• Home
  • »
  • News
  • »
  • entertainment
  • »
  • AN EXCLUSIVE INTERVIEW OF FILM DIRECTOR TARUN MAJUMDER AFTER THE CLOSURE OF ELITE CINEMA HALL

এই প্রজন্ম মাল্টিপ্লেক্সে যায় পিকনিক করতে, ছবি দেখতে নয়: তরুণ মজুমদার

Tarun Majumder

এই প্রজন্ম মাল্টিপ্লেক্সে যায় পিকনিক করতে, ছবি দেখতে নয়: তরুণ মজুমদার

  • Share this:

    #কলকাতা:বন্ধ হয়ে গেল কলকতার জনপ্রিয় সিনেমা হল--'এলিট' । সমাপ্তি ৭৮ বছরের ইতিহাসের। তবে, এই নতুন নয়! মাল্টিপ্লেক্সের রমরমায়, বিগত বেশ কয়েক বছর ধরেই একে একে বন্ধ হয়ে যাচ্ছে সিঙ্গলস্ক্রিন। বিস্মৃতির পাতায় তলিয়ে যাচ্ছে 'ম্যাটিনি শো', 'লাইট ম্যান', 'ফ্রন্ট স্টল', 'বক্স', 'ব্যালকনি', 'বিশ কা তিশ'...!

    আজকে প্রজন্মর কাছে এই কালচারটা অনেকটা তালিন ভাষার মতো। তারা অভ্যস্থ মাল্টিপ্লেক্সের ঝাঁ-চকচকে কেতায়। এইসব ভাবতে ভাবতেই স্মৃতির সরণী ধরে হাঁটছিলেন প্রবীণ চিত্রপরিচালক তরুণ মজুমদার--

    চোখের সামনে একে একে বন্ধ হয়ে গেল মিনার্ভা, লাইট হাউজ, ভবানী, টাইগার, মেট্রো। এলিট-এ কলেজ জীবনে কত সিনেমা দেখেছি। এখন আর সব নাম মনে পরে না। তবে, একটা ছবি এখনও চোখের সামনে ভাসে--'জলজলা'। সব বন্ধুরা মিলে দেখতে গিয়েছিলাম। শচীন দেববর্মণ মিউজিক করেছিলেন।
    একরাশ আফসোস ঝরে পড়ল পরিচালকের কণ্ঠে,
    আজকের এই পরিস্থিতির জন্য দায়ী টেলিভিশন। টেলিভিশন মানুষকে বিনোদনের রসদ যোগায় ঠিকই, কিন্তু সিনেমার প্রতি ভালবাসা তৈরি করতে পারে না। টেলিভিশনে সবকিছুই সহজলভ্য! হাজারটা চ্যানেল, এটা ভাল লাগছে না, চ্যানেল ঘুরিয়ে দাও। আমরা মন দিয়ে বসে একটা সিনেমা দেখতাম, আজকের ছেলেপুলেদের মধ্যে সেই ধৈর্য কোথায়? এই  প্রজন্ম সিনেমা হলে সিনেমা দেখতে যায় না, পিকনিক করতে যায়! আর সেইজন্য মাল্টিপ্লেক্স আদর্শ জায়গা। সিনেমা কম দেখ, পপকর্ন বেশি খাও! সিনেমা হলের মালিকদেরও দোষ দিয়ে লাভ নেই। তাঁরা দেখছেন, তাঁদের হলে আর দর্শক আসে না। তারচেয়ে যদি হল ভেঙে মল তৈরি হয়, তা হলে অনেক বেশি লাভ হবে! তাঁরা সেটাই করছেন।

    First published: