June Maliya: অবশেষে বহু দিনের বাকি থাকা এক‌টি কাজ করলেন জুন মালিয়া! কী বললেন তারকা বিধায়ক

সোশাল মিডিয়া ব্যবহার করার ক্ষেত্রে বেশ কিছুটা পিছিয়ে ছিলেন জুন মালিয়া। কিন্তু এবার সোশাল মিডিয়ায় দেখা যাবে তাঁকে।

সোশাল মিডিয়া ব্যবহার করার ক্ষেত্রে বেশ কিছুটা পিছিয়ে ছিলেন জুন মালিয়া। কিন্তু এবার সোশাল মিডিয়ায় দেখা যাবে তাঁকে।

  • Share this:

#কলকাতা: বলি থেকে টলি। সব অভিনেতা অভিনেত্রীরা এখন সোশাল মিডিয়ায় সুপার অ্যাকটিভ। Instagram, Twitter, Facebook সবেতেই তাঁদের অবাধ বিচরণ। দৈনন্দিন জীবনের ছবি থেকে শুরু করে বিশেষ করে কোনও বার্তা সবকিছুই এখন সোশাল মিডিয়ার মাধ্যমে দিতে স্বাচ্ছন্দ বোধ করেন তাঁরা। কিন্তু এতদিন পর্যন্ত ব্যতিক্রম ছিলেন টলিউড অভিনেত্রী জুন মালিয়া (June Maliya)। তাঁর ছিল না কোনও Facebook অথবা Twitter অ্যাকাউন্ট। কিন্তু এবার তাঁকেও দেখা যাবে সোশাল মিডিয়ায়।

সোশাল মিডিয়া ব্যবহার করার ক্ষেত্রে বেশ কিছুটা পিছিয়ে ছিলেন জুন মালিয়া। কিন্তু এবার সোশাল মিডিয়ায় দেখা যাবে তাঁকে। ইতিমধ্যে তিনি Twitter ও Facebook অ্যাকাউন্ট খুলেছেন।

কেন সোশাল মিডিয়ায় অ্যাকাউন্ট খুলছেন জুন?

সোশাল মিডিয়ায় অ্যাকাউন্ট খোলার একমাত্র কারণ নিজের ফেক অ্যাকাউন্ট বন্ধ করা। জুন মালিয়ার নামে প্রচুর ফেক অ্যাকাউন্ট তৈরি হয়েছে। সেগুলি থেকে জুন মালিয়ার নামে বিভিন্ন ধরনের পোস্ট করা হচ্ছে। সেগুলি বন্ধ করতেই সোশাল মিডিয়ায় এসেছেন জুন।

এবিষয়ে জুন কী বলেছেন?

জুন বলেছেন, “আমার কাছে আর কোনও উপায় ছিল না। প্রচুর ফেক অ্যাকাউন্ট তৈরি হচ্ছিল। Twitter আর ফেসবুকে সেই সব অ্যাকাউন্টগুলি তৈরি করা হচ্ছিল। পরিস্থিতি আয়ত্বের বাইরে বেরিয়ে যাচ্ছিল। সেকারণেই আমার বন্ধুরা আমাকে Facebook এবং Twitter-এ অ্যাকাউন্ট খোলার কথা বলে। সেইমতো আমি অ্যাকাউন্ট খুলেছি। এবং এগুলি ভেরিফিকেশন করব। যদিও Facebook-এ ভেরিফিকেশন এখনও বাকি আছে। শুধু তাই নয়, যাঁরা আমার নামে ফেক অ্যাকাউন্ট বানিয়েছে তারা সোশাল মিডিয়ায় ভীষণ অ্যাকটিভ। সেকারণে আমার বন্ধুরা আমাকে সতর্ক করে দিয়েছে। এবং আমাকে অ্যাকাউন্ট খোলার কথা বলেছে।”

এবিষয়ে তিনি আরও বলেছেন, “আমি খুব ব্যক্তিগতভাবে থাকতে ভালোবাসি। আমি চাইনা আমি আমার ব্যক্তিগত জীবনে কী করছি তা অন্যকেউ জানুক। আমি চাই আমার কাজের বিষয়ে টেলিভিশন থেকে দর্শকরা জানুক।” এপ্রসঙ্গে তাঁর প্রশ্ন, কেন তাঁকে সবকিছু সোশাল মিডিয়ায় পোস্ট করতে হবে? এপ্রসঙ্গে তিনি বলেন, “আমার মনে হয়, সোশাল মিডিয়া একটি অন্যতম খারাপ নেশা। জীবনে সোশাল মিডিয়া ছাড়া আরও অনেক কিছু করার আছে। আমি মানসিক শান্তির জন্য সোশাল মিডিয়া থেকে দূরে থাকতে পছন্দ করি।”

Published by:Swaralipi Dasgupta
First published: