হোম /খবর /বীরভূম /
রবিশস্যের ক্ষতি থেকে বাঁচতে বাংলা শস্য বিমা যোজনা

Birbhum News: রবিশস্যের ক্ষতি থেকে বাঁচতে বাংলা শস্য বিমা যোজনা, বীরভূমে শুরু হল আবেদন

X
title=

রাজ্যের কৃষকদের পাশে দাঁড়ানোর জন্য পশ্চিমবঙ্গ সরকারের তরফ থেকে চালু করা হয়েছে বিমা প্রকল্প। এই প্রকল্পের নাম দেওয়া হয়েছে বাংলার শস্য বিমা। এই প্রকল্পে নাম নথিভূক্ত করার কৃষকরা তাদের ফসলের ক্ষতি হলে সরকারের তরফ থেকে ক্ষতিপূরণ পেয়ে থাকেন এবং লোকসানের মুখ থেকে রক্ষা পান।

আরও পড়ুন...
  • Hyperlocal
  • Last Updated :
  • Share this:

#বীরভূম : রাজ্যের কৃষকদের পাশে দাঁড়ানোর জন্য পশ্চিমবঙ্গ সরকারের তরফ থেকে চালু করা হয়েছে বিমা প্রকল্প। এই প্রকল্পের নাম দেওয়া হয়েছে বাংলার শস্য বিমা। এই প্রকল্পে নাম নথিভূক্ত করার কৃষকরা তাদের ফসলের ক্ষতি হলে সরকারের তরফ থেকে ক্ষতিপূরণ পেয়ে থাকেন এবং লোকসানের মুখ থেকে রক্ষা পান। খরিফ শস্য এবং রবিশস্য সব ফসলের ক্ষেত্রেই এই বিমার প্রচলন রয়েছে। বর্তমানে রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় রবিশস্য ফসল ফলানো চলছে। যে কারণে রবিশস্য ফসলের জন্য যাতে কৃষকরা এই বিমার আওতায় নিজেদের নাম নথিভুক্ত করেন তার জন্য বীরভূমে একটি ট্যাবলোর উদ্বোধন করা হল এবং সেই ট্যাবলোর উদ্বোধন করলেন বীরভূম জেলাশাসক বিধান রায়।

বাংলা শস্য বিমা রবি ২০২২-২৩, গম, ছোলা, মুসুরি, খেসারি, সরষে, ভুট্টা, আলু, বোরো ধান, মুগ, তিল, বাদাম ও আখ ইত্যাদি ফসলের জন্য এই বিমার সুবিধা পাবেন চাষিরা। এক্ষেত্রে আলু, গম, রবি ভুট্টা, ছোলা, মুসুরি, খেসারি, সরষে ফসলের জন্য চাষীদের আবেদন করার শেষ দিন হল ৩১ ডিসেম্বর। বোরো ধানের জন্য আবেদন করার শেষ তারিখ ৩১ জানুয়ারি ২০২৩ এবং ভুট্টা, মুগ, তিল, বাদাম ও আখের জন্য আবেদন করার শেষ তারিখ হল ১৫ মার্চ ২০২৩।

আরও পড়ুনঃ একই রাতে দুই থানা এলাকায় উদ্ধার অত্যাধুনিক আগ্নেয়াস্ত্র! গ্রেফতার দুই

আবেদন করার ক্ষেত্রে চাষীদের যে সকল নথির প্রয়োজন হবে সেগুলি হল ভোটার আইডি কার্ড, আধার কার্ড, নিজের নামে ব্যাংকের পাস বই, খতিয়ান বা পর্চা বা দলিলের প্রতিলিপি জমা দিতে হবে। ব্যাংকের পাস বইয়ের পরিবর্তে বাতিল চেক দেওয়া যেতে পারে। যদি কোন চাষীর নিজের নামে জমি না থাকে তাহলে চাষের জমির আয়তন সমেত শংসাপত্র গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধান থেকে নিয়ে জমা করতে হবে। এর পাশাপাশি ফসল রোপনের শংসাপত্র জমা দিতে হবে।

আরও পড়ুনঃ ৬০ আদিবাসী আশ্রমিকের ভবিষ্যৎ অথৈ জলে! সরকারি সাহায্যের আবেদন

বিমার নথিভুক্ত করার জন্য চাষীদের নিকটবর্তী গ্রাম পঞ্চায়েত স্তরে বীমা সংস্থার প্রতিনিধিদের সঙ্গে অথবা বিমা সংস্থার টোল ফ্রি নম্বর ১৮০০ ৫৭২০২৫৮ নম্বরে যোগাযোগ করতে হবে। বীরভূম জেলাশাসক বিধান রায় জানান, বীরভূমের চাষীরা যাতে সরকারের এই বাংলা শস্য বিমা যোজনা আওতায় নিজেদের নাম নথিভুক্ত করার জন্য আরও বেশি আগ্রহী হন তার জন্য এই ট্যাবলোর উদ্বোধন করা হয়েছে। এই ট্যাবলোটি জেলার বিভিন্ন প্রান্তে ঘুরে প্রচার চালাবে।

Madhab Das
Published by:Soumabrata Ghosh
First published:

Tags: Birbhum