• Home
  • »
  • News
  • »
  • entertainment
  • »
  • BOLLYWOOD MILIND SOMANS WIFE ANKITA KONWAR SAYS NORTHEAST PEOPLE CAN BECOME INDIANS ONLY AFTER WINNING A MEDAL SR

‘চিঙ্কি, করোনা নামে ডাকা হয়, মেডেল আনার পরেই আমরা ভারতীয় হই’, মুখ খুললেন অঙ্কিতা

সোশ্যাল মিডিয়ায় এ হেন জাতি বিদ্বেষ নিয়ে তীব্র শ্লেষ উগড়ে দিলেন অভিনেতা, সুপার মডেল মিলিন্দ সোমন ((Milind Soman)-এর স্ত্রী অঙ্কিতা কোনওয়ার (Ankita Konwar) ।

সোশ্যাল মিডিয়ায় এ হেন জাতি বিদ্বেষ নিয়ে তীব্র শ্লেষ উগড়ে দিলেন অভিনেতা, সুপার মডেল মিলিন্দ সোমন ((Milind Soman)-এর স্ত্রী অঙ্কিতা কোনওয়ার (Ankita Konwar) ।

  • Share this:

    #মুম্বই: ভারতে শুধু বর্ণ বৈষম্য নয়, জাতি বৈষম্যও প্রখরভাবে রয়েছে । আর দেশের অভ্যন্তরে থেকেও প্রতি নিয়ত তার শিকার হতে হয় উত্তর-পূর্ব ভারতের নাগরিকদের । তাঁদের ভারতীয় বলে মেনেই নেওয়া হয় না । আর সেই স্বীকৃতি জোটে অলিম্পিকে দেশের হয়ে মেডেল নিয়ে আসার পর । সোশ্যাল মিডিয়ায় এ হেন জাতি বিদ্বেষ নিয়ে তীব্র শ্লেষ উগড়ে দিলেন অভিনেতা, সুপার মডেল মিলিন্দ সোমন ((Milind Soman)-এর স্ত্রী অঙ্কিতা কোনওয়ার (Ankita Konwar) ।

    সম্প্রতি টোকিও অলিম্পিক (Olympic Games Tokyo 2020)-এ ভারত্তোলনে রুপো জিতে দেশে ফিরেছেন মীরাবাঈ চানু । এখনও পর্যন্ত তিনিই এ বছরের অলিম্পিকে দেশের মধ্যে একমাত্র পদক জয়ী । মীরাবাঈ ইম্ফলের মেয়ে । অলিম্পিকে পদক জেতার পর তাঁকে নিয়ে দেশে হৈ চৈ পড়ে গিয়েছে । আর এখানেই আপত্তি অঙ্কিতার । অঙ্কিতা নিজেও উত্তর-পূর্ব ভারতের মেয়ে । তাই নিজের অভিজ্ঞতা থেকেই সোশ্যাল মিডিয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন তিনি ।

    নিজের ইনস্টাগ্রামের দেওয়ালে অঙ্কিতা লিখেছেন, ‘‘তুমি যদি উত্তর-পূর্ব ভারতের বাসিন্দা হও, তা হলে তোমাকে ‘চিঙ্কি’, ‘নেপালি’, ‘চাইনিজ’, আর নবতম ‘করোনা’ নামে ডাকা হবে । একমাত্র তখনই তুমি ভারতীয় হবে, যখন অলিম্পিকে গিয়ে দেশের জন্য পদক নিয়ে আসবে তুমি ।’’ এই সমস্ত মানুষদের ‘হিপোক্রিট’ বলেও আখ্যা দিয়েছেন তিনি ।

    অঙ্কিতার এই পোস্টের পরে অনেকেই তাঁর সঙ্গে এক মত হয়েছেন । অনেকেই বলেছেন, এটা খুবই বেদনার ও দুঃখজনক । ২০১৮ সালে মুম্বইতে, একান্ত ব্যক্তিগত একটি পারিবারিক অনুষ্ঠানে তাঁর থেকে ২৬ বছরের বড় মিলিন্দ সোমন’কে বিয়ে করেছিলেন অঙ্কিতা । সেই থেকে সুখে শান্তিতে সংসার করছেন তাঁরা । অঙ্কিতা নিজেও একজন খেলোয়াড় । আর সেই সূত্রেই তাঁর আলাপ হয়েছিল মিলিন্দের সঙ্গে ।

    Published by:Simli Raha
    First published: