'আমি তো দিব্যি বেঁচে আছি!' নিজের মৃত্যু খবর পেয়ে প্রতিক্রিয়া পটনা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন উপাচার্যের

পটনা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন উপাচার্য

হোয়াটসঅ্যাপে পাওয়া খবর থেকে ফেসবুকেও অধ্যাপক সিংহের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে শুরু করেন অনেকেই৷ শেষ অধ্যাপক শম্ভু নাথ সিংহকে নিজেই জানান যে তিনি সুস্থ ও জীবিত রয়েছেন৷

  • Share this:

    #পটনা: পটনা বিশ্ববিদ্যালয়ে (Patna University)এক অদ্ভুত ঘটনা ঘটেছে। করোনা কালে পটনা বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রচুর শিক্ষক-কর্মচারীর মৃত্যু হয়েছে যে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ও আধিকারিকদের মনোবল তলানিতে৷ মৃত্যুর খবর শুনলেই তাঁরা বিভ্রান্ত হয়ে পড়েছেন। এরই মধ্যে পটনা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন উপাচার্য অধ্যাপক শম্ভু নাথ সিংহের (Patna University former chancellor death news)আকস্মিক মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়ে৷ মূলত বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপকদের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে এই খবরটি জানানো হয়। এরপর থেকেই শুরু হয় শোকজ্ঞাপন৷ সকলে অধ্যাপক শম্ভু নাথ সিংহের আত্মার শান্তি কামনা করেন৷ হোয়াটসঅ্যাপে পাওয়া খবর থেকে ফেসবুকেও অধ্যাপক সিংহের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে শুরু করেন অনেকেই৷ তবে শোকবার্তা দিতে ব্যস্ত সকলে একবারও এই খবরের সত্যতা যাচাই করতে চাননি৷ কারণ এক্ষেত্রে অধ্যাপকের মৃত্যু হয়নি৷ ভুয়ো খবর (Fake death news in corona) ছড়িয়েছিল৷ শেষ অধ্যাপক শম্ভু নাথ সিংহকে নিজেই জানান যে তিনি সুস্থ ও জীবিত রয়েছেন৷

    পটনা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন উপাচার্য প্রফেসর রাসবিহারী সিং হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে ছিলেন। প্রাক্তন উপাচার্য শম্ভুনাথ সিংহকে তিনি করেন। তবে দু'বার ফোনটি বেজে যাওয়ার পরও শম্ভুনাথ বাবু ফোন উঠাননি৷ তাই মৃত্যুর খবর আরও জোরদার হয়ে যায়৷ তবে কিছুক্ষণের মধ্যে শম্ভুনাথ সিংহ নিজে ফোন করে জানান যে, তিনি বেঁচে রয়েছেন এবং দিল্লিতে রয়েছেন। শম্ভুনাথ সিংহ জানিয়েছিলেন যে কিছু লোক পাটনায় তাঁর মৃত্যুর খবর ছড়াচ্ছেন। নিজের মৃত্যুর খবর নিজেও পেয়েছেন তিনি৷ প্রাক্তন উপাচার্যের সঙ্গে কথা বলার পরে, অধ্যাপক রাসবিহারী সিং তাঁর শম্ভুনাথ বাবুর জীবিত থাকার খবর সকলকে জানিয়ে দেন৷

    আরও পড়ুন COVID Antibody Cocktail: দেশে নতুন ওষুধ, চিকিৎসার জন্য ব্যবহার হয়েছিল করোনা আক্রান্ত ট্রাম্পের

    পটনা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক গিরিশ কুমার চৌধুরী শম্ভুনাথ সিংহের সাথে কথা বলেন এবং তাঁর সুস্থতার খবর জানতে পেরেছিলেন। পটনা বিশ্ববিদ্যালয়ের ৩০ জন শিক্ষক ও কর্মচারীর করোনার সংক্রমণের কারণে মৃত্যু হয়েছে। এই ৩০ জনের মধ্যে অনেকে চাকরিরত ছিলেন আবার অনেকে অবসর নিয়েছিলেন৷

    Published by:Pooja Basu
    First published: