#Exclusive: ‘দিয়া আর আমি এখন আর টাচে নেই’, ব্রেক আপের পর অবশেষে মুখ খুললেন শুভ্রজিৎ

শুভ্রজিৎ ও দিয়া । ছবি: ফেসবুক ।

‘রাখি বন্ধন’ দিয়ে শুরু । তারপর রাসমণি’র ‘যদু’ হয়ে এখন তিনি ফের লিড চরিত্রে । ‘নয়নতারা’ ধারাবাহিকের ‘সমুদ্র’ । একদিকে সদ্যই ব্রেক আপ হয়ে গিয়েছে অভিনেত্রী দিয়া চক্রবর্তী (রাসমণি ধারাবাহিকে পদ্মমণী)-র সঙ্গে । তার উপর করোনার থাবা । সব মিলিয়ে একটু বিপর্যস্ত হলেও সুপুরুষ, মিশুকে, সদা হাস্যমুখ শুভ্রজিৎ সাহা মন খুললেন  NEWS18 বাংলা ডিজিটালের সামনে । মুখোমুখি সিমলি রাহা ।

  • Share this:

প্র: প্রথমেই জিজ্ঞাসা করি এখন কেমন আছো? শারীরিক দিক থেকে আর মানসিক দিক থেকে...দুটোই

উ: ভাল আছি । কোভিডের সঙ্গে একটা লম্বা লড়াই সবে শেষ হল । রিপোর্টটা ফাইনালি নেগেটিভ এসেছে । তাই, মানসিক আর শারীরিক দিক থেকে এখন চাঙ্গা আছি ।

প্র: বহুদিন ধরে ‘রাণী রাসমণি’তে যদু চরিত্রটির সঙ্গে তোমাকে একাত্ম করে ফেলেছিলেন দর্শকরা । এখন নতুন চরিত্রে কেমন লাগছে?

উ: প্রথমেই বলি, যদু চরিত্রটা আমার খুব প্রিয় একটা চরিত্র । রাসমণি করার সময়ে আমি যা মজা করেছি, সেটা এখনও পর্যন্ত কোনও প্রজেক্টে করিনি । আর সেটা আরও বেশি করে সম্ভব হয়েছে, কারণ যে মানুষগুলোর সঙ্গে রাসমণিতে কাজ করতাম, তাঁদের মধ্যে সিলেক্টেড কিছু মানুষ আমার খুবই কাছের হয়ে উঠেছিল । এখন আমি সান বাংলায় ‘নয়নতারা’ করছি । হিরোর চরিত্র, নাম সমুদ্র । খুব এনজয় করছি । সমুদ্র চরিত্রটা খুব ফ্ল্যামবয়েন্ট, এনার্জেটিক, রোম্যান্টিক । দর্শক আমাদের অনেক ভালবাসা দিয়েছেন । সেই জন্যই শুরু থেকে আজ পর্যন্ত আমরা চ্যানেল টপার । এখনও সেই রেকর্ডটা ভাঙেনি ... টাচউড !

প্র: ‘নয়নতারা’র অফারটা কী ভাবে পেলে?

উ: চ্যানেল থেকে আমায় অ্যাপ্রোচ করেছিল চরিত্রটির জন্য । আমার করার কথা ছিল ‘সরস্বতীর প্রেম’ । কিন্তু ফাইনালি লুক টেস্টের পর চ্যানেল সিদ্ধান্ত নিল ‘সমুদ্র’ হিসাবেই আমাকে বেশি মানাবে । তাই শেষ পর্যন্ত ‘নয়নতারা’ ।

প্র: এতটা জনপ্রিয় একটা ধারাবাহিক করার পর কেন মনে হল এই অফারটা নেবে? শুধুই কি লিড চরিত্রের জন্য?

