয়েশ্চেন আওয়ার টিভিতে লাইভ হলে অন্যটা লাইভ হত অল ইন্ডিয়া রেডিওয়। DD News চ্যানেল লঞ্চ হওয়ার পরে দুই সভার কোয়েশ্চেন আওয়ার-ই টিভিতে দেখানো হতে থাকে। তবে ২০০৪ সালে প্রথম স্যাটেলাইট চ্যানেল তৈরি হয় দুই সভার কার্যক্রম আলাদা করে তুলে ধরার জন্য। ২০০৬ সাল থেকে লোকসভা টিভি পার্লামেন্টের লোয়ার হাউজের লাইভ দেখাতে শুরু করে।

অন্য দিকে, রাজ্যসভা টিভি প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল ২০১১ সালে। তবে এখানে শুধুই লাইভ কার্যক্রম নয়, পার্লামেন্টের নানা নীতি নিয়ে বিশ্লেষণমূলক আলোচনাও হত। যা এর জনপ্রিয়া বাড়াতে সাহায্য করে। ২০১৭ সালে এম ভেঙ্কাইয়া নাইডু (M Venkaiah Naidu) যখন রাজ্যসভার চেয়ারম্যান ছিলেন, তখনই এর YouTube ভিউয়ার ছিল ৪.৬ লক্ষ। বর্তমানে এটি ৫ মিলিয়ন ছুঁয়ে ফেলেছে।

প্রসঙ্গত, লোকসভা টিভির তুলনায় রাজ্যসভা টিভির প্রযুক্তি উন্নত, কর্মীর সংখ্যাও বেশি।

Published by:Swaralipi Dasgupta
First published:
0