Union
Budget 2023

Highlights

হোম /খবর /ব্যবসা-বাণিজ্য /
সহজেই রিস্ক ছাড়া টাকা ডবল করতে চান ? কোথায় টাকা রাখলে আপনার স্বপ্নপূরণ হতে পার

সহজেই রিস্ক ছাড়া টাকা ডবল করতে চান ? জেনে নিন কোথায় টাকা রাখলে আপনার স্বপ্নপূরণ হতে পারে

জেনে নেওয়া যাক এই স্কিমে টাকা দ্বিগুণ করতে কত বছর লাগবে।

  • Share this:

#কলকাতা: পোস্ট অফিসে বিনিয়োগ এবং সঞ্চয়ের অনেক স্কিম আছে। এগুলো নিশ্চিত রিটার্ন তো দেয়ই, গ্রাহকের কষ্টার্জিত টাকা থাকে নিরাপদে। পোস্ট অফিসের কিছু স্কিমে, ফিক্সড ডিপোজিট অ্যাকাউন্টের চেয়ে বেশি সুদের হারে টাকা পাওয়া যায়। আবার কিছু স্কিম দীর্ঘমেয়াদী বিনিয়োগে টাকা দ্বিগুণ করতে পারে। এখানে সে রকমই কিছু স্কিমের হদিশ দেওয়া হল। জেনে নেওয়া যাক এই স্কিমে টাকা দ্বিগুণ করতে কত বছর লাগবে।

এই স্কিমের মধ্যে রয়েছে পোস্ট অফিস টাইম ডিপোজিট, পোস্ট অফিস সেভিংস অ্যাকাউন্ট, পোস্ট অফিস রেকারিং ডিপোজিট, পোস্ট অফিস মাসিক আয় স্কিম, পোস্ট অফিস পাবলিক প্রভিডেন্ট ফান্ড, পোস্ট অফিস সিনিয়র সিটিজেন সেভিংস স্কিম, পোস্ট অফিস সুকন্যা সমৃদ্ধি অ্যাকাউন্ট, পোস্ট অফিস জাতীয় সঞ্চয় শংসাপত্র ইত্যাদি।

আরও পড়ুন: বিভিন্ন দোকানে শুরু হয়ে গিয়েছে ধনতেরসের অফার, দেখে নিন আজ কত হল সোনার দাম

কিষাণ বিকাশ পত্র: কিষাণ বিকাশ পত্র বার্ষিক চক্রবৃদ্ধি সুদের হারে বিনিয়োগকারীকে রিটার্ন দেয়। প্রতি বছর ৬.৯ শতাংশ হারে চক্রবৃদ্ধি সুদ মেলে। এই স্কিমে ১২৪ মাসে টাকা দ্বিগুণ হয়। অর্থাৎ যদি আজ কেউ এই স্কিমে ৫ লাখ টাকা বিনিয়োগ করেন তাহলে ১০ বছর ৪ মাস পর ১০ লাখ টাকা রিটার্ন পাওয়া যাবে। অর্থাৎ সময় লাগল ১০ বছর ৪ মাস। এই স্কিমে সর্বনিম্ন ১০০০ টাকা বিনিয়োগ করা যায়। সর্বোচ্চ বিনিয়োগের কোনও সীমা নেই। সরকার কিষাণ বিকাশ পত্রের শংসাপত্র ১০০০, ৫০০০, ১০০০০, ৫০,০০০ টাকা মূল্যে বিক্রি করে৷ এই স্কিমের অধীনে একাধিক অ্যাকাউন্ট খোলা যায়। কিষাণ বিকাশ পত্রে বিনিয়োগের ক্ষেত্রে কর ছাড়ের সুবিধাো মেলে। এতে আয়কর আইনের ৮০সি ধারায় আয়কর ছাড় নেওয়া যেতে পারে। শর্ত সাপেক্ষে মেয়াদ শেষের আগে টাকা তুলে নেওয়ার সুবিধাও আছে।

পোস্ট অফিস টাইম ডিপোজিট: এখানে সুদের সুবিধে সময়ের ভিত্তিতে পাওয়া যায়। টাকা দ্বিগুণ করার জন্য পোস্ট অফিসের টাইম ডিপোজিট হল সেরা স্কিম। এতে ১ থেকে ৩ বছর মেয়াদি আমানতের ওপর ৫.৮ শতাংশ হারে সুদ পাওয়া যাচ্ছে। একই সময়ে যদি কেউ এই স্কিম ৫ বছরের জন্য নেন তাহলে ৬.৭ শতাংশ হারে সুদ পাবেন। এতে বিনিয়োগ করলে গ্রাহকের অর্থ প্রায় ১৩ বছরে দ্বিগুণ হয়ে যাবে।

