Home /News /entertainment /
Feluda Movie: সন্দীপ রায়ের পরিচালনায় ফের বড় পর্দায় ফেলুদার অভিযান, প্রদোষচন্দ্র মিত্রের ভূমিকায় কি ব্যোমকেশ?

Feluda Movie: সন্দীপ রায়ের পরিচালনায় ফের বড় পর্দায় ফেলুদার অভিযান, প্রদোষচন্দ্র মিত্রের ভূমিকায় কি ব্যোমকেশ?

সন্দীপ রায়ের পরিচালনায় ছবির মুক্তি আগামী ২৩ ডিসেম্বর

সন্দীপ রায়ের পরিচালনায় ছবির মুক্তি আগামী ২৩ ডিসেম্বর

Feluda Movie: এ তো গেল কৌতূহলের একাংশ৷ এ বার আসল প্রশ্ন, ফেলুদার চরিত্রে কে অভিনয় করবেন?

  • Share this:

    কলকাতা : সত্যজিৎ রায়ের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে তিনি একটা ছবি উপহার দেবেন৷ সে কথা আগেই জানিয়েছিলেন সন্দীপ রায় (Sandip Ray)৷ শুনে কল্পনার পারদ ক্রমেই চড়ছিল ফেলুভক্তদের৷ এ বার বড় পর্দায় কোন ফেলু অভিযান আসবে? কে হবেন ফেলুদা? নানা প্রশ্ন ঘুরপাক খাচ্ছিল৷

    অবশেষে কিছুটা হলেও জল্পনার অবসান৷ রবিবার জানা গেল পুরীতে প্রদোষচন্দ্র মিত্রের অভিযান (Hatyapuri) এ বার বড় পর্দায় আসতে চলেছে বড়দিনের ছুটিতে৷ রবিবার ছবির পোস্টার শেয়ার করেছেন অনির্বাণ ভট্টাচার্য (Anirban Bhattacharya)৷ ক্যাপশনে অভিনেতা লিখেছেন, ‘‘ফ্যাসিনেটিং-এই কথাটাও বোধহয় সঠিক বর্ণনা নয় মানিকবাবুর এই সৃষ্টির...ফেলুদা ফিরছে বড় পর্দায় আবার’’৷ এসভিএফ-এর ব্যানারে সন্দীপ রায়ের পরিচালনায় ছবির মুক্তি আগামী ২৩ ডিসেম্বর৷

    কিন্তু এ তো গেল কৌতূহলের একাংশ৷ এ বার আসল প্রশ্ন, ফেলুদার চরিত্রে কে অভিনয় করবেন? স্বভাবতই প্রশ্ন উঠেছে, তাহলে কি ব্যোমকেশই কি নতুন ফেলুদা? অনির্বাণের পোস্টে ভালালাগা ভালবাসার প্রতীক এসেছে প্রায় ১০ হাজার৷ মন্তব্য করেছেন অগণিত দর্শক তথা ফেলুভক্ত৷ প্রায় সকলেরই ধারণা, অনির্বাণ তা হলে পরবর্তী ফেলুদা৷ নেটিজেনরা লিখেছেন অনেক দিন ধরে এটাই তাঁদের ইচ্ছে৷ অবশেষে হয়তো তাঁদের ইচ্ছে পূর্ণ হতে চলেছে৷

    আরও পড়ুন : চোখে জল মুখে হাসি নিয়েই শপথপাঠ, গোলাবর্ষণের মধ্যেই বিয়ে প্রেমিক জুটির

    কিন্তু অনির্বাণ নিজে বা পরিচালক সন্দীপ রায়ের তরফে কিছুই জানানো হয়নি এই প্রসঙ্গে৷ ফেলুদার পরিচয় ভাঙেনি এসভিএফ-ও৷ গত বছরও ফেলুদার ছবি নিয়ে জল্পনা তুঙ্গে উঠেছিল যখন ইন্দ্রনীল সেনগুপ্ত ফেলুদা সমগ্র বইয়ের সঙ্গে চারমিনার হাতে ছবি শেয়ার করেছিলেন সামাজিক মাধ্যমে৷ প্রশ্ন উঠেছিল, তাহলে কি সন্তু কাকাবাবুর ‘মিশর রহস্যের’ হানি আল কাদিই পরবর্তী ফেলুদা? এরকমও শোনা গিয়েছিল তাঁর অডিশনও নেওয়া হয়েছে ফেলুদার ভূমিকায়৷ কিন্তু তার পর সব জল্পনা কল্পনাই চাপা পড়ে গিয়েছে৷

    প্রসঙ্গত ওটিটি মঞ্চে ফেলুদাকে এনেছেন সৃজিত মুখোপাধ্যায়৷ তাঁর পরিচালনায় টোটা রায়চৌধুরী হয়েছেন ফেলুদা, ‘ছিন্নমস্তার অভিশাপ’ এবং ‘যত কাণ্ড কাঠমান্ডুতে’ অভিযানে৷ এ বার নীলাচলে ফেলুদা-তোপসে-জটায়ুর অভিযান দেখতে অপেক্ষায় দর্শক ও ফেলুভক্তরা৷

    আরও পড়ুন :  সাদা জামদানিতে মন জয় বাংলার, আলিয়ার শ্বেতশুভ্র সাজে মজেছেন অনুরাগীরা

    সত্যজিৎ রায়ের লেখা ‘হত্যাপুরী’ মুক্তি পেয়েছিল ১৯৭৯ সালে, শারদীয়া সন্দেশ পত্রিকায়৷ বিরল পুঁথি ‘প্রজ্ঞাপারমিতাসূত্র’ ঘিরে পুরীর সৈকতে জমে উঠেছে অভিযান৷ জমজমাট গল্পে পুরী শেষে হয়ে ওঠে ‘হত্যাপুরী’৷ ফেলুভক্তদের পছন্দের অভিযানের তালিকায় এই উপন্যাস অন্যতম৷

    আরও পড়ুন গরম এসে গিয়েছে, এখনই এই প্রসাধনীগুলি রাখুন আপনার হাতের কাছে, ব্রণমুক্ত তরতাজা থাকুন গ্রীষ্মভর

    আপাদমস্তক বাঙালি ফেলুদাকে স্রষ্টা ‘দিপুদা’ করেছেন পরম যত্নে৷ গ্যাংটক, কাঠমাণ্ডুর মতো অতীতে বাঙালির অবশ্যগন্তব্য দিঘা-পুরী-দার্জিলিংয়েও বেড়াতে গিয়েছেন থ্রি মাস্কেটিয়ার্স৷ তোপসের সঙ্গে ফেলুদার  প্রথম রহস্য অভিযান দার্জিলিঙে৷ সে সময়ে জটায়ু ছিলেন না৷ পরে সত্যজিৎ লিখেছিলেন ‘দার্জিলিং জমজমাট’৷ অস্কারজয়ী পরিচালকের নিজের প্রিয় গন্তব্যে ছুটি তথা রহস্যের স্বাদে মজেছিলেন ফেলুদা—তোপসে-জটায়ু৷ দিঘায় অবশ্য কোনও রহস্যের জালে জড়িয়ে পড়েননি ফেলুদা৷ ‘অপ্সরা থিয়েটার মামলা’ অনুসন্ধানের সময় তোপসে, জটায়ুকে নিয়ে গিয়েছিলেন মাথার জট কাটিয়ে ক্ষণিকের অবসর উপভোগ করতে৷ এ বার দর্শকরা বড়দিনের ছুটিতে তাঁদের সঙ্গে বেড়াতে যাবেন পুরী, থুড়ি ‘হত্যাপুরী’-তে৷

    Published by:Arpita Roy Chowdhury
    First published:

    Tags: Anirban bhattacharya, Feluda, Sandip Ray

    পরবর্তী খবর