উ: আমি শুরু করেছিলাম লিড দিয়েই । ‘রাখি বন্ধন’-এ আমি বড়ো বয়সের বন্ধনের চরিত্র করেছিলাম । সেটাও যথেষ্ট জনপ্রিয় ছিল । তারপর আমি ভেবেছিলাম করলে লিড-ই করব । এমনকি লিডের অফারও পেয়েছিলাম । কিন্তু গল্পটা আমার ঠিক পছন্দ হয়নি । তারপর রাসমণি আসে । যদুর চরিত্রটা আমার খুব ভাল লেগেছিল । তাই সেটাই করেছি । কাজের ব্যাপারে আসলে আমি বেশ খুঁতখুঁতে । অনেকেই হয়তো এই রিস্কটা নিতে চাইবে না । কিন্তু আমি মনে করি, একটা চরিত্রের সঙ্গে যদি আমি কোনওভাবে কানেক্ট না করতে পারি, বা চরিত্রটাকে ভাল না বাসতে পারি, তা হলে সেই চরিত্রটার সঙ্গে আণার ন্যায় করা হবে না ।

রাসমণির পর আমার কাছে সান বাংলা থেকে তিনটি লিডের অফার আসে । সেখান থেকে ‘নয়নতারা’র গল্পটা আমার সব থেকে ইনটারেস্টিং লেগেছিল । ‘সমুদ্র’ চরিত্রটাও খুব পছন্দ হয়েছিল । আমার কাছে লিড করার থেকেও বেশি গুরুত্বপূর্ণ হল, কোন চরিত্রটায় আমি অভিনয় করছি, সেটা । সেটা যদি ইম্পরট্যান্ট হয়, বা আমার পছন্দ মতো হয়, তা হলে আমি অবশ্যই করব । আমার মনে হয়, কোনও রোল ছোট বা বড় হয় না । একটা ছোট চরিত্রকেও কী ভাবে স্ক্রিনে স্পষ্ট করে তোলা যায়, সেটা অনেক অভিনেতারাই প্রমাণ করে দেখিয়ে দিয়েছেন ।

প্র: অভিনেতাদের ‘ওয়ার্ক ফ্রম হোম’ কনসেপ্ট-টায় কতটা বিশ্বাস করো?

উ: আমার ব্যক্তিগতভাবে মনে হয়, এটা খুব একটা যুগপযোগী ধারণা নয় । কলাকুশলীদের জন্য তো নয়ই । কিন্তু অনেক কারণ আছে, যেটার জন্য বাড়ি থেকেও আজকাল শ্যুট করতে হচ্ছে শিল্পীদের । কিন্তু ওই আর কী, এতে গুণগত মান কোথাও না কোথাও নিম্নমানের হয়ে যাচ্ছে । কিন্তু কিছু করারও নেই ।

প্র: গত বছর লকডাউনে তো ধারাবাহিক গুলো বন্ধ রাখা হয়েছিল... এ বার কেন হল না?

উ: যাতে এ বার দর্শকরা বাড়িতে বসেও বিনোদন খুঁজে পান (অট্টহাসি) ।

প্র: একটি রিয়্যালিটি শো’য়ের মঞ্চে প্রেম, বিয়ে, সম্পর্ক নিয়ে বেশ কিছু কথা বলেছেন দিয়া (দিয়া চক্রবর্তী), এ বিষয়ে তোমার কী মত?

উ: হা হা হা! এটা তো ওর মতামত ছিল, হয়তো ও-ই বেটার বলতে পারবে ।

প্র: তোমাদের সম্পর্কের ব্যাপারে অনেকেই জানতেন....কিন্তু হঠাৎ কী সমস্যা হল? কোথায় অসুবিধা হচ্ছিল?

উ: সমস্যাটা খুবই ব্যক্তিগত । আমরা এখন আর টাচে নেই । তবে আমি সবসময় এটাই চাইব, দিয়া লাইফে আরও সাফল্য পাক ।

প্র: ভবিষ্যৎ নিয়ে কী ভাবছ? কবে সেটল করবে?

উ: আমার জীবনে এখন একটাই লক্ষ্য, কাজে ফোকাস করা । বিয়ে, প্রেম এ সব থেকে এ বার নিজেকে দূরে দূরে রাখছি ।

Published by:Simli Raha
First published: