• Home
  • »
  • News
  • »
  • entertainment
  • »
  • BOLLYWOOD RAM GOPAL VARMA ON AMIR KIRAN DIRECTOR WISHES A COLOURFUL FUTURE AND GAVE TROLLS A STRONG MESSAGE SANJ

Ram Gopal Varma On Amir-Kiran : আমির-কিরণকে 'রঙিন' শুভেচ্ছা! ট্রোলারদের কী জবাব দিলেন 'বন্ধু' রামগোপাল? 

আমির-কিরণ বিচ্ছেদ Photo : Collected

আমির খান (Amir Khan) এবং কিরণ রাও(Kiran Rao) কোনও মন্তব্য না করলেও বন্ধুর হয়ে ট্রোলারদের সপাটে জবাব দিয়েছেন বলি-পরিচালক রামগোপাল বর্মা (Ram Gopal Varma)।

  • Share this:

    #মুম্বই : শনিবারই নিজেদের বিচ্ছেদের কথা নেটমাধ্যমে যৌথ বিবৃতির মাধ্যমে ঘোষণা করেছেন আমির খান এবং কিরণ রাও। পনেরো বছরের দাম্পত্য জীবনে দাড়ি টানলেও ছেলে আজাদের দায়িত্ব যে সম্পূর্ণ দু'জনে মিলেই সামলাবেন তাঁরা, সেকথাও জানিয়েছেন এই 'প্রাক্তন' জুটি। এরপরেই নেটিজেনদের একাংশ তীব্র কটাক্ষ করা শুরু করে আমিরের বিরুদ্ধে। আমির খান (Amir Khan) এবং কিরণ রাও(Kiran Rao)  এই বিষয়ে কোনও মন্তব্য না করলেও বন্ধুর হয়ে ট্রোলারদের সপাটে জবাব দিয়েছেন বলি-পরিচালক রামগোপাল বর্মা (Ram Gopal Varma)।

    ট্রোলারদের উদ্দেশে ছোট করে হলেও কড়া ভাষায় 'রামু'-র ট্যুইট,' যখন নিজেদের বিচ্ছেদ নিয়ে আমির এবং কিরণ কারওর কোনও অসুবিধে নেই তাহলে পৃথিবীর অন্য কারও এই বিষয়ে নিয়ে অসুবিধে থাকার কথা নয়! আর থাকবেই বা কেন? অত্যন্ত নির্বোধের মতো ট্রোলিং করে নিজেদের নির্বুদ্ধিতার পরিচয় দিচ্ছে এই ট্রোলাররা যেখানে নিজেদের পেশাগত সম্পর্কে আগের মতোই অটুট রয়েছেন আমির এবং কিরণ দু'জনেই।'

    এরপর আরও একটি ট্যুইট আমির ও কিরণের ভবিষ্যৎ জীবন যেন আরও 'রঙ্গিলা' হয় তার জন্যও আন্তরিক শুভেচ্ছা জানিয়েছেন রামগোপাল। সেখানে তিনি লিখেছেন, 'তোমাদের জীবন ভবিষ্যতে আরও রংদার হয়ে উঠুক, আগের তুলনায় আরও অনেক বেশি 'রঙ্গিলা'!' এখানেই না থেমে বলি-পরিচালক আরও জানিয়েছেন যে ব্যক্তিগতভাবে তাঁর মনে হয় বিয়ের থেকেও বিবাহবিচ্ছেদ বেশি ভালোভাবে উদযাপন করা উচিৎ। এই কথার যুক্তি হিসেবে তাঁর দাবি, একটি বিবাহবিচ্ছেদের অন্যতম উপকরণ হিসেবে থাকে জ্ঞান এবং বুদ্ধি আর বিয়ের পিছনে থাকে নির্বুদ্ধিতা এবং জেদ!

    প্রসঙ্গত, তাঁদের বিবাহ বিচ্ছেদের ঘোষণা সংক্রান্ত বিজ্ঞপ্তিতে আমির আর কিরণ লিখেছেন, ”এই সিদ্ধান্ত হঠাৎ করে নয়। আমরা বহুদিন আগে থেকেই আলাদা হয়ে যাওয়া নিয়ে চিন্তা করছিলাম। শুধু সঠিক সময়ের জন্য অপেক্ষা করছিলাম। তবে এই সিদ্ধান্ত আমাদের সন্তান আজাদের উপর কোনওভাবেই প্রভাব পড়বে না। আমরা দু’জনেই আজাদকে বড় করে তুলব। একসঙ্গে ছবি ও পানি ফাউন্ডেশনের কাজ করব। আমাদের বন্ধু, আত্মীয়-পরিজনকে ধন্যবাদ আমাদের পাশে সব সময় থাকার জন্য। এই সময়টাতেও আপনাদের আর্শীবাদ ও শুভেচ্ছা চাই। এই বিবাহবিচ্ছেদকে কখনই শেষ হিসেবে নয়, বরং নতুন শুরু হিসেবে দেখার অনুরোধ করছি।”

    Published by:Sanjukta Sarkar
    First published: