Home /News /west-midnapore /
Paschim Medinipur: কাদায় আটকে রোগীর গাড়ি! বিপাকে পরিজনেরা

Paschim Medinipur: কাদায় আটকে রোগীর গাড়ি! বিপাকে পরিজনেরা

title=

বর্ষার শুরুতেই গ্রামের রাস্তার অবস্থা বেহাল। রাস্তা নাকি মাঠ তা দেখে বোঝার উপায় নেই। প্যাচপ্যাচে কাদা ভর্তি রাস্তা দিয়ে একপ্রকার বাধ্য হয়ে যাতায়াত গ্রামবাসীদের।

  • Share this:

    #পশ্চিম মেদিনীপুর : বর্ষার শুরুতেই গ্রামের রাস্তার অবস্থা বেহাল। রাস্তা নাকি মাঠ তা দেখে বোঝার উপায় নেই। প্যাচপ্যাচে কাদা ভর্তি রাস্তা দিয়ে একপ্রকার বাধ্য হয়ে যাতায়াত গ্রামবাসীদের। প্রায়শই কাদায় আটকে পড়ে গাড়ি। সম্প্রতি এক রোগী হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার সময়ও ঘটল একই ঘটনা। কাদায় আটকে পড়ল গাড়ির চাকা। গ্রামবাসীরা ঠেলে কোন রকমে কাদা থেকে তুলে বের করল গাড়িটিকে। বুধবার কার্যত ক্ষুব্ধ হয়ে রাস্তায় ধানের চারা রোপন করে দেখানো হল প্রতীকি বিক্ষোভ। পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার দাসপুর ২ নম্বর ব্লকের সাহাচক গ্রাম পঞ্চায়েতের বিষ্ণুপুর গ্রামের রাজারমোড় থেকে উদয়চক কালভার্ট পর্যন্ত বেহাল গ্রামের মাটির রাস্তাটি। প্রায় ১০-১২ টি গ্রামের একমাত্র যাতায়াতকারী এই রাস্তা, আর বর্ষা শুরু হতে অল্প বিস্তর বৃষ্টিতে রাস্তা কাদায় পরিণত হয়েছে।

    জানা যায়, হাসপাতালে যাওয়ার জন্য সাগরপুর থেকে রোগী নিয়ে একটি মারুতি গাড়ি ঢুকে পড়েছিল ওই রাস্তায়। গাড়ির চালক শেখ রমজান আলীর জানা ছিলো না যে রাস্তার এমন বেহাল দশা। সেই গাড়ি গিয়ে আটকে পড়ে রাস্তার কাদায়। দীর্ঘ ক্ষনের চেষ্টায় গাড়িকে ঠেলে অনেক কষ্টে হাসপাতালে নিয়ে যায় এলাকার মানুষ।

    আরও পড়ুনঃ নাবালিকাকে অপহরনের অভিযোগ পরিবারের, তারপর কি হল কিশোরীর!

    জানা যায়, ওই গ্রামের রাস্তাটি দীর্ঘদিন ধরে বেহাল, গ্রামের রাস্তা মেরামতের জন্য স্থানীয় বাসিন্দারা বারবার ব্লক প্রশাসন থেকে শুরু করে গ্রাম পঞ্চায়েতের সকলকে জানিয়েও রাস্তা মেরামত না হওয়ায় ক্ষোভে ফুঁসছে এলাকার মানুষের।

    আরও পড়ুনঃ কলকাতার লাল হলুদ ক্লাবের ক্রিকেট কোচ মেদিনীপুরের সুশীল শিকারিয়া

    এ বিষয়ে এলাকার পঞ্চায়েত সদস্য কার্তিক মন্ডল বলেন, রাস্তাটি তৈরীর জন্য ২৫ লক্ষ টাকার স্কিম তৈরি করা হয়েছে। বর্ষার পরেই কাজ শুরু হবে। বর্তমানে কষ্ট হচ্ছে, সেটা ঠিকই। তার জন্য আমরা সমব্যথী, কিন্তু একটু ধৈর্য রাখুন, বর্ষার পরেই রাস্তা তৈরীর কাজ শুরু হবে।

    Partha Mukherjee
    Published by:Soumabrata Ghosh
    First published:

    Tags: Paschim medinipur

    পরবর্তী খবর