Home /News /business /
ব্যাঙ্কে এফডি করছেন? দেখে নিন ট্যাক্স ছাড় পাবেন কীভাবে, মিলবে কী কী সুবিধা!

ব্যাঙ্কে এফডি করছেন? দেখে নিন ট্যাক্স ছাড় পাবেন কীভাবে, মিলবে কী কী সুবিধা!

যাঁরা ঝুঁকি এড়িয়ে নিরাপদ বিনিয়োগ করতে চান, তাঁরাই ফিক্সড ডিপোজিট করান।

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: ভারতে বিনিয়োগের অন্যতম জনপ্রিয় মাধ্যম হল ফিক্সড ডিপোজিট। মধ্যবিত্তের চাকরিজীবনের ফসল, অবসরযাপনের নিরাপদ আশ্রয়। নির্দিষ্ট মেয়াদে এককালীন মোটা টাকা বিনিয়োগ করা হয়। তার উপর সুদ দেয় ব্যাঙ্ক। বিশেষজ্ঞরা বলেন, সাধারণত যাঁরা ঝুঁকি এড়িয়ে নিরাপদ বিনিয়োগ করতে চান, তাঁরাই ফিক্সড ডিপোজিট করান। এখানে ফিক্সড ডিপোজিট কীভাবে কাজ করে, এর বৈশিষ্ট, ট্যাক্স ছাড় মেলে কিনা, কীভাবে বাছাই করতে হবে, সেই সংক্রান্ত কিছু জরুরি বিষয় ঝালিয়ে নেওয়া।

আরও পড়ুন: ব্যাঙ্ক ডিপোজিটের থেকে রেকারিং ডিপোজিট লাভজনক কেন? জেনে নিন...

ব্যাঙ্কে ফিক্সড ডিপোজিটের বৈশিষ্ট এবং সুবিধা:

ক) ফিক্সড ডিপোজিটে সুদের হার নির্দিষ্ট। বিনিয়োগের সময়ই তা নির্ধারণ হয়ে যায়। এরপর বাজারের ওঠানামার সঙ্গে সুদের হারে তার প্রভাব পড়ে না। তাই অন্যান্য বিনিয়োগের থেকে ফিক্সড ডিপোজিট অনেক নিরাপদ।

খ) ফিস্কড ডিপোজিটে সর্বোচ্চ বিনিয়োগের কোনও সীমা নেই। আবার একইসঙ্গে একাধিক ফিক্সড ডিপোজিট খোলা যায়। তাই বিনিয়োগকারীরা একাধিক ফিক্সড ডিপোজিট থেকে বিভিন্ন সুদের হার পেতে পারেন।

গ) সাধারণভাবে যে কোনও ফিক্সড ডিপোজিটে বিনিয়োগের সময় হল ৫-৭ বছর। তবে অনেকে ১০ বছরের জন্যেও বিনিয়োগ করা যায়। তবে খেয়াল রাখতে হবে, নির্দিষ্ট সময়ের আগে কখনওই ফিক্সড ডিপোজিটের টাকার অঙ্ক ভাঙানো উচিত নয়।

ঘ) মেয়াদ শেষে নিশ্চিত রিটার্ন পাবেন বিনিয়োগকারীরা। সুদের হার মাসিক, ত্রৈমাসিক নাকি বার্ষিক ভিত্তিতে যোগ হবে, তা বেছে নেওয়ার বিকল্পও রয়েছে।

আরও পড়ুন: দেশের ৪টি বড় ব্যাঙ্ক বদলাল তাদের বেশ কিছু নিয়ম, জেনে নিন না হলে পড়তে হবে সমস্যায়

ঙ) নিশ্চিত রিটার্ন ছাড়াও ফিক্সড ডিপোজিটে বিমা, ট্যাক্স ছাড়, ওভারড্রাফট-সহ একাধিক সুবিধা মেলে। ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে জমা টাকার বেশি তোলা যায় এই ওভারড্রাফট সুবিধার মাধ্যমে। তবে একটি নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে এই অতিরিক্ত টাকার জন্য সুদ দিতে হয় গ্রাহকদের। প্রতিদিনের ভিত্তিতে এই সুদ চার্জ করে ব্যাঙ্ক কর্তৃপক্ষ।

ফিক্সড ডিপোজিটে কর ছাড়: ট্যাক্স সেভিংস ফিক্সড ডিপোজিটে বিনিয়োগ করলে ৮০সি ধারার আওতায় দেড় লক্ষ টাকা পর্যন্ত কর ছাড়ের সুবিধা মিলবে। এর জন্য ১৫জি ফর্ম পূরণ করে আবেদন করতে হবে। প্রবীন নাগরিকদের জন্য ১৫এইচ ফর্ম। শুধু তাই নয়, প্রবীন নাগরিকরা ৮০টিটিবি ধারায় অতিরিক্ত ৫০ হাজার টাকা কর ছাড়ের জন্য আবেদন করতে পারেন।

কারা ফিক্সড ডিপোজিট খুলতে পারবেন: ১। ভারতের স্থায়ী বাসিন্দা, ২। অনাবাসী ভারতীয় (এনআরআই), ৩। অপ্রাপ্তবয়স্ক, ৪। প্রবীণ নাগরিক, ৫। কোম্পানি, ৬। অংশিদারী সংস্থা, ৭। যৌথ বিনিয়োগকারী, ৮। একক মালিকানা।

আরও পড়ুন: জারি আজকের পেট্রোল-ডিজেলের দাম, দেখে নিন আপনার শহরে কত

ভালো রিটার্নের জন্য নিজের সঞ্চিত অর্থ বিনিয়োগ করার আগে সেই সম্পর্কে খুঁটিনাটি জেনে নেওয়া আবশ্যিক। বিভিন্ন ব্যাঙ্কে ফিক্সড ডিপোজিটের সুদের হারও আলাদা। সেটাও তুলনা করে দেখে নিতে হবে। বাজারে বিভিন্ন রকম ফিক্সড ডিপোজিট হয়- ট্যাক্স-সেভিং ফিক্সড ডিপোজিট, কিউমুলেটিভ ফিক্সড ডিপোজিট, নন-কিউমুলেটিভ ফিক্সড ডিপোজিট, ফ্লেক্সি ফিক্সড ডিপোজিট। এর ভালো-মন্দ বিনিয়োগকারীকেই যাচাই করে নিতে হবে।

Published by:Dolon Chattopadhyay
First published:

Tags: Fixed Deposit, Investment

পরবর্তী খবর