corona virus btn
corona virus btn
Loading

Dil Bechara Review: সুশান্তের আবেগ নিয়েই ছবিটা দেখা হয়ে যায়, ছবিতেও পড়ে থাকে ‘আধখানা’ গল্প !

Dil Bechara Review: সুশান্তের আবেগ নিয়েই ছবিটা দেখা হয়ে যায়, ছবিতেও পড়ে থাকে ‘আধখানা’ গল্প !
Dil Bechara Movie Review

সুশান্তের শেষ ছবি ও পরিচালক মুকেশ ছাবড়ার প্রথম ছবি ‘দিল বেচারা’ আসলে মন খারাপের গল্প ৷

  • Share this:

#কলকাতা: কীভাবে এটা সম্ভব? কীভাবে একটা ছবির গল্প, বাস্তবের সঙ্গে মিলে যেতে পারে? কীভাবেই বা ২০১৮-২০১৯ ধরে শ্যুটিং চলা এই ছবি, ২০২০ সালের সুশান্তের মৃত্যুর সঙ্গে ‘কানেক্টেড’ ! হ্যাঁ, কানেক্টেড ! ‘দিল বেচারা’র ফিলোজফির সঙ্গে ৷ ছবির নায়ক-নায়িকা ইমানুয়াল রাজকুমার জুনিয়ার ও কিজি বসুর- বেঁচে থাকা ও  মৃত্যুর মাঝে সেতুর সঙ্গে যুক্ত ৷

সুশান্তের শেষ ছবি ও পরিচালক মুকেশ ছাবড়ার প্রথম ছবি ‘দিল বেচারা’ আসলে মন খারাপের গল্প ৷ মৃত্যুর কাছাকাছি দাঁড়িয়ে দুই ক্যানসারে আক্রান্ত মানুষের প্রেম, ইচ্ছে পূরণের গল্প ৷ যা কিনা ছবি শেষে ‘হাফডান’ ৷ ঠিক বাস্তবের সুশান্ত ৷

‘আমি অ্যাস্ট্রোনট ৷ নাসাতে যাব খুব শীঘ্রই !’ হ্যাঁ, এটা সুশান্তের মুখে, দিল বেচারার সংলাপ ৷ কিন্তু অবাক লাগে এটা তো বাস্তবেও চেয়েছিলেন সুশান্ত ! ‘আমি অনেক বড় বড় স্বপ্ন দেখি ৷ কিন্তু সেটা পূরণ হবে কিনা জানা নেই ! ’ এটাও দিল বেচারায় সুশান্তের মুখের সংলাপ ৷ দেখুন বাস্তবের সুশান্তের সঙ্গে কতটা মিল ৷ এরকমই তো বড় বড় স্বপ্ন দেখেছিলেন সুশান্ত ৷ কিনে ছিলেন চাঁদে জমি, ২০২৪ -এ যেতে চেয়েছিলেন চাঁদে ৷ কিন্তু হঠাৎই সব শেষ ! বাস্তবে দুম করে পরিণতি আসলেও, এই ছবিতে নিজের মৃত্যুকে ‘মাপতে’ পেরেছিলেন সুশান্ত ৷ তাই হয়তো স্বপ্ন পূরণের জন্য  ছুটছিলেন ৷ যা বাস্তবে পারলেন না হয়তো !

‘দিল বেচারা’ ছবির চিত্রনাট্য যতই মাঝারি মাপের, ছোটো-খাটো ভুলে ভরা হোক না কেন, সুশান্ত যে নেই, বাস্তবে তাঁর অভাবটাই সব খামতি ঢেকে দেয় ৷ গোটা ছবিটাই তাই আবেগে ডুব দিয়ে এক নিশ্বাসে দেখে ফেলা যায় ৷ কারণ, এই ছবিতে অন্য সব অভিনেতারা সুশান্তের ‘আবেগ’-এ ঢাকা পড়ে যায় ৷ তবুও সঞ্জনা চরিত্রে সঙ্গে মানানসই ৷ স্বস্তিকা ও শাশ্বত-র মতো ভাল অভিনেতারা শুধুই ছবিতে সুশান্তের ‘উজ্জ্বল ’ সাপোর্ট ৷

কিজি বসু (সঞ্জনা সাংভি) আর ম্যানি (সুশান্ত) ৷ দুজনেই ভুগছেন ক্যানসারে ৷ হেল্প সেন্টারে দুজনের আলাপ, বন্ধুত্ব, প্রেম ৷ একটা আধখানা গানের পূরণ হওয়ার পিছনে ছুটছেন দু’জনে ৷ এই গান আসলে তাঁদের দুজনের আধখানা জীবনের রূপক ৷ এই জার্নিটা একটা ক্যামেরায় বন্দি করছিলেন ছবিতে সুশান্তের বন্ধু জেপি ৷ সেও ক্যানসারে আক্রান্ত হয়ে অন্ধ হয়ে যায় ৷ তবে শ্যুট থেমে থাকে না, চলতে থাকে ক্যামেরা বন্দি হওয়ার গল্প ৷ ঠিক বাস্তবের মতো সিনেমাতেও, ম্যানি ওরফে সুশান্তের মৃত্যুর পর পর্দায় ফুটে ওঠে ম্যানি অর্থাৎ সুশান্তের সেই ক্যামেরায় বন্দি গল্প ! যেখানে তিনি নায়ক, নায়িকা কিজি বসু ওরফে সঞ্জনা ! আর শেষের চিঠি ... এক থা রাজা এক থি রানি.. অউর খতম কাহানি ৷ ‘

ছবির মান বিচারে ‘দিল বেচারা’ মাঝারি মাপের ছবি ৷ তবে সুশান্তের আবেগে ডুবে এই ছবি সব হিট-ফ্লপের উর্ধ্বে !

Published by: Akash Misra
First published: July 25, 2020, 12:58 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर