Home /News /entertainment /
KK’s manager : হোটেল না হাসপাতাল, অনুষ্ঠান শেষে কোথায় যেতে চেয়েছিলেন কেকে? জানালেন তাঁর ম্যানেজার

KK’s manager : হোটেল না হাসপাতাল, অনুষ্ঠান শেষে কোথায় যেতে চেয়েছিলেন কেকে? জানালেন তাঁর ম্যানেজার

রীতেশ জানিয়েছেন মঙ্গলবার সকাল থেকে দিব্যি সুস্থ ও স্বাভাবিক ছিলেন শিল্পী

রীতেশ জানিয়েছেন মঙ্গলবার সকাল থেকে দিব্যি সুস্থ ও স্বাভাবিক ছিলেন শিল্পী

KK’s manager : ‘উৎকর্ষ ২০২২’-এর আগে সকালে কেমন ছিলেন কেকে? জানিয়েছেন ওই সময়পর্বে যিনি শিল্পীর সবথেকে কাছে ছিলেন, কেকে-এর ম্যানেজার রীতেশ ভাট৷

  • Share this:

কলকাতা : গান গাইতে গাইতে কেকে-এর আকস্মিক বিদায় মেনে নিতে পারছেন না তাঁর অনুরাগীরা৷ সামাজিক মাধ্যমে দোষারোপের আঙুল উঠেছে উদ্যোক্তাদের দিকে৷ অভিযোগ করা হয়েছে অনুষ্ঠানের জায়গায় সুবন্দোবস্ত ছিল না৷ কিন্তু নজরুল মঞ্চে গুরুদাস কলেজের বার্ষিক অনুষ্ঠান ‘উৎকর্ষ ২০২২’-এর আগে সকালে কেমন ছিলেন কেকে? জানিয়েছেন ওই সময়পর্বে যিনি শিল্পীর সবথেকে কাছে ছিলেন, কেকে-এর ম্যানেজার রীতেশ ভাট৷

রীতেশ জানিয়েছেন মঙ্গলবার সকাল থেকে দিব্যি সুস্থ ও স্বাভাবিক ছিলেন শিল্পী৷ কোনওরকম অসুস্থতা বা অস্বস্তির উপসর্গ তাঁর মধ্যে দেখা যায়নি৷ শুধু তাই নয়৷ নিয়মশৃঙ্খলাবদ্ধ কেকে-এর এর আগেও অসুস্থতার রেকর্ড ছিল না বলেই জানিয়েছেন রীতেশ৷ তবে সেদিন অনুষ্ঠান করতে করতেই কেকে জানান মৃদু অস্বস্তির কথা৷ রীতেশ জানান অস্বস্তি হলেও মোহিত বলেন তিনি অনুষ্ঠান সম্পূর্ণ করবেন৷

অনুষ্ঠান শেষ হতে কেকে বলেন তাঁকে হোটেলে নিয়ে যেতে৷ তখনও তাঁকে রীতেশ জিজ্ঞাসা করেন, হোটেল নাকি হাসপাতাল? কোথায় যাবেন তিনি? উত্তরে তারকা গায়ক তাঁর ম্যানেজারকে বলেন হাসপাতাল নয়, তিনি হোটেলেই যাবেন৷ তাঁর কথামতো পাঁচতারা হোটেলেই নিয়ে যাওয়া হয় শিল্পীকে৷ সেখানে গিয়ে অস্বস্তি বেড়ে যায় অনেকটাই৷ ছবি তোলার জন্য ভিড় করে থাকা অনুরাগীদের নিরাশ করেন শিল্পী৷ এর পর অস্বস্তি ক্রমেই বাড়তে থাকায় তাঁকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়৷ কিন্তু তত ক্ষণে তিনি বিদায় নিয়েছেন জীবনের মঞ্চ ছেড়েই৷ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে চিকিৎসকরা তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করেন৷

আরও পড়ুন : চলে গেলেন কে কে, রেখে গেলেন অবিস্মরণীয় গান, তাঁর অন্য়তম সেরা ১০ গানের তালিকা

অনুষ্ঠান চলাকালীন কেকে-এর যে অস্বস্তি হচ্ছিল সে কথা বলেছেন অনেকেই৷ ঘামে তাঁর জামা ভিজে গিয়েছিল৷ ভ্যাপসা গরমে তাঁর গাইতে কষ্ট হচ্ছিল৷ বার বার তোয়ালে দিয়ে ঘাম মুছে নিচ্ছিলেন৷ সঙ্গে ছিল স্যালাইন ওয়াটার৷ তাও পান করেছেন৷ এক সময় নিজেই মঞ্চের পিছনে থাকা জোরালো আলো নিভিয়ে দিতে বলেন৷

আরও পড়ুন : ‘ব্যক্তিগত আক্রোশ থেকে নয়’, কেকে প্রসঙ্গে রূপঙ্করের পাশে দাঁড়ালেন দ্রোণ

আরও পড়ুন : কেকে পাড়ি দিলেন সুরলোকে, তাঁর ফেসবুকের সদ্য ছবিরা এখন স্মৃতির ঝাঁপি

তবে ঘর্মাক্ত শরীরে যত কষ্ট, যত অস্বস্তিই হোক না কেন, তার কোনও প্রভাব পড়েনি কেকে-এর পারফর্ম্যান্সে৷ মঞ্চে তিনি ছিলেন তাঁর মতোই প্রাণবন্ত৷ তাঁর গানের সুরে উদ্বেল করে তোলেন ভালবাসার প্রতি ‘পল’৷ তিনিই বলে গিয়েছেন বার বার, আগামিকাল তিনি না থাকলেও রয়ে যাবে মুহূর্তগুলি৷ রয়ে গেল মুহূর্তরা৷ মাইক্রোফোন হাতেই ‘অলবিদা’ জানিয়ে জীবনের মঞ্চ, গানের মঞ্চ থেকে চিরতরে নেমে গেলেন কৃষ্ণকুমার কুন্নথ৷

Published by:Arpita Roy Chowdhury
First published:

Tags: KK, KK Death

পরবর্তী খবর