'চল ভাই ভাগাভাগি করে নি' ! প্রেমিকা হবে কার 'ফ্ল্যাটমেট'? লড়াইটা জানালেন দেবতনু

Devtanu

আমার চরিত্রটা দারুণ মজার। আমি আর ঐশ্বর্য প্রেমের সম্পর্কে আছি এই সিরিজে । এক ফ্ল্যাট শেয়ার করি।

  • Share this:

#কলকাতা: পাঁচ বছর ধরে প্রেমিকা রয়েছে আপনার সঙ্গে। না , বিয়ে নয়। লিভিং বলা যেতে পারে ! বলা যেতে এক ফ্ল্যাটের বন্ধু। প্রেমিকাই যদি ফ্ল্যাট মেট হয় তবে জমে দই। কিন্তু মানুষের মন সে বিগরাতে আর কত সময় লাগে ! ঠিক যেমনটা হয়েছে দেবতনু আর ঐশ্বর্যর সঙ্গে। এক সঙ্গে প্রেমিকের সঙ্গে ফ্ল্যাট শেয়ার করতে করতে বদলে যায় মত। পার্টনার বদল মানে বন্ধু শ্রমণেরর সঙ্গে এবার থাকবে ঐশ্বর্য। যেমন ভাবনা তেমন কাজ। দেবতনুকে ছেড়ে সোজা শ্রমণের ঘরে  ঐশ্বর্য ! কিন্তু তা মানবে কেন দেবতনু। 'চল ভাগাভাগি করে নিই' সোজা টানাটানি প্রেমিকাকে নিয়ে। তা শরীরটাই দু'ভাগ করে দেবে নাকি ! আড্ডা টাইমসে আসছে 'ফ্ল্যাটমেট'। সেই ভাগাভাগির গল্প ভাগ করে নিলেন দেবতনু।

 আপনি এই ফ্ল্যাটে এসে এমন প্রেমিকা পেলেন কি করে? 

হা হা করে হেসে বললেন, " আসলে 'ফ্ল্যাটমেট' খুব মজার একটা সিরিজ হতে চলেছে। একদম ইয়ং জেনরেশনের গল্প বলবে। পরিচালক অভ্র চক্রবর্তী দারুণভাবে কাজটা করেছেন।  অভ্রদার সঙ্গে কাজ করার মজাটাই আলাদা। এই ফ্ল্যাটমেট-এ ঢুকে পড়া একেবারেই অভ্রদার জন্য।

আপনার চরিত্রটা কেমন? 

আমার চরিত্রটা দারুণ মজার। আমি আর ঐশ্বর্য প্রেমের সম্পর্কে আছি এই সিরিজে । এক ফ্ল্যাট শেয়ার করি। তা হঠাৎ মনোমালিন্য। মাঝখানে ঢুকে পড়ে শ্রমণ। ওর সঙ্গে থাকবে নাকি আমার প্রেমিকা ! তাই হয় নাকি ! চল টানাটানি করি। আমার প্রেমিকা আমি নিয়ে যাবই। এই মজার ভিডিওটা সোশ্যাল মিডিয়াতেও বেশ জনপ্রিয় হয়েছে। আশা করি সকলে খুব মজা পাবে।

আপনি এর আগে কি কাজ করেছেন? 

সদ্য একটা কাজ করলাম। কয়েক দিন বাদেই বলব। তাছাড়া 'রেড অর্কিড' নামের একটা হিন্দি ছবিতেও কাজ করলাম। তবে আমার শুরু থিয়েটার দিয়েই। আমার একটা মিউজিক ভিডিও 'মনের মানুষ' খুব জনপ্রিয় হয়। সেটার পর থেকেই সকলের নজরে আসি। এর পর টলিউডে কাজ পেতে থাকি।

আর পড়াশুনো? 

আমি কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ার। দিল্লিতে ভালো চাকরি করতাম। রিজিওনাল ম্যানেজার ছিলাম। সে এক অন্য জীবন ছিল। সেই সঙ্গে থিয়েটারের নেশাটা ছিলই। তাই সব ছেড়ে আমি অভিনয়কেই বেছে নিই।

আর কি প্ল্যান আছে? 

আমি কর্মাশিয়াল ছবি করতে চাই। বাংলা ছবিকে গোটা বিশ্বের কাছে নিয়ে যেতে চাই। সাউথের ছবি যদি পারে তবে বাংলা কেন নয় ! বাংলা ছবির স্ক্রিপ্ট একটা সময় খারাপ হয়ে গিয়েছিল। কিন্তু এখন আবার দারুণ দারুণ কাজ হচ্ছে। কর্মাশিয়াল ছবিই তো আমাদের ভবিষ্যৎ। আমি চাই গোটা বিশ্ব জানুক বাংলা কর্মাশিয়াল ছবিকে। আর সেই কাজটাই আমি করতে চাই। আমাকে করতেই হবে। এটাই লক্ষ্য এখন। তাছাড়া আমি খুব ভালো ডান্স করি। সব দিক থেকেই নিজেকে তৈরি রাখছি। দেখা যাক।

'ফ্ল্যাটমেট' নিয়ে কতটা আশাবাদী?

এই সিরিজ সকলের ভালো লাগবেই। এমন একটা সাবজেক্ট যে ভালো না লেগে উপায় নেই। জুলাইয়ের শেষেই রিলিজ করছে। তখনই সবাই বুঝতে পারবে। এটা একটা দারুণ কাজ।

আপনি কেমন নায়ক হতে চান? 

কর্মাশিয়াল ছবি করতে চাই। তবে এখন তো গল্পই আসল নায়ক। গল্প ভালো হলে যেমন রোল হোক বা নায়ক আমি আছি। যেমন এই সিরিজের গল্প একবারে টানবে সকলকে। এখানে গল্পই নায়ক।

Published by:Piya Banerjee
First published: