Home /News /west-midnapore /
Paschim Medinipur: কেশপুরে দুয়ারে রেশন দিতে গিয়ে বিপাকে রেশন ডিলার

Paschim Medinipur: কেশপুরে দুয়ারে রেশন দিতে গিয়ে বিপাকে রেশন ডিলার

title=

দুয়ারে রেশন দিতে এসে গ্রামবাসীদের বিক্ষোভের মুখে রেশন ডিলার। ক্ষুব্ধ গ্রামবাসীদের হাত থেকে রেশন ডিলারকে উদ্ধার পুলিশের। ঘটনায় চাঞ্চল্য এলাকায়।

  • Share this:

    পশ্চিম মেদিনীপুরদুয়ারে রেশন দিতে এসে গ্রামবাসীদের বিক্ষোভের মুখে রেশন ডিলার। ক্ষুব্ধ গ্রামবাসীদের হাত থেকে রেশন ডিলারকে উদ্ধার পুলিশের। ঘটনায় চাঞ্চল্য এলাকায়। ঘটনাটি ঘটেছে কেশপুর থানার অন্তর্গত খড়িকা গ্রামে। জানা যায়, সরকারি নির্দেশে খড়িকাতে শনিবার দুয়ারে রেশনের শিবির হয়। কেশপুরের চড়কা গ্রামের রেশন ডিলার সেক রফিকুল সেই শিবিরে রেশন সামগ্রী বিতরণ করেন। কিন্তু গ্রামবাসীদের অভিযোগ, প্রতিটি গ্রাহককে তাদের বরাদ্দকৃত সামগ্রীর থেকে কম দেওয়া হয়। গ্রামবাসীদের আরও অভিযোগ, বিগত এক বছরের বেশি সময় ধরে এভাবে রেশন সামগ্রী গ্রাহকদের কম দিয়ে আসছে রেশন ডিলার সেক রফিকুল। এদিনও একই ঘটনা ঘটায় গ্রামবাসীরা ডিলারকে স্থানীয় একটি স্কুল ঘরে ঢুকিয়ে তালা মেরে আটকে রেখে বিক্ষোভ দেখায়। খবর দেওয়া হয় কেশপুর থানায় এবং ব্লকের খাদ্য দফতরে।

    খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে কেশপুর থানার পুলিশ এসে রেশন ডিলার সেক রফিকুলকে গ্রামবাসীদের কাছ থেকে নিয়ে যায় ব্লকের খাদ্য দফতরে। গ্রামবাসীদের অভিযোগের ভিত্তিতে বিষয়টি খতিয়ে দেখছে খাদ্য দফতরের আধিকারিকরা। এই ঘটনায় এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়।

    আরও পড়ুনঃ সঙ্গী ১১০ সিসির বাইক, বন্ধুকে নিয়ে গুরুদংমারে মেদিনীপুরের যুবক, তারপর!

    এক রেশন গ্রাহক সঞ্জয় পইড়ার অভিযোগ বিগত এক বছরেরও বেশি সময় ধরে এভাবেই প্রতি গ্রাহককে কখনও এক কেজি আবার কখনও দু কেজি রেশন সামগ্রী কম দিয়ে আসছিল রেশন ডিলার শেখ রফিকুল। এ বিষয়ে বারবার রেশন ডিলারকে সাবধান করা সত্ত্বেও কর্ণপাত করেনি রেশন ডিলার রফিকুল।

    আরও পড়ুনঃ প্রেমের টানে বারাসাত থেকে দাসপুরে এসে প্রেমিকের খোঁজে ধর্ণায় প্রেমিকা

    শনিবারও গ্রাহকদের রেশন সামগ্রী কম দেওয়ার প্রতিবাদে ক্ষুব্ধ রেশন গ্রাহকেরা ওই রেশন ডিলারকে স্থানীয় স্কুল ঘরে ঢুকিয়ে তালা মেরে দেয়। বিষয়টি ব্লকের খাদ্য দপ্তরে অভিযোগের আকারে জানানো হয়েছে। খাদ্য দপ্তরের আধিকারিকরা খতিয়ে দেখে উপযুক্ত ব্যবস্থা গ্রহণের আশ্বাস দিয়েছেন।

    Partha Mukherjee
    First published:

    Tags: Duare Ration, Keshpur, Paschim medinipur

    পরবর্তী খবর