Bihar Coronavirus Deaths: করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের ফল? বিহারে নথিভুক্তই হয়নি ৭৫ হাজার মানুষের মৃত্যু!

বিহারে নথিভুক্তই হয়নি ৭৫ হাজার মানুষের মৃত্যু!

২০২১ সালের শুরু থেকেই করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের (Coronavirus 2nd Wave) কবলে পড়েছে গোটা দেশ। এই পরিস্থিতিতে শুরুর পাঁচ মাসের মধ্যে বিহারে (Bihar Coronavirus Deaths) প্রায় ৭৫০০০ মানুষের কী কারণে মৃত্যু হয়েছে তার সরকারি কোনও তথ্য নথিভুক্ত হয়নি।

  • Share this:

    #পটনা: ২০২১ সালের শুরু থেকেই করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের (Coronavirus 2nd Wave) কবলে পড়েছে গোটা দেশ। এই পরিস্থিতিতে শুরুর পাঁচ মাসের মধ্যে বিহারে প্রায় ৭৫০০০ মানুষের কী কারণে মৃত্যু হয়েছে তার সরকারি কোনও তথ্য নথিভুক্ত হয়নি। বিহারের সরকারি তথ্য অনুসারে, এই ব্যক্তিদের মৃত্যুর কারণ কোথাও উল্লেখ নেই। তবে কি এই মৃত্যুর কারণ করোনার দ্বিতীয় ঢেউ? বিহারের সরকারি পরিসংখ্যানে এই বিপুল মানুষের মৃত্যু উস্কে দিচ্ছে এমনই প্রশ্ন। সরকারি হিসেবে বিহারে যে পরিমাণ করোনায় মৃত্যু দেখানো হয়েছে, তার থেকে এই সংখ্যা প্রায় দশগুণ বেশি।

    ২০১৯ সালের জানুয়ারি থেকে মে মাসের মধ্যে বিহারে ১.৩ লক্ষ মানুষের করোনায় মৃত্যু হয়েছে বলে দেখানো হয়েছিল। ২০২১ সালের ওই একই সময়কালে মৃত্যুর হিসেব রয়েছে ২.২ লক্ষ মানুষের। রাজ্যের সিভিল রেজিস্ট্রেশন সিস্টেমে নথিভুক্ত হওয়া এই মৃত্যুর পরিসংখ্যানে প্রায় ৮২,৫০০ জনের মৃত্যুর সংখ্যার অমিল রয়েছে। এ বছরের মে মাসে এই মৃত্যুর অর্ধেকের ৬২ শতাংশ উল্লেখ করা হয়েছে এই তথ্যে।

    বিহারের সরকারি পরিসংখ্যানে ২০২১ সালের জানুয়ারি থেকে মে মাসের মধ্যে করোনায় মৃত্যুর সংখ্যা রয়েছে ৭,৭১৭ জন। এ মাসের শুরুর দিকে নতুন করে আরও ৩,৯৫১ জনের মৃত্যু নথিভুক্ত করা হয়েছে। যদিও এদের মৃত্যু কোন মাসে বা কবে হয়েছে তার স্পষ্ট করে কোনও উল্লেখ নেই তথ্যে। এর জেরে মনে করা হচ্ছে, এই বিপুল পরিমাণ মৃত্যু রাজ্যে করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়েরই বলি। সিভিল রেজিস্ট্রেশন সিস্টেমের উল্লেখ করা মৃত্যুর পরিসংখ্যান অনুযায়ী যাতে ৭৪ হাজার ৮০৮ জনের মৃত্যুর কোনও কারণ উল্লেখ করা নেই।

    এরই মধ্যে হাসপাতালে বা হাসপাতালের কোরিডোরে, এমনকী বাড়িতেও করোনাভাইরাসে (Coronavirus in Death) আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়ে থাকলে, সেই ব্যক্তির মৃত্যুর শংসাপত্রে কারণ হিসেবে করোনা উল্লেখ করা হবে। করোনায় মৃত প্রত্যেকের মৃত্যুকেই শংসাপত্র দিয়ে চিহ্নিত করা হবে। শনিবার মধ্যরাতে সুপ্রিম কোর্টে (Supreme Court) দাখিল হওয়া ১৮৩ পাতার এফিডেভিট (Affidavit) জমা করে এমনই প্রতিশ্রুতি দিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার। গত কয়েকদিন ধরেই মিডিয়ায় দেখানো হচ্ছিল, দেশের ৬টি রাজ্যে করোনায় মৃতদের যে হিসেব দেখানো হচ্ছে, তাতে বড়সড় গরমিল রয়েছে। তা নিয়ে সুপ্রিম কোর্টে মামলা করা হয়েছিল। সেই মামলার পরিপ্রেক্ষিতেই কেন্দ্রের এমন দাবি।

    Published by:Raima Chakraborty
    First published: