Home /News /business /
Pfizer Stocks: ৩৫০% লভ্যাংশ দিতে পারে এই মিড ক্যাপ ফার্মা কোম্পানি, জেনে নিন বিশেষজ্ঞদের মত!

Pfizer Stocks: ৩৫০% লভ্যাংশ দিতে পারে এই মিড ক্যাপ ফার্মা কোম্পানি, জেনে নিন বিশেষজ্ঞদের মত!

প্রতীকী ছবি ৷

প্রতীকী ছবি ৷

২০২১ সালের মার্চের তুলনায় Pfizer ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছে। তা সত্ত্বেও, কোম্পানিটি ৩৫ টাকা লভ্যাংশের ঘোষণা করেছে।

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: ২০২২ সালের মার্চ মাসে ফলাফল প্রকাশ করেছে ফার্মা কোম্পানি ফাইজার (Pfizer)। শেয়ারবাজারে দাখিল করা নথি অনুসারে, কোম্পানির মোট আয় অর্থাৎ মোট রাজস্ব বার্ষিক ভিত্তিতে প্রভাবিত হয়েছে। চতুর্থ ত্রৈমাসিকে কোম্পানির মোট আয় দাঁড়িয়েছে ৫৬৬.৭৮ কোটি টাকা, যেখানে ২০২১ সালের একই সময়ে কোম্পানির মোট আয় ছিল ৫৭১.৯৬ কোটি টাকা। ২০২১ সালের মার্চের তুলনায় Pfizer ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছে। তা সত্ত্বেও, কোম্পানিটি ৩৫ টাকা লভ্যাংশের ঘোষণা করেছে।

ফাইজার লিমিটেড বিএসইকে জানিয়েছে যে কোম্পানির পরিচালনা পর্ষদ ২০ মে অনুষ্ঠিত বৈঠক ৩১ মার্চ, ২০২২-এ শেষ হওয়া আর্থিক বছরের জন্য প্রতি ইক্যুইটি শেয়ার প্রতি ৩৫ টাকা লভ্যাংশের সুপারিশ করেছে। এই কোম্পানির শেয়ারের অভিহিত মূল্য ১০ টাকা অর্থাৎ কোম্পানি প্রতিটি শেয়ারে ৩৫০ শতাংশ লভ্যাংশ দেবে। Pfizer বলেছে যে বার্ষিক সাধারণ সভায় (AGM) কোম্পানিটি যদি অনুমোদিত হয় তবে ২০২২ সালের ২৩ সেপ্টেম্বর বা তার আগে এটি পরিশোধ করবে।

আরও পড়ুন: দুরন্ত সুযোগ! সহজেই মালমাল, ১ লক্ষ বেড়ে ৬১ লাখ টাকা, আপনার কাছে কি এই স্টক আছে?

নেট মুনাফা বৃদ্ধি

বার্ষিক ভিত্তিতে কোম্পানির নেট মুনাফা বেড়েছে। ২০২১ সালের মার্চ মাসে, যেখানে এই কোম্পানির নেট মুনাফা ছিল ১০০.৫৫ কোটি টাকা, এবছর তা বেড়ে হয়েছে ১২৫.৭৯ কোটি টাকা। প্রসঙ্গত, তৃতীয় ত্রৈমাসিকের তুলনায় নেট মুনাফাতেও ক্ষতি হয়েছে কোম্পানির। তৃতীয় ত্রৈমাসিকে কোম্পানির নেট মুনাফা ছিল ১৪৩.৯১ কোটি টাকা, অর্থাৎ তৃতীয় ত্রৈমাসিকের তুলনায় কোম্পানিটির নেট মুনাফা ১২.৫৯ শতাংশ কমেছে।

আরও পড়ুন: e-challan কাটলে চিন্তা করার প্রয়োজন নেই, জেনে নিন পেমেন্ট করার পদ্ধতি!

কেন বিনিয়োগ করা উচিত?

বাজার বিশেষজ্ঞরা মনে করেন যে আমেরিকান ফার্মা কোম্পানির ভারতীয় শাখা ফাইজার আর্থিক অবস্থার খুব একটা ভালো ছবি দেয়নি, তাই এই স্টক কেনা আপাতত এড়িয়ে যাওয়া উচিত। শুধু লভ্যাংশ দেখে এই শেয়ার কেনা উচিত নয় বলে মনে করেন তাঁরা। শুক্রবার, বিএসইতে এই স্টকটির দাম ২.০৬ বেড়ে ৪৩৫২ টাকা হয়েছে।

সম্প্রতি ভারতীয় স্টক মার্কেটে পতন দেখা দিয়েছে। সূচকে ক্রমাগত অস্থিরতা লক্ষ্য করা গিয়েছে এবং প্রায় বেশিরভাগ কোম্পানির শেয়ারের দামে পতন দেখা গিয়েছে। বিশেষজ্ঞদের মতে আগামী দিনে বাজারের অস্থিরতা আরও বেশি বাড়তে পারে। স্টক মার্কেটের অবনতির পেছনে অনেকগুলো ছোট-বড় কারণ রয়েছে যার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হল ফরেক্স রিজার্ভ হ্রাস এবং বিদেশি বিনিয়োগকারীদের (FII) ভারতীয় শেয়ার মার্কেট থেকে লগ্নি তুলে নেওয়া।

First published:

Tags: Share Market, Stock

পরবর্তী খবর