• Home
  • »
  • News
  • »
  • entertainment
  • »
  • TOLLYWOOD MOVIES TOLLYWOOD ACTOR SABYASACHI CHOWDHURY TOOK CANCER FIGHTER AINDRILA SHARMA IN A COFFEE DATE AND SHARES A FUNNY STORY SR

‘এমন হাবভাব করছো, যেন আমার ক্যান্সার হয়েছে!’, প্রেমিক সব্যসাচী’কে ধমক দিলেন ঐন্দ্রিলা

ক্যান্সার আক্রান্ত ঐন্দ্রিলাকে এ ভাবেই আগলে রেখেছেন সব্যসাচী । ছবি- ফেসবুক ।

একা একা বাথরুম যাওয়ার মতো শক্তিটুকুও নেই । কিন্তু মনের জোরে অদম্য ঐন্দ্রিলা (Aindrila Sharma)। প্রেমিক সব্যসাচী (Sabyasachi Chowdhury) শেয়ার করলেন সম্পর্কের খুঁটিনাটি ।

  • Share this:

    #কলকাতা: এ দুনিয়ায় ভালবাসার সমান শক্তিশালী আর কিছুই নেই । ভালবেসে ত্যাগ করে দেওযা যায় নিজের সমস্ত ঐশ্বর্য, সুখ, স্বাচ্ছন্দ্য । ভালবাসার অন্য নাম বোধ হয় পাশে থাকা, বিশ্বাস, ভরসা আর শক্ত করে ধরা হাত । ভালবাসা মানে পিছু হটা নয়, মুখ ফিরিয়ে নেওয়া নয়, বরং কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে জীবনের যুদ্ধে অবতীর্ণ হওয়া ।

    সেটাই আরও একবার চোখে আঙুল দিয়ে প্রমাণ করে দিলেন বাংলা ধারাবাহিকের দুই জনপ্রিয় মুখ । ঐন্দ্রিলা শর্মা (Aindrila Sharma) আর সব্যসাচী চৌধুরি ( Sabyasachi Chowdhury) । একজন ‘জিয়নকাঠি’তে অভিনয় করছেন, অন্যজন ‘মহাপীঠ তারাপীঠ’ ধারাবাহিকে সকলের প্রিয় ‘বামাক্ষ্যাপা’। ভালবাসার শিকড় যে কতটা গভীর হতে পারে তা নিঃশব্দে বুঝিয়ে দিলেন তাঁরাই ।

    বহুদিন ধরেই ক্যান্সারে আক্রান্ত ঐন্দ্রিলা । একাদশ শ্রেণীতে পড়ার সময় তাঁর শরীরে এই মারণ রোগ বাসা বেঁধেছিল । বহু লড়াই করে সেই যুদ্ধে জয়ী হয়ে ফিরে এসেছিলেন সাহসী মেয়ে । আবারও লাইটস, ক্যামেরা, অ্যাকশনের দুনিয়ায় নিজেকে সঁপে দিয়েছিলেন । কিন্তু ভাগ্যবিধাতা যে তাঁর জন্য মসৃণ পথ তৈরি করেননি । ফলে আবারও ফিরে আসে সেই রোগ । এ বছর সরস্বতী পুজোর দিন শ্যুটিং ফ্লোরেই হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়েন অভিনেত্রী । তাঁকে দিল্লির অ্যাপোলো হাসপাতালে ভর্তি করা হলে, চিকিৎসকরা জানান তাঁর বাম ফুসফুসে ক্যান্সার ফের থাবা বসিয়েছে । আবারও শুরু হয় নতুন লড়াইয়ের গল্প । এ বার আর একা নন অভিনেত্রী । পাশে পেয়ে যান প্রেমিক সব্যসাচীকে । তাঁর দেখভাল করা থেকে যত্ন করে খাইয়ে দেওয়া, পাশে থেকে ভালবাসা আর ভরসার হাতটা বাড়িয়ে দেন সব্যসাচী ।

    কেমোথেরাপি শুরু হয়েছে ঐন্দ্রিলার । তাঁর সমস্ত চুল উঠে গিয়েছে । এক ঢাল লম্বা কালো চুল আজ আর নেই । কিন্তু ভালবাসার গায়ে লাগেনি কোনও আঁচড় । তাঁরা এখনও হাসি মুখে পৃথিবীকে শেখাচ্ছেন ভালবাসার পাঠ । সেই ঐন্দ্রিলার অস্ত্রোপচার হয়েছে । সুস্থ হয়ে বাড়ি ফেরার পরেও সমানে চলেছে রেডিয়েশন আর কেমোথেরাপি । wbc কাউন্ট অনেক কম থাকার ফলে শরীর অসার হয়ে গিয়েছে তাঁর । একা একা বাথরুম যাওয়ার মতো শক্তিটুকুও নেই । কিন্তু মনের জোরে অদম্য ঐন্দ্রিলা ।

    সে কথাই আবারও ফেসবুকে লিখলেন প্রেমিক সব্যসাচী । তাঁর আর ঐন্দ্রিলার সম্পর্কের রসায়ন যেন কতটা টক-মিষ্টি স্বাদে ভরা তা আর বোঝার অপেক্ষা রাখে না । এত কষ্টের মধ্যেও রসবোধটুকু হারিয়ে যেতে দেননি ঐন্দ্রিলা । গত রবিবার ছিল বন্ধুত্বের দিবস বা ফ্রেন্ডশিপ ডে । আর প্রেমিক-প্রেমিকার মতো ভাল বন্ধু আর কে-ই বা আছে এ দুনিয়ায়? গত ৬ মাস ঐন্দ্রিলা এতটাই অসুস্থ ছিলেন যে, বাড়ি আর হাসপাতাল ছাড়া ভিন্ন কোনও ঠিকানা ছিল না তাঁর । এখন একটু সুস্থ হয়েছেন তিনি । তাই ফ্রেন্ডশিপ ডে’র দিন সব্যসাচী’র কাছে আবদার করেন রেস্তোরাঁতে খেতে যাওয়ার ।

    সেই অভিজ্ঞতার কথাই নেট মাধ্যমে তুলে ধরেন সব্যসাচী । বাড়ির কাছেই এক ক্যাফেতে ঐন্দ্রিলাকে নিয়ে যান সব্যসাচী । ভরসা পেতে নিয়ে যান এক ভাতৃস্থানীয় বন্ধুকেও । কিন্তু অসুস্থ ঐন্দ্রিলাকে নিয়ে মনের মধ্যে ভয় । তাই ঘণ্টাখানেকের মধ্যেই বার পঞ্চাশেক জিজ্ঞাসা করে ফেলেন, ‘শরীর খারাপ করছে না তো?’ অনেকক্ষণ এই ‘অত্যাচার’ সহ্য করেবেরনোর সময় রাগ রাগ মুখ করে ঐন্দ্রিলা উত্তর দেন, ‘এতো আতুপুতু করো না তো। এমন হাবভাব করছো, যেন আমার ক্যান্সার হয়েছে।’

    প্রেমিকার সঙ্গে এমনই খুনসুটি, প্রেম, আদর, রাগ-অভিমানে দিন কাটে সব্যসাচীর । সে কথাই ফেসবুকের ওয়ালে শেয়ার করলেন ‘বামাক্ষ্যাপা’ ।

    Published by:Simli Raha
    First published: