Home /News /business /
Price Hike: আটার পরে দাম বাড়ছে চালেরও, হিমশিম দশা মধ্যবিত্তের!

Price Hike: আটার পরে দাম বাড়ছে চালেরও, হিমশিম দশা মধ্যবিত্তের!

Price Hike: ইতিমধ্যেই উত্তরপ্রদেশ, বিহার এবং পশ্চিমবঙ্গের মতো রাজ্যে চালের দাম বেড়েছে প্রায় ১০ শতাংশ।

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: মুদ্রাস্ফীতির (Inflation) চাপে জেরবার আমজনতার জীবনও। কারণ ইতিমধ্যেই মুদ্রাস্ফীতির কোপ পড়েছে আটার মতো জরুরি খাদ্যশস্যে। ফলে দাম বেড়েছে আটার। আর এর পরেই দাম বাড়তে চলেছে চালেরও। দেশের বহু রাজ্যে চালের দাম বাড়ানো হয়েছে। সূত্রের খবর, ইতিমধ্যেই উত্তরপ্রদেশ, বিহার এবং পশ্চিমবঙ্গের মতো রাজ্যে চালের দাম বেড়েছে প্রায় ১০ শতাংশ।

আরও পড়ুন: এই মাল্টিব্যাগার স্টক ১ বছরে দিয়েছে বাম্পার রিটার্ন!আপনার পোর্টফোলিওতে কি রয়েছে?

এই প্রসঙ্গে জানিয়ে রাখা ভালো যে, সম্প্রতি চালের উপর থেকে আমদানি শুল্ক (Import Duty) ব্যাপক ভাবে কমানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে বাংলাদেশ (Bangladesh)। কারণ তাদের আশঙ্কা, গমের পরে চাল রফতানিও নিষিদ্ধ করতে পারে ভারত। তাই দেশে অভ্যন্তরীণ ভাবে চাল মজুত করে রাখতে তড়িঘড়ি ভারত থেকে চাল আমদানি শুরু করেছে বাংলাদেশ।

আসলে বাংলাদেশ সাম্প্রতিক কালে চালের আমদানি শুল্ক ও মাসুল ৬২.৫ শতাংশ থেকে কমিয়ে ২৫ শতাংশ করে দিয়েছে। এর আগে গত মাসে ভারত গম রফতানি নিষিদ্ধ করেছিল। যার ফলে রফতানিকারীরা আটা রফতানি বাড়িয়ে দিয়েছিল। ফলে ভারতের বাজারেও বেড়েছে আটার দাম। এখন বাংলাদেশের এই সিদ্ধান্তের পর বাড়তে চলেছে চালের দাম।

আটার পরে চালেরও মূল্য বৃদ্ধি:

এর প্রভাব পরে দেখা যাবে। বিশেষ করে বাসমতী চালের দাম বাড়বে। হিসেব অনুযায়ী, সর্বনিম্ন মানের বাসমতী চালের প্রতি কুইন্টালের দাম ১৫০৯। এই বার প্রতি কুইন্টালের দর ৩০০০ টাকার উপরে যেতে পারে। গত কয়েক দিন ধরেই জল্পনা ছিল যে, গমের পরে চাল রফতানি নিষিদ্ধ করতে পারে ভারত। আর ভারতের চাল রফতানিতে নিষেধাজ্ঞার সিদ্ধান্তের আশঙ্কায় আগে থেকেই চাল আমদানি করে মজুত রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বাংলাদেশ।

কেন বাড়ল চালের দাম?

আসলে রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের কারণে বিশ্বের অনেক দেশেই খাদ্যশস্যের ঘাটতি দেখা দিয়েছে। তার মধ্যে রয়েছে বাংলাদেশও। আর সেখানে সাধারণত চাল রফতানি করা হয় শুধুমাত্র উত্তরপ্রদেশ, বিহার এবং পশ্চিমবঙ্গ থেকেই। এছাড়া বাংলাদেশের বন্যায় ধান চাষ ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এই সব কারণেই বাংলাদেশ যত দ্রুত সম্ভব, চাল আমদানি করতে চায়।

আরও পড়ুন: Pre-Approved Loan-র অফার পেয়েছেন?এই বিষয় না জেনে সিদ্ধান্ত নিলে বড় ঝুঁকি হবে

বাংলাদেশের এই পদক্ষেপের প্রভাব কীরকম হবে?

বাংলাদেশের এই সিদ্ধান্তের প্রভাব পড়তে দেখা যাচ্ছে ভারতের বাজারে। গত চার-পাঁচ দিনে বাসমতী ছাড়া প্রতি টন অন্য ভারতীয় চালের দাম ৩৫০ ডলার থেকে বেড়ে ৩৬০ ডলার হয়ে গিয়েছে। বাংলাদেশের এই তড়িঘড়ি চাল আমদানির সিদ্ধান্তের পর ভারতের উত্তরপ্রদেশ, বিহার এবং পশ্চিমবঙ্গের মতো রাজ্যগুলিতে চালের দাম প্রায় ২০ শতাংশ বেড়ে গিয়েছে। এর প্রভাব থেকে অবশ্য বাদ যায়নি ভারতের অন্য রাজ্যগুলোও। সেখানে প্রায় ১০ শতাংশ পর্যন্ত বেড়েছে চালের দর।

আরও পড়ুন: টাকা বাঁচাতে কে না চায়! দেখে নিন সম্পত্তি বিক্রির উপরে ট্যাক্স ছাড় পাওয়ার উপায়!

একই সঙ্গে, অস্বাভাবিক ভাবে রফতানি বৃদ্ধি নিয়েও সতর্ক হয়ে উঠেছে কেন্দ্রীয় সরকার। গত ১৩ মে কেন্দ্রীয় সরকার গম রফতানি নিষিদ্ধ করেছিল। তা সত্ত্বেও প্রতি মাসে প্রায় এক লক্ষ টন আটা রফতানি করছে রফতানিকারীরা। এই অবস্থা চলতে থাকলে চালের দামও আরও বাড়বে বলে আশঙ্কা।

Published by:Dolon Chattopadhyay
First published:

Tags: Inflation, Rice Price

পরবর্তী খবর