Home /News /bankura /
Bankura: পুকুরের জলে বিষক্রিয়া! মৃত কয়েক কুইন্টাল মাছ

Bankura: পুকুরের জলে বিষক্রিয়া! মৃত কয়েক কুইন্টাল মাছ

শত্রুতার জেরে পুকুরে বিষ প্রয়োগ। তার ফলে পুকুরের জলে ভেসে উঠল মৃত কুইন্টল কুইন্টাল মাছ। ঘটনাটি ঘটেছে শালতোড়ার ঢেকিয়া অঞ্চলের পাবয়া গ্রামে।

  • Share this:

    #বাঁকুড়া: শত্রুতার জেরে পুকুরে বিষ প্রয়োগ। তার ফলে পুকুরের জলে ভেসে উঠল মৃত কুইন্টল কুইন্টাল মাছ। ঘটনাটি ঘটেছে শালতোড়ার ঢেকিয়া অঞ্চলের পাবয়া গ্রামে। আর এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে চাঞ্চল্য এলাকাজুড়ে। স্থানীয় সূত্রে জানা যায় সাতসকালে পাবয়া গ্রামের মিঝান পুকুরের জলে ভেসে উঠে কুইন্টাল কুইন্টাল মরা মাছ। যা দেখে রীতিমতো হতভম্ব এলাকাবাসী। পুকুরের মৎস্য চাষী স্থানীয়দের অভিযোগ কেউ বা কারা শত্রুতার জেরে এই পুকুরের জলে বিষক্রিয়া ঘটিয়েছে। যার কারনে পুকুরের সমস্ত মাছ মারা যায়। পুকুরের জল থেকে উদ্ধার হয়েছে বিষাক্ত কীটনাশকের বোতল। এই ঘটনায় ব্যাপক ক্ষতির সম্মুখীন হয় এই পুকুরের মৎস্য চাষী দিনেশ ধীবর। এই ঘটনার তদন্তের দাবি জানিয়েছেন তিনি। দিনেশ ধীবর নামে ওই পুকুরের মৎস্য চাষী বলেন পূর্বপুরুষ আমল থেকেই তারা এই পুকুরে মাছ চাষ করে আসছেন তিন চার দিন ধরে লক্ষ্য করেন এই পুকুরে মাছ মারা যাচ্ছিল।

     

     

    তবে মাছগুলির মরার কারণ পরিষ্কার হচ্ছিল না। প্রথমে অনুমান ছিল হয়তো গ্যাসের কারণেই মাছগুলি মারা যাচ্ছে এই কারণে সেই গ্যাস মারার জন্য প্রায় ৬০ কেজির মত চুন দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু তারপর দেখা গেল পুকুরে মাছগুলিকে মারার জন্য কীটনাশক ঔষধ প্রয়োগ করা হয়েছে।

    আরও পড়ুনঃ কর্ম বিরতির ডাক দিলেন শালতোড়ার আশা কর্মীরা

     

     

    ভোরে মাছ ধরার সময় মাছের জালে একটি বিষাক্ত কীটনাশকের বোতল পাওয়া যায়। তিনি বলেন মাছ প্রায় ছয় থেকে সাত কুইন্টালের মত ছিল। প্রায় দুই থেকে আড়াই কুইন্টাল মাছ মারা গেছে দুই তিন দিন ধরে। প্রায় ১৫০ গ্রাম থেকে দু কিলো পর্যন্ত মাছ চাষ হতো এই পুকুরে।

    আরও পড়ুনঃ গ্রামের রাস্তার বেহাল দশা! সমস্যায় গ্রামবাসীরা

     

     

    তবে এই ক্ষতির সম্মুখীন হয়ে সরকার থেকে সাহায্যের আবেদন জানান তিনি। এই পুকুরে শুধু মাছ চাষ নয় এলাকার স্থানীয় মানুষজনও স্নান করেন এই পুকুরের জলে। কিছু সময় রান্নার কাজেও লাগে এই পুকুরের জল। তাই এই বিষ মিশানোর ফলে একরাশ আতঙ্ক গ্রাস করেছে গ্রামবাসীদের।

     

     

     

    Joyjiban Goswami

    Published by:Soumabrata Ghosh
    First published:

    Tags: Bankura

    পরবর্তী খবর