পোস্ট অফিস মাসিক আয় স্কিম: পোস্ট অফিসের মাসিক আয় প্রকল্পে অর্থ প্রায় ১০.৯১ বছরে দ্বিগুণ হয়৷ এতে গ্রাহক ৬.৭ শতাংশ হারে সুদের সুবিধা পাবেন।

আরও পড়ুন: ধনতেরসে সোনা কিনতে চান ? তাহলে অবশ্যই জেনে নিন কোন সময়টা সবচেয়ে শুভ

পোস্ট অফিস সিনিয়র সিটিজেনস সেভিংস স্কিম: ৬০ বছরের বেশি যে কোনও ব্যক্তি এই স্কিমে বিনিয়োগ করতে পারেন। অবসর গ্রহণের পর প্রবীণ নাগরিকদের নিয়মিত আয় প্রদানের লক্ষ্যে এটি তৈরি করা হয়েছে। এছাড়াও যারা ভিআরএস নিয়েছেন তারাও এই স্কিমের সুবিধা নিতে পারেন। পোস্ট অফিসের সিনিয়র সিটিজেন সেভিংস স্কিমে ৯.৭৩ বছরে টাকা দ্বিগুণ হবে। এতে ৭.৬ শতাংশ হারে সুদের সুবিধে পাওয়া যায়।

পোস্ট অফিস সেভিংস অ্যাকাউন্ট: পোস্ট অফিস সেভিংস অ্যাকাউন্টে টাকা দ্বিগুণ করতে প্রায় ১৮ বছর সময় লাগে। মাথায় রাখতে হবে, এই স্কিমে টাকা দ্বিগুণ করতে সবচেয়ে বেশি সময় নেয় কারণ এতে সুদের হার কম। বর্তমানে গ্রাহকরা ৪ শতাংশ হারে সুদ পাচ্ছেন।

পোস্ট অফিস রেকারিং ডিপোজিট: পোস্ট অফিসে রেকারিং ডিপোজিটে টাকা দ্বিগুণ হতে সময় লাগে ১২.৪১ বছর। এতে ৫.৮ শতাংশ হারে সুদের সুবিধে পাওয়া যায়।

পোস্ট অফিস ন্যাশনাল সেভিংস সার্টিফিকেট: ডাকঘরের ন্যাশনাল সেভিংস সার্টিফিকেটে ৬.৮ শতাংশ হারে সুদ পাওয়া যায়। ৫ বছরের এই সঞ্চয় প্রকল্পে বিনিয়োগ করলে প্রায় ১০.৫৯ বছরে টাকা দ্বিগুণ হয়ে যাবে।

পোস্ট অফিস সুকন্যা সমৃদ্ধি যোজনা: এই স্কিম শুধুমাত্র মেয়েদের জন্য। এখানে ৭.৬ শতাংশ হারে সুদ মিলবে। সুকন্যা সমৃদ্ধি যোজনায় টাকা বিনিয়োগ করলে ৯.৪৭ বছরে টাকা দ্বিগুণ হয়ে যাবে।

পোস্ট অফিস পিপিএফ: পিপিএফকে আজকের সময়ে বিনিয়োগের সেরা বিকল্প হিসাবে বিবেচনা করা হয়। এতে ৭.১ শতাংশ হারে সুদ পাওয়া যাচ্ছে। এছাড়া এই স্কিমে ১০.১৪ বছরে টাকা দ্বিগুণ হয়ে যায়।

এই প্রসঙ্গে বলে রাখা উচিত, বহুদিন পর কেন্দ্রীয় সরকার কিছু ক্ষুদ্র সঞ্চয় প্রকল্পের সুদের হার বাড়িয়েছে। ১ অক্টোবর থেকে তা কার্যকর হয়েছে। বিনিয়োগের জন্য নিরাপদ বিকল্প খুঁজলে পোস্ট অফিস সেভিংস স্কিম ভাল বিকল্প হতে পারে।

Published by:Dolon Chattopadhyay
First published:

Tags: India Post, Post Office Savings Schemes