করোনা, সোয়াইন ফ্লু-র টিকা আবিষ্কার করতে চলেছে সফটওয়্যার!

করোনা, সোয়াইন ফ্লু-র টিকা আবিষ্কার করতে চলেছে সফটওয়্যার!

epigraph software coronavirus vaccine

এক বিশেষজ্ঞের কথায়, সোয়াইন ফ্লু এবং করোনাভাইরাসের প্রভাব বন্ধের জন্য এই টিকা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নিতে চলেছে।

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: সোয়াইন ফ্লু (Swine Flu) এবং করোনাভাইরাসের (oronavirus) মোকাবিলায় বাজারে আসতে চলেছে নতুন টিকা। এক নোবেল কম্পিউটারের অ্যালগোরিদম এই রিঅ্যাকটিভ ইলফ্লুয়েঞ্জা (Influenza) টিকাটি তৈরি করতে চলেছে বলে জানানো হয়েছে।

এই অ্যালগরিদম ইতিমধ্যেই থেরাপেউটিক (Therapeutic) এইচআইভি (HIV) টিকার জন্য ব্যবহার করা হচ্ছে। একই সঙ্গে ইবোলা (Ebola) এবং মারবার্গ (Marburg) ভাইরাস থেকে মানুষকে রক্ষা করতেও এই আলগরিদম ব্যবহার করা হয়ে থাকে। এক সমীক্ষা থেকে জানা গিয়েছে যে এপিগ্রাফ দিয়ে ডিজাইন করা এই টিকার শক্তিশালী ক্রস-রিঅ্যাকটিভ প্রতিক্রিয়া রয়েছে। যা সোয়াইন ফ্লু বিরুদ্ধে মহা প্রতিষেধকের কাজ করে বলে জানানো হয়েছে।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র বা আমেরিকার নেব্রাসকা ইউনিভার্সিটির নেব্রাসকা সেন্টার ফর ভাইরোলজি, সেন্ট জুড চিলড্রেনস রিসার্চ হসপিটাল এবং লস আলামোস ন্যাশনাল ল্যাবরেটরির সম্মিলিত উদ্যোগে এই ইস্যুতে এক গবেষণা করা হয়। সেখানেই এই টিকা তৈরির উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে।

এক বিশেষজ্ঞের কথায়, সোয়াইন ফ্লু এবং করোনাভাইরাসের প্রভাব বন্ধের জন্য এই টিকা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নিতে চলেছে। বিভিন্ন টিকার মিশ্রণে যেটি তুমুল শক্তিশালী আকার নেবে বলে আশা প্রকাশ করা হয়েছে। এই অ্যালগরিদম টিকার প্রয়োগ শুরু হলে বিশ্বে সোয়ইন ফ্লু ও করোনা ভাইরাসের সঙ্গে আরও বেশি মোকাবিলা করা যাবে বলে দাবি করেছেন বিশেষজ্ঞরা।

উল্লেখ্য ভারতে ফের বেড়েছে সোয়াইন ফ্লু-র প্রভাব। কেরল, হরিয়ানা, হিমাচল প্রদেশ, রাজস্থান সহ দেশের বেশ কয়েকটি রাজ্যে উল্লেখযোগ্যভাবে পাখি মৃত্যুর হার বেড়েছে। পাল্লা দিয়ে বাড়ছে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা। কোভিড ১৯-এর নতুন স্ট্রেন মহারাষ্ট্রে থাবা বসানোর সঙ্গে আতঙ্কিত হয়েছে প্রশাসন। তারই মধ্যে দেশে কোভিড ১৯ টিকাকরণ চলছে সমানে। কোভ্যাক্সিন (Covaxin) এবং কোভিশিল্ড (Covishield) টিকা নিয়ে ফেলেছেন দেশের অধিকাংশ স্বাস্থ্যকর্মী এবং পঞ্চাশোর্ধ্ব ব্যক্তিরা। টিকাকরণ শুরু হয়েছে অন্যান্য দেশে। তার উপরে অ্যালগরিদম ভ্যাকসিন ইতিহাস রচনা করবে বলে বিশ্বাস বিশেষজ্ঞদের।

Published by:Subhapam Saha
First